চট্টগ্রাম সোমবার, ০১ জুন, ২০২০

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা, বেরিয়ে এলো থলের বেড়াল!

১৭ এপ্রিল, ২০২০ | ৩:১৬ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে হত্যা, বেরিয়ে এলো থলের বেড়াল!

ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে স্বামী। পারিবারিক কলহের জের ধরে তাহমিনা আক্তার (২৮) নামের ওই গৃহবধূকে হত্যার ঘটনায় স্বামী ওবায়দুল হক ভূঁঞা টুটুলকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বুধবার (১৫ এপ্রিল) এ ঘটনা ঘটে। ফেনী শহরের বারাহীপুরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। মেয়েকে হত্যার অভিযোগ এনে টুটুলের বিরুদ্ধে ফেনী মডেল থানায় মামলা দায়ের করে নিহত তাহমিনার পিতা সাহাবউদ্দিন।

সাহাবউদ্দিন জানান, পাঁচ বছর আগে টুটুল ও তাহমিনা প্রেম করে বিয়ে করে। তাহমিনা চট্টগ্রামের একটি হাসপাতালে নার্স হিসেবে কাজ করত। এদিকে, তাহমিনা আক্তারের বোন রেহানা আক্তার অভিযোগ করেছেন টাকার জন্যই তার বোনকে এভাবে নিশৃংস ভাবে হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেন, খুনের দিন সকালে আমার বোনকে পরিবারের সবাই নির্যাতন করেছে। তারা আগেও আমার বোনকে মেরেছে। টাকার জন্য টুটুল প্রায় আমার বোনকে মারত। সে খুন করার হুমকিও দিত। বিয়ের শুরু থেকে বিভিন্ন সময় টুটুলকে টাকা দিতে হবে বলে তিনি জানান, কিছুদিন আগ পর্যন্ত টুটুলকে ৭৫ হাজার টাকা ভাগে ভাগে দেয়া হয়েছে। টাকার জন্য সে তাহমিনাকে প্রায় চাপ দিত। দেড় বছর আগে তাদের একটি মেয়ে হওয়ার পর টুটুলের পরিবার বিয়ে মেনে নেয়। রেহানা আরো বলেন; ছয় মাস আগে টুটুল, তার মা, বোন বৃষ্টি ও ভাই মেহেদী তাহমিনাকে খুব মারধর করে। দুই মাস আমাদের বাড়িতে থেকে সুস্থ হওয়ার পর আবার শ্বশুর বাড়ি ফিরে যায়। টাকা দিলে কিছুদিন ভালো থাকে, এরপর আবার শুরু হয় নির্যাতন। নিজের পছন্দে বিয়ে করায় তাহমিনা কখনো শ্বশুরবাড়ির বদনাম করতে চাইত না।

এদিকে তাহমিনার বাবা সাহাবউদ্দিন বলেন, জামাই একা আমার মেয়েকে খুন করেনি, টুটুল যেভাবে তার মা, বোন, ভাইকে আলাদা কক্ষে বেঁধে রেখে তাহমিনাকে হত্যা করেছে তা অবিশ্বাস্য। সাহাবউদ্দিন আরো বলেন, কয়েক সপ্তাহ আগে নিজ গ্রাম গুনবতীতে একটি এনজিও থেকে সুদের ওপর ১৫ হাজার টাকা নিয়ে মেয়ের সুখের জন্য টুটুলকে দেন। টুটুলের পরিবারের সদস্যরা হত্যাকাণ্ড ও তাহমিনাকে বিভিন্ন সময়ে নির্যাতনের বিষয়ে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানায়। অন্যদিকে টুটুলের ছোট ভাই মেহেদী বলেন, ভাবীর অন্য কোথাও সম্পর্ক আছে, এ নিয়ে স্বামী স্ত্রীর ঝগড়ার সূত্র ধরে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/এম

The Post Viewed By: 1900 People

সম্পর্কিত পোস্ট