চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

মানিকগঞ্জে ১০৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে
মানিকগঞ্জে ১০৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে

১২ মার্চ, ২০২০ | ৫:৩৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা অফিস

৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ করোনাভাইরাস প্রতিরোধ

১৭ জেলায় ২১৫ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে

আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দুজন সুস্থ হয়েছেন

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগকে ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা তৈরি এবং এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে আক্রান্তদের চিকিৎসার বন্দোবস্তের জন্য প্রস্তুতি হিসেবে চিকিৎসা সুবিধা সম্প্রসারণে এ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার এই অর্থ বরাদ্দের কথা জানিয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে চিঠি পাঠিয়েছে অর্থ বিভাগ। এই ভাইরাস মোকাবেলায় গত ৫ মার্চ ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছিল স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ।
অর্থ বিভাগের উপসচিব মোহাম্মদ আবু ইউছুফ স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে করোনাভাইরাস প্রতিরাধ ও ‘কোভিড-১৯ ’এ আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার জন্য অর্থ বিভাগের অপ্রত্যাশিত ব্যয় ব্যবস্থাপনা খাত থেকে চলতি ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অনুকূলে সচিবালয় অংশে ‘সাধারণ থোক বরাদ্দ’ খাতে ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হল। এই অর্থের মধ্যে ৪৫ কোটি ৫১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা চিকিৎসা ও শল্য চিকিৎসা সরঞ্জামাদি সরবরাহ, ১ কোটি ৯৮ লাখ ২৫ হাজার টাকা জনসচেতনায় প্রকাশনা কাজে এবং ২ কোটি ৫০ হাজার টাকা কেমিকেল-রি-এজেন্ট খাতে ব্যয় করা হবে।
অর্থব্যয়ে কিছু শর্তও জুড়ে দেওয়া হয়েছে। অর্থ ব্যয়ের ১০ দিনের মধ্যে কোন কোন খাতে ব্যয় হয়েছে, তার বিস্তারিত অর্থ বিভাগকে জানাতে হবে। এছাড়া এ অর্থ প্রস্তাবিত খাত (করোনাভাইরাস) ছাড়া অন্য কোনো খাতে ব্যয় করা যাবে না। গেল বছরের শেষ দিনে চীনের উহান শহরে নভেল করোনাভাইরাস দেখা দেওয়ার পর এরইমধ্যে শতাধিক দেশে তা ছড়িয়েছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ১৯ হাজার মানুষ, আর এতে মৃত্যু হয়েছে ৪২৯৬ জনের।
গত রবিবার বাংলাদেশে প্রথম তিনজন করোনাভাইরাস আক্রান্তের তথ্য জানায় সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর। এছাড়া এই ভাইরাস সংক্রমণের সন্দেহে আটজনকে ‘আইসোলেশনে’ রাখা হয়েছে। ভাইরাস সংক্রমণ থেকে সুরক্ষায় বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়াসহ বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।
এদিকে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দুজন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তৃতীয়জনের চিকিৎসা চলছে। গতকাল বুধবার এ তথ্য জানিয়েছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা। আইইডিসিআরে আয়োজিত নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে মীরজাদী সেব্রিনা আরও বলেন, আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দুজন সুস্থ হয়ে উঠছেন। অন্তত প্রথম পরীক্ষায় এটা নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাঁদের আবার পরীক্ষা করা হবে। আর তৃতীয়জনের চিকিৎসা চলছে। আইইডিসিআরের পরিচালক বলেন, নতুন করে ১০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে। সংবাদ ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, এখন মোট আটজন আইসোলেশনে আছেন। আর কোয়ারেন্টাইনে আছেন চারজন।
গত তিনদিনে বিভিন্ন জেলায় এ পর্যন্ত ২১৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়। তবে এদের মধ্যে এখন পর্যন্ত কারও শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি। এর মধ্যে মানিকগঞ্জে ৭৯, নারায়ণগঞ্জে ৪০, মাদারীপুরে ৩০, কিশোরগঞ্জে ৩৪, ফেনীতে নয়, নোয়াখালীতে এক, যশোরে ছয়, বগুড়ায় দুই, নরসিংদীতে দুই, খুলনায় এক, সিলেটে এক, ফরিদপুরে তিন, জামালপুরে এক, রাজবাড়ীতে দুই, ঝিনাইদহে দুই, চুয়াডাঙ্গায় এক এবং দিনাজপুরে একজন রয়েছেন। জেলা ও উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মীরা হোম কোয়ারেন্টাইনের প্রধান পর্যবেক্ষক হিসেবে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক তাদের স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেওয়া হয়।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 197 People

সম্পর্কিত পোস্ট