চট্টগ্রাম বুধবার, ২৭ মে, ২০২০

করোনাভাইরাস মুজিব জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রভাব ফেলবে?

৭ মার্চ, ২০২০ | ৩:১৪ পূর্বাহ্ণ

করোনাভাইরাস মুজিব জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রভাব ফেলবে?

বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান হচ্ছে এমন এক সময় যখন বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। এ অনুষ্ঠানের ওপর ভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির কোন প্রভাব পড়বে কিনা – অনেকেই এ প্রশ্ন করছেন। বিশ্বের প্রায় ৮০টি দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ হয়েছে। এতে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজারের বেশি মানুষের। এ ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে বিভিন্ন দেশের সরকার। এমন প্রেক্ষাপটেই আসছে ১৭ই মার্চ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান হবার কথা রয়েছে। সেই বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন হবে ঢাকার তেজগাঁও এলাকার পুরাতন বিমানবন্দরে। সে অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রে মোদী ছাড়[াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা অতিথিরা থাকবেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ব্রিটেন, ফ্রান্স, কানাডা এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে অতিথিদের যোগ দেবার কথা রয়েছে। অনুষ্ঠানে বক্তব্য ছাড়াও আতশবাজি এবং কনসার্টও থাকবে। স্বভাবতই সেখানে হাজার-হাজার মানুষের সমাবেশ হবে বলে আশা করছে সরকার।

তবে বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের ব্যাপক সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে বিভিন্ন দেশে লোক জমায়েত বন্ধ করে দিয়েছে সেসব দেশের সরকার। মুসলিমদের জন্য সবচেয়ে পবিত্র স্থান কাবায় প্রবেশও বন্ধ করে দিয়েছে সৌদি আরব সরকার।

ইটালিসহ ইউরোপের কয়েকটি দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফুটবল মাঠে দর্শক ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।। এমনকি স্কুলও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
বাংলাদেশের স্বাস্থ্য বিভাগ বারবারই দাবি করছে যে দেশটিতে করোনাভাইরাসের কোন সংক্রমণ হয়নি। ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে আগত যাত্রীদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হচ্ছে। কিন্তু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যেসব দেশ খেকে অতিথিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে, সেসব দেশগুলোর বেশ কয়েকটিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হয়েছে। এমন অবস্থায় সেসব দেশ থেকে অতিথিরা আসলে বাংলাদেশের জন্য কোন ঝুঁকি তৈরি হবে কিনা সে প্রশ্ন অনেকের মনে আছে।
বিদেশ থেকে যারা বাংলাদেশে আসবেন তদের জন্য কিছু নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউট। এগুলো হচ্ছে
১৪দিন বাসার ভেতরে নিজকে আলাদা রাখতে হবে। বাইরে কোন জনসমাগমে না যাওয়া । জরুরি প্রয়োজনে বাইরে যেতে হলে মুখে মাস্ক লাগানো।
প্রশ্ন হচ্ছে, শেখ মুজিবের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যারা আসবেন – তাদের ক্ষেত্রে কী হবে? তাদেরও কি এই নিয়ম মানতে হবে?

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মি. মোমেন জানান, আমরা তাদের জন্য স্পেশাল ব্যবস্থা করবো। এ ব্যাপারে বিস্তারিত আর কিছু বলেননি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
বাংলাদেশের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের পরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা আশা করেন, ১৭ই মার্চের অনুষ্ঠান ভালোভাবেই সম্পন্ন হবে। বিদেশি অতিথিদের ক্ষেত্রে কী করা হবে – সে বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি সরকার। এ বিষয়টা নিয়ে এখনো পরিকল্পনা চলছে। এটা যেহেতু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে করা হচ্ছে, সম্পূর্ণ পরিকল্পনাটা এখনো আমাদের কাছে নেই। আমরা যখন পরিকল্পনাটা আমাদের হাতে পাবো, তখন আপনাদের জানিয়ে দেবো।-তথ্যসূত্র : বিবিসি বাংলা

The Post Viewed By: 55 People

সম্পর্কিত পোস্ট