চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ০৪ জুন, ২০২০

বৈশাখী বিক্রি বন্ধতে ২ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি দেশীয় শিল্পে

২ এপ্রিল, ২০২০ | ৯:৪৩ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বৈশাখী বিক্রি বন্ধতে ২ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি দেশীয় শিল্পে

নভেল করোনাভাইরাসের কারণে থেমে গেছে সবকিছুই। ভাইরাসটি প্রতিরোধে মানুষকে ঘরে থাকতে নির্দেশ দিয়ে দুদিন আগে সরকারিভাবে পয়লা বৈশাখের সব অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। সেই ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সঙ্গে সারা দেশের দোকানপাট ও বিপণিবিতান (শপিং মল) বন্ধ থাকবে। ফলে বর্তমান পরিস্থিতিতে বৈশাখকেন্দ্রিক বেচাবিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা একেবারে নেই বললেই চলে।

চলতি বছর বৈশাখী বিক্রি বন্ধ হওয়ায় দুই হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হবে বলে দাবি করেছে দেশীয় ফ্যাশন হাউস মালিকদের সংগঠন ফ্যাশন এন্টারপ্রেনারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ফ্যাশন উদ্যোগ)। সংগঠনটির সভাপতি মো. শাহীন আহম্মেদ আজ বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এমন তথ্য জানিয়েছেন।

শাহীন আহম্মেদ বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে মার্চের শুরুর দিকে বেচাবিক্রি কমে যায়। তাতে ইতিমধ্যে লোকসান গুনতে হয়েছে প্রায় ১২৫ কোটি টাকা। আর মার্চের শেষে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করার ফলে বন্ধ হয়ে গেছে বৈশাখী বিক্রিও। এতে করে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হবে দেশীয় পোশাকশিল্প। বৈশাখী বিক্রি না হওয়ায় অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়বে  দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলোর কর্মীদের আগামী তিন মাসের বেতন-ভাতা।

একইসঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলো প্রান্তিক কারুশিল্পী ও বয়নশিল্পীদের কাজের মজুরি বাবদ বকেয়া প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা পরিশোধেও হিমশিম খাবে- এমন দাবিও করেছেন সংগঠনটির সভাপতি। আর এসব কারণে সরকারের কাছে বিনা সুদে ১ বছরের জন্য ৫০০ কোটি টাকা ঋণ দাবি করেছে ফ্যাশন হাউস মালিকদের সংগঠন ফ্যাশন এন্টারপ্রেনারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ফ্যাশন উদ্যোগ)।

পূর্বকোণ/আরপি

The Post Viewed By: 205 People

সম্পর্কিত পোস্ট