চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

‘ভুল’এন ৯৫ মাস্ক সরবরাহের জন্য ক্ষমা চেয়েছে জেএমআই

২১ এপ্রিল, ২০২০ | ৮:৪২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

‘ভুল’এন ৯৫ মাস্ক সরবরাহের জন্য ক্ষমা চেয়েছে জেএমআই

চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য দুটি চালানের মাধ্যমে সিএমএসডিতে ২০ হাজার ৬০০ পিস এন-৯৫ ফেস মাস্ক সরবরাহ করেছিল জেএমআই। কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের পরিদর্শনে দেখা যায়  সরবরাহ করা মাস্কগুলো  বাস্তবে তা এন-৯৫ মাস্ক নয়। পরে ‘ভুল’ মাস্ক সরবরাহের কথা স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে দায়মুক্তি চেয়েছে জেএমআই হসপিটাল রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেড নামের প্রতিষ্ঠানটি।

কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের ভান্ডার ও রক্ষণের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ সম্প্রতি এ নিয়ে জেএমআই হসপিটাল রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেডকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এন-৯৫ ফেস মাস্ক দাবি করে অন্য মাস্ক সরবরাহ করার অভিযোগের জবাব দেয়ার নির্দেশ দেন।

জবাবে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক জানান, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে চাহিদা তৈরি হওয়ায় জেএমআই হসপিটাল স্বপ্রণোদিত হয়ে মাস্ক তৈরির চেষ্টা করছে, যা এখনো প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্ট পর্যায়ে আছে। যে সময় মাস্কগুলো সরবরাহ করা হয়, তখনো দেশে এন-৯৫-এর স্পেসিফিকেশন সংক্রান্ত কোনো সুনির্দিষ্ট গাইডলাইন ছিল না। পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য জেএমআই হসপিটাল রিকুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেড কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে বেশ কিছু পণ্য সরবরাহ করে। সরবরাহকৃত পণ্যের সঙ্গে ভুলক্রমে প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্ট পর্যায়ে তৈরিকৃত ২০ হাজার ৬০০ পিস এন-৯৫ মাস্ক অন্তর্ভুক্ত করা হয়, যা এন-৯৫-এর স্পেসিফিকেশনের সঙ্গে ‘কমপ্লাই’ করে না।

চিঠিতে তিনি জানান, পণ্য উন্নয়নকালে এসব মাস্কে কোনো প্রস্তুতকারক, ব্যাচ নম্বর, উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ মুদ্রিত হয়নি। পণ্যটি এখন পর্যন্ত স্থানীয় বাজারেও বিপণন করা হয়নি। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি ও উপরিউক্ত ব্যাখ্যা সদয় বিবেচনাপূর্বক সরবরাহকৃত মাস্ক ফেরত দিয়ে আমাদের অনিচ্ছাকৃত সম্পাদিত ভুলের দায় হতে মুক্তি দানে বাধিত করবেন।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঝুঁকিসহ দেশের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা শুরু থেকেই পর্যাপ্ত ও মানসম্পন্ন স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী ছাড়াই সেবা দিতে হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সঠিক সুরক্ষা সামগ্রী ছাড়াই চিকিৎসাসেবা দেয়ার কারণে চিকিৎসক-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যে নভেল করোনাভাইরাসে সংক্রমিতের হার বাড়ছে।

পূর্বকোণ- আরজি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 431 People

সম্পর্কিত পোস্ট