চট্টগ্রাম শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

জানাজায় জনস্রোত: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এএসপি, ওসিসহ তিনজন ‘প্রত্যাহার’

১৯ এপ্রিল, ২০২০ | ১:১১ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

জানাজায় জনস্রোত: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এএসপি, ওসিসহ তিনজন ‘প্রত্যাহার’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে লকডাউন অমান্য করে জানাজার ঘটনায় এবার সরাইল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মাসুদ রানা এবং সরাইল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল হককে প্রত্যাহার করা হয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে সম্প্রতি দেশজুড়ে নানান সচেতনতামূলক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। দেশের বেশকিছু স্থান লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এর মাঝে এত ঝুঁকি সত্ত্বেও, সকল নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মাওলানা জুবায়ের আহমেদ আনসারীর জানাজায় লোক সমাগ‌ম ঘটার বিষ‌য়ে যথাযথ ব্যবস্থা নি‌তে না পারায়সরাইল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মাসুদ রানা এবং সরাইল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল হককে প্রত্যাহার করা হয়।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, প্রত্যাহারের বিষয়টি শুনেছি। তবে এখনো কাগজপত্র হাতে পাইনি। এর আগে ওই ঘটনায় দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার দায়ে সরাইল থানার ওসি শাহদাৎ হোসেন টিটুকে প্রত্যাহার করা হয়। শনিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে তাকে প্রত্যাহার করে জেলা পুলিশ লাইনে যুক্ত করতে বলা হয়। জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার সহকারী পুলিশ সুপার মো. আলাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানায়, শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিজ বাসভবনে মাওলানা আনসারীর মৃত্যুর পরই এমন লোক সমাগমের বিষয়টি আঁচ করা যাচ্ছিল। কিন্তু পরিস্থিতির এমন আশঙ্কা করলেও যথাযথ ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হওয়ায় সরাইলের ওসি, সার্কেল এএসপি এবং একজন ইন্সপেক্টর (তদন্ত) প্রত্যাহার করা হয়েছে। যদিও সরাইল উপজেলার বেড়তলা এলাকার জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা মাঠে মাওলানা আনসারীর জানাজায় জনস্রোত নামার বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়, পুলিশের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু জানাজায় শরিক হওয়া থেকে মানুষকে নিভৃত করা সম্ভব হয়নি।

ঘটনার পর সরাইলের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহদাৎ হোসেন বলেন, জানাজায় এত মানুষ হবে আমরা বুঝতে পারিনি। লোকজন আসতে শুরু করার পর আমাদের আর কিছু করার ছিল না। করোনার বিস্তারের পরিপ্রেক্ষিতে ঘটনার একদিন আগে বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) ‘গোটা দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ’ ঘোষণা করে সরকার। শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাওলানা আনসারীর জানাজায় হাজার হাজার মানুষকে শরিক হতে দেখা যায়। লকডাউন উপেক্ষা করে এত মানুষের সমাগম করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিকে অনেক বেশি বাড়িয়ে দিল বলে মনে করা হচ্ছে। জানাজার ছবি ভাইরাল হতেই বিভিন্ন পর্যায়ে সমালোচনা শুরু হয়। এমন পরিস্থিতিতে অনেকে প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন। যদিও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, মাওলানা আনসারীর জানাজায় মানুষের যে ঢল, তা আটকানোর মতো পরিস্থিতি ছিল না। মানুষ বোধসম্পন্ন হলে বোঝানো সম্ভব। বোধহারা হলে কিছুই করার নেই। প্রশাসন চেষ্টা করেছে। কিন্তু জানাজায় শরিক হওয়া থেকে মানুষকে নিভৃত করা সম্ভব হয়নি।

 

 

 

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/এম

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 450 People

সম্পর্কিত পোস্ট