চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

হটস্পটে পরিণত চট্টগ্রাম: করোনার চিকিৎসা সরঞ্জামের সংকট
হটস্পটে পরিণত চট্টগ্রাম: করোনার চিকিৎসা সরঞ্জামের সংকট

১৯ মার্চ, ২০২০ | ২:৪৩ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

করোনাভাইরাস: আক্রান্ত দুই লাখ ছাড়াল

করোনায় বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ৮৭৯১ জনের

বিশ্বব্যাপী দ্রুত ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮ হাজার ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। খবরে বলা হয়, করোনায় আক্রান্ত ২ লাখ ১২ হাজার ৮৭০ জনের মধ্যে বর্তমানে চিকিৎসাধীন ১ লাখ ৯ হাজার ৭৫ জন। এরমধ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছেন ১ লাখ ২ হাজার ৮৫৬ জন ও ৬ হাজার ৪১৮ জনের অবস্থা গুরুতর। আক্রান্তদের মধ্যে বাকি ৯০ হাজার ৮২৩ জনের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮২ হাজার ৮১৩ জন এবং মারা গেছেন ৮ হাজার ৭৯১ জন। গত বছরের শেষদিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনা ভাইরাস। যাতে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যু সংখ্যা। প্রায় প্রতিদিনই ভাইরাসের কেন্দ্রস্থল উহানে যেমন নতুন রোগী বাড়ছে, তেমনি নতুন দেশ থেকে করোনা আক্রান্ত রোগীর তথ্য জানানো হচ্ছে। সবশেষ তথ্যানুযায়ী ভাইরাসটি এরইমধ্যে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৬৭টি দেশে ছড়িয়েছে। এসব দেশ থেকে নতুন রোগীর তথ্য জানানো হচ্ছে। পাশাপাশি যোগ হচ্ছে নতুন দেশের নাম। আক্রান্তদের মধ্যে চীনের অবস্থান এখনো সবার উপরে। দেশটিতে গত কয়েক সপ্তাহে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমে এলেও এখন পর্যন্ত ৮০ হাজার ৮৯৪ জনের দেহে ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে তিন হাজার ২৩৭ জনের। সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৬৯ হাজার ৬১৪ জন। চিকিৎসাধীন ৮ হাজার ৪৩ জনের মধ্যে সংকটাপন্ন ২ হাজার ৬২২ জন। চীনের পর কভিড-১৯ ইতালি দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ৩৫ হাজার ৫০০ ছাড়িয়ে গেছে। মৃত্যু হয়েছে দ্ইু হাজার ৯৭৮ জনের। সেরে উঠেছেন তিন হাজারের কাছাকাছি। ২৬ হাজার ৬২ জন চিকিৎসাধীনের মধ্যে বিপজ্জনক অবস্থায় আছেন আরও দুই হাজার ৬০ জন। দেশটিতে আক্রান্তদের মধ্যে ৮ দশমিক ৩ শতাংশেই স্বাস্থ্যকর্মী। ইরানে আক্রান্তের সংখ্যা শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১৭ হাজার ৩৬১; মৃতের সংখ্যা এক হাজার ২০০ ছুঁইছুঁই। স্পেনে একদিনে ২ হাজারের বেশি নতুন রোগী শনাক্ত হওয়ার পর দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজারের কাছে পৌঁছে গেছে বলে জানিয়েছে ওয়ার্ল্ডোমিটারস ডট ইনফো; দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৬২৭। মৃত্যুসংখ্যা বিবেচনায় এরপরের অবস্থানগুলো যথাক্রমে ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, জাপান ও জার্মানির। পরিস্থিতি মোকাবেলায় শুক্রবার থেকে স্কটল্যান্ড ও ওয়েলসের সব স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো নিজেদের মধ্যকার সীমান্ত বন্ধ রাখতে সম্মত হয়েছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নও তাদের সীমান্ত বন্ধের নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ বিদেশিদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ধর্মীয় উপাসনালয়, গণপরিবহনসহ সব ধরনের জমায়েতে দেওয়া হয়েছে বিধিনিষেধ।
করোনভাইরাস প্রতিরোধে উন্নয়নশীল সদস্য দেশগুলির তাৎক্ষণিক চাহিদা মেটাতে প্রাথমিক সহায়তা তহবিল ঘোষণা করেছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। এডিবির প্রেসিডেন্ট মাসাৎসুগু আসাকাওয়া গতকাল বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, এই মহামারী বড় ধরনের বৈশ্বিক সঙ্কটে পরিণত হয়েছে। এজন্য জাতীয়, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পর্যায়ে জোরালো পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। “আমাদের সদস্য ও সহযোগী সংস্থার সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে সদস্য দেশগুলোর তাত্ক্ষণিক প্রয়োজন মেটাতে আমরা এই সাড়ে ৬০০ কোটি ডলারের উদ্ধার তহবিল দিচ্ছি।” এই সাড়ে ৬০০ কোটি ডলারের এই প্যাকেজের বাইরে পরিস্থিতি যখনই চাইবে তখনই আর্থিক ও নীতি সহায়তা দিতে এডিবি প্রস্তুত রয়েছে বলে তিনি বলেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 211 People

সম্পর্কিত পোস্ট