চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

আরো তিন করোনা রোগী শনাক্ত ৩১ মার্চ পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ

১৭ মার্চ, ২০২০ | ৩:০০ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

আরো তিন করোনা রোগী শনাক্ত ৩১ মার্চ পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ

কোচিং সেন্টারও বন্ধ রাখতে হবে

  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিশু দিবসের অনুষ্ঠান বাতিল
  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত
  • ২ এপ্রিল পর্যন্ত সব সিনেমা হল বন্ধ

নতুন করে আরো তিন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে বাংলাদেশে যাদের একজন নারী ও দুটি শিশু। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। গতকাল সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এর আগে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়টি জানিয়েছিলেন। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্ত সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। শিক্ষার্থীদের বাড়িতে রাখতে হবে। এসময়ের মধ্যে কোচিং সেন্টারও বন্ধ রাখতে হবে। কোনোভবে শিক্ষার্থীদের বাড়ির বাইরে রাখা যাবে না। এর আগে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেছিলেন, ১৭ মার্চ সাধারণ ছুটি। ১৮ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করা হবে। এদিকে কোনো শিক্ষার্থী অভিভাবক ছাড়া একা একা বাইরে ঘোরাফেরা করলে তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।
দেশে আরো ২ শিশু ও ১ নারী করোনায় আক্রান্ত : গতকাল সোমবার রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান- দেশে নতুন করে আরো তিন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে একজন নারী ও দুটি শিশু । ফ্লোরা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন তিনজন রোগী শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন নারী, বাকি দুজন শিশু। এর আগে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন দুজন। সর্বমোট ৫ জন রোগী হাসপাতালে আছে। এ পর্যন্ত দেশে ৮ জনের মধ্যে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে তিনজন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। তিনি আরও বলেন, সর্বমোট ২৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ জনের করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। তারা হাসপাতালে আইসোলেশনে আছে। এখন পর্যন্ত ১০ জন হসপিটালের আইসোলেশন আছে। এছাড়া ৪ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টানে আছে।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিশু দিবসের অনুষ্ঠান বাতিল : জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধন ও জাতীয় শিশুদিবস উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মস্থান টুঙ্গিপাড়ায় যে শিশু সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছিল, ‘জনস্বাস্থ্য পরিস্থিতি বিবেচনায়’ তা স্থগিত করেছে আয়োজক কমিটি। সেই সঙ্গে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতেও কোনো কর্মসূচি পালন না করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন বাস্তবায়ন জাতীয় কমিটির প্রধান কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। গতকাল সোমবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে মুজিববর্ষের উদ্বোধন ও জাতীয় শিশুদিবসের কর্মসূচি ঘোষণা করতে গিয়ে তিনি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। তিনি বলেন, “টুঙ্গিপাড়ায় প্রোগ্রাম হবে, তবে সেখানে কোনো শিশু সমাবেশ হবে না। জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় ১৭ মার্চে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোনো অনুষ্ঠানও হবে না।”
প্রাথমিকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চিঠি পাঠ স্থগিত : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা চিঠি পাঠ কর্মসূচি স্থগিত করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিববর্ষ’ দিন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এ চিঠি পাঠ করার কথা ছিলো।
গতকাল সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন এবং সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন।
চীনে ‘কোয়ারেন্টিন শেষে’ ৪৪ জন বাংলাদেশে : বিশ্বজুড়ে মহামারী রূপ নেওয়া নতুন করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কেন্দ্রস্থল চীন থেকে ফ্লাইটে করে বাংলাদেশে এসেছেন ৪৪ জন, যাদের কাছে কোয়ারেন্টিনের মেয়াদপূর্ণ করার সনদ রয়েছে বলে জানিয়েছে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। প্রাণঘাতী ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাবের মধ্যে আন্তর্জাতিক রুটে যাত্রী চলাচল কমে যাওয়ার মধ্যে সোমবার সকালে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট তাদের নিয়ে আসে।
বিমানবন্দরের পরিচালক এএইচ এম তৌহিদ উল আহসান এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, চীন থেকে আসা ৪৪ জনের মধ্যে ১০ জন বাংলাদেশি, বাকিরা চীনা নাগরিক। “এরা সবাই চায়না থেকে হোম কোয়ারেন্টিন করে এসেছে মর্মে সনদপত্র নিয়ে এসেছে। এখনও তারা হোম কোয়ারেন্টিনে থাকবেন বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেছেন।” এদিকে গতকাল সোমবার দুপুর থেকেই যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপ থেকে যাত্রী প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে। সরাসরি বা ট্রানজিট যে ফ্লাইটেই আসুক তাদের ফেরত পাঠানো হবে। এই নিষেধাজ্ঞা ৩১ মার্চ পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত : করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আতঙ্কের মধ্যে সারা দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা আসার পর ৩১ মার্চ পর্যন্ত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। স্থগিত এ পরীক্ষার তারিখ পরে জানিয়ে দেওয়া হবে বলে পরবর্তীতে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। জাতীয় বিশ্বদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. বদরুজ্জামান বলেন, দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তে ১৭ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হওয়ার প্রেক্ষিতে এসব পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।” করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আতঙ্কের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ক্লাস-পরীক্ষা ২৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে এই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য কার্যক্রম চলবে এবং আবাসিক হলগুলোও খোলা থাকবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান। এছাড়া বুয়েট, জাহাঙ্গীরনগর, রাজশাহী, শাহজালালসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ও বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে নিজ নিজ দপ্তর থেকে জানানো হয়।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৫ দিনের ছুটি : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আগামীকাল বুধবার থেকে ২৫ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। যা চলবে ৯ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত। তবে ১০ ও ১১ মার্চ শুক্রবার-শনিবার হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে ১২ এপ্রিল (রবিবার)। এছাড়া আগামীকাল ১৮ মার্চ (বুধবার) দুপুর ২টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগ করতে হবে। গতকাল সোমবার বিকেলে ৫২০ তম জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পরে বিকেল সাড়ে ৫টায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান সাংবাদিকদের এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।
সভা-সমাবেশ বন্ধ করুন : আইইডিসিআর
নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে অত্যাবশ্যকীয় নয় এমন সভা-সমাবেশ বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছে আইইডিসিআর। নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে গতকাল আইইডিসিআরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা দেশে নতুন তিনজন কভিড-১৯ রোগী ধরা পড়ার কথা জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আগে এসব সমাবেশে নিরুৎসাহিত করলেও এখন থেকে সেটা বন্ধ রাখার পক্ষে তারা। “আমরা আগে নিরুৎসাহিত করেছি। কিন্তু এখন আমরা বলছি সব ধরনের সভা-সমাবেশ আপনারা বন্ধ রাখুন। যেখানে গণজমায়েত হতে পারে বা যেখানে অপরিচিত মানুষের আনাগোনা হতে পারে, সে ধরনের সমাবেশ বন্ধ রাখুন।”
বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতদের অধিকাংশ বয়স্ক বলে অতি বয়স্ক ব্যক্তি ও দীর্ঘ মেয়াদে অসুখে ভুগছেন- এমন ব্যক্তিদের অবশ্যই বাড়িতে অবস্থান করার আহ্বান জানান অধ্যাপক ফ্লোরা। তিনি বলেন, অত্যাবশ্যকীয় হলে তারা যেন মাস্ক ব্যবহার করে বাইরে যান।
আইইডিসিআর পরিচালক বলেন, কভিড-১৯ কোনো কঠিন রোগ নয়। এখন পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে আক্রান্তদের মৃদু হাঁচি-কাশি, গলাব্যথা বা জ্বরে ভুগতে দেখা গেছে। “যে কারণে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। কিন্তু আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি সতর্কতায়, সচেতন হওয়ার উপরে। সবার অংশগ্রহণ ছাড়া কিন্তু রোগকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়।” এই মুহূর্তে দেশের বাইরে থেকে বাংলাদেশে না আসতে অনুরোধ জানান অধ্যাপক ফ্লোরা। এছাড়া কারও সঙ্গে হাত মেলানো, কোলাকুলি না করারও অনুরোধও জানান তিনি।
বিদেশ থেকে এলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন : বাংলাদেশে আরও তিনজনের মধ্যে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার পর বিদেশে থেকে আসা সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে রাখার সিদ্ধান্ত দিয়েছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই অনুশাসন দেওয়া হয় বলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান। সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, সরকারি প্রোগ্রাম, ট্রেনিং বা সাধারণ লোকজন যেই (বিদেশ থেকে) আসুক, তাকে অবশ্যই ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে, এ বিষয়ে কারও ছাড় নেই, এটা স্পষ্ট। এটা ডিসি সিভিল সার্জন, এসপি, ইউএনও, মেয়র, চেয়ামারম্যান, মেম্ব^ার, মসজিদের ইমামদের বলে দেওয়া হয়েছে, তারা তাদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে এগুলো প্রচার করবেন এবং এনশিওর করবেন। যদি কেউ কোথাও এ নির্দেশনা লঙ্ঘন করেন, তার বিরুদ্ধে সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সতর্ক করেন সচিব। মানিকগঞ্জে সৌদিফেরত একজনকে রোববার ওই আইনে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করার বিষয়টিও উল্লেখ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। তিনি বলেন, রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার গতকাল সোমবার দেশে ফিরেছেন। তাকে বলে দিয়েছি তুমি অবশ্যই ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোরারেন্টিনে থাকবে, এর মধ্যে অন্য অপশন নেই। যেকোনো অফিসার বা প্রাইভেট লোক হোক, যারাই বিদেশ থেকে আসবে, যে দেশ থেকেই আসবে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। যদি তার কারণে, সে যেই হোক, কোনো কিছু ঘটে আইনানুগভাবে তাকে ফেইস করতে হবে।” এর আগে বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জারি করা এক গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিদেশ ফেরত কিছু প্রবাসী বা তাদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিরা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশিত ১৪ দিনের স্বেচ্ছা-কোয়ারেন্টাইনের শর্ত ঠিকভাবে পালন করছেন না।
অনেকেই মিথ্যা তথ্য ও গুজব রটিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট সকলকে বর্ণিত আইন অনুযায়ী এবং নির্দেশিত পন্থায় যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের অনুরোধ জানাচ্ছে। ব্যত্যয়ের ক্ষেত্রে আইনের সংশ্লিষ্ট শাস্তিমূলক ধারা প্রয়োগ করা হবে।
সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইনে সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণে সরকারি দায়িত্ব পালনে বাধা দিলে বা নির্দেশনা না মানলে সর্বোচ্চ তিন মাসের জেল ও ৫০ হাজার টাকার শাস্তির বিধান রয়েছে। আর মিথ্যা বা ভুল তথ্য দিলে সর্বোচ্চ ২ মাসের কারাদ- বা ২৫ হাজার টাকা অর্থদ- হতে পারে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 210 People

সম্পর্কিত পোস্ট