চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

বিনা ভাড়ায় প্রবাসীদের লাশ পরিবহনে বিমান মন্ত্রণালয়ের আপত্তি

২৯ জানুয়ারি, ২০২০ | ১:১৪ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

বিনা ভাড়ায় প্রবাসীদের লাশ পরিবহনে বিমান মন্ত্রণালয়ের আপত্তি

দেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অন্যতম প্রধান খাত রেমিটেন্সের সঙ্গে জড়িত প্রবাসী বাংলাদেশিরা। প্রবাসে কোনো বাংলাদেশি মারা গেলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বিনা খরচে সেই লাশ পরিবহন করে দেশে নিয়ে আসে। কিন্তু একেবারে বিনা ভাড়ায় রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান সংস্থার মাধ্যমে প্রবাসীদের লাশ পরিবহনে আপত্তি জানিয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। লাশ পরিবহনের ক্ষেত্রে খরচ চেয়ে শিগগিরই বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় থেকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হচ্ছে।

এ বিষয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক জানান, ‘প্রতি বছর শতশত প্রবাসী বাংলাদেশির লাশ বিনা ভাড়ায় পরিবহন করে থাকে বিমান। মানবিক বিষয়গুলোতে বিমান সবসময়ই অগ্রাধিকার দেয়। কিন্তু আর কতদিন বিমান এভাবে করবে। তাদের তো একটা খরচ আছে। ন্যূনতম খরচটা তো তাদের পেতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তো প্রবাসীদের জন্য ফান্ড আছে। প্রবাসে কোনো বাংলাদেশি মারা গেলে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় সেই ফান্ড থেকে লাশ পরিবহনের জন্য ন্যূনতম একটা ভাড়া বিমানকে দিতে পারে।’ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের কাছে শিগগিরই একটা চিঠি পাঠানো হবে, এবং লাশ পরিবহনের ক্ষেত্রে তাদের কাছে টাকা চাওয়া হবে বলেও জানান সিনিয়র সচিব মহিবুল হক। বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, গত এক বছরে প্রবাসীদের কী সংখ্যক লাশ পরিবহন করেছে, কত খরচ হয়েছে তা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কর্মকর্তাদের দ্রুত মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে বলা হয়েছে। এছাড়া একটি লাশ পরিবহন করতে কত খরচ হয় এবং এ সংক্রান্ত কী কী কাগজপত্র তাদের আছে তাও মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে বলা হয়েছে। এগুলো পাওয়ার পর প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হবে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের এক তথ্য অনুযায়ী, সম্পূর্ণ বিনা ভাড়ায় ২০১৬ থেকে ২০১৭ অর্থবছরে ৮৬১ প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকের মরদেহ বহন করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। এসব মরদেহ বহনে অর্থ নেয়া হলে বিমানের আয় হত ৮ কোটি ৪০ লাখ ৮৭ হাজার টাকা।

জানা যায়, ৮৬১ শ্রমিকের মরদেহের মধ্যে আরব আমিরাতের আবুধাবি থেকে ২৭, দুবাই থেকে ৫৯, কাতারের দোহা থেকে ৮, সৌদি আরবের দাম্মাম থেকে ৯৩, জেদ্দা থেকে ৩২, রিয়াদ থেকে ৩১৬, মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে ৬২, কুয়েত থেকে ৯১ এবং ওমানের মাসকাট থেকে ১৭৩ প্রবাসীর লাশ দেশে এনেছে বিমান। দুর্ঘটনাসহ নানা কারণে মারা যাওয়া প্রবাসী এসব শ্রমিকের মরদেহ বিনা খরচে বহন করেছে।

 

 

 

 

পূর্বকোণ/এম

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 176 People

সম্পর্কিত পোস্ট