চট্টগ্রাম শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন আইসিইউতে

৪ মে, ২০২০ | ১২:৩২ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন আইসিইউতে

করোনা উপসর্গ নিয়ে রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর অধ্যাপক মুনতাসীর মামুনকে রাত একটার দিকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছে। করোনার চিকিৎসার জন্য ডেডিকেটেড এই হাসপাতালের কোভিড-১৯ চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা. মনিলাল আইচ লিটু এই তথ্য নিশ্চিত করেন। রবিবার (৩ এপ্রিল) তিনি বলেন, ‘অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন আশঙ্কামুক্ত নন। তাকে অক্সিজেন দেয়া হয়েছে।’

ডা. মনিলাল আইচ লিটু আরও বলেন, ‘অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তার করোনা বলেই আমরা ধারণা করছি, কারণ তার মা করোনায় আক্রান্ত হয়ে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। মায়ের সান্নিধ্যেও ছিলেন তিনি। ১০ দিন আগে মায়ের সংর্স্পশে আসার আগে তার করোনা টেস্ট করা হয়, কিন্তু তখন নেগেটিভ আসে। এখন হঠাৎ করে শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়ায় তাকে মুগদা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়, তার ইসিজি করাও হয়েছে। কিন্তু পরিস্থিতিরি উন্নতি না হওয়ায় তাকে আইসিউতে নেয়া হয়।’

অধ্যাপক মুনতাসীর মামুনের মেয়ে রয়া মুনতাসীর বলেন, ‘করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ১০ দিন আগে বাবার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। তবে এখন করোনাভাইরাসের উপসর্গ স্পষ্ট হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছি। আজ সর্বশেষ টেস্টের চূড়ান্ত রিপোর্ট হাতে পাব।’

প্রসঙ্গত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসের অধ্যাপক মুনতাসীর মামুনের মুক্তিযুদ্ধের ওপর অনেক গবেষণাকর্ম রয়েছে। একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবির আন্দোলনে সম্পৃক্ত এই অধ্যাপক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্যও দিয়েছেন। সাম্প্রদায়িকতা-মৌলবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন সক্রিয় রয়েছেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটিতেও। বর্তমানে কমিটিতে সহ-সভাপতির পদে আছেন তিনি। একাত্তরের গণহত্যা নিয়ে গবেষণা করেছেন অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন। তার প্রচেষ্টায় ২০১৪ সালের ১৭ মে খুলনায় প্রতিষ্ঠা পায় গণহত্যা নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর। স্বাধীন বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত ডাকসুর প্রথম নির্বাচনে সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন মুনতাসীর মামুন। একই সময়ে তিনি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংস্কৃতি সংসদের সভাপতি। অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন জাতীয় জাদুঘরের ট্রাস্টি বোর্ড এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও জাতীয় আর্কাইভসের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ছিলেন। ঢাকা নগর জাদুঘরের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা তিনি। ঢাকার ইতিহাস চর্চার জন্য মুনতাসীর মামুন প্রতিষ্ঠা করেছেন সেন্টার ফর ঢাকা স্টাডিজ (ঢাকা চর্চা কেন্দ্র)। তিনি বাংলা একাডেমির একজন ফেলো।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/এম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 213 People

সম্পর্কিত পোস্ট