চট্টগ্রাম বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

১ ডিসেম্বর, ২০১৮ | ১:১৪ পূর্বাহ্ণ

মাহমুদ মানজুর

হাসিনা, এ্যা ডটারস টেল

প্রধানমন্ত্রী নয়, একজন শেখ হাসিনার জীবনকাহিনী

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সিনেমা তৈরির অনেক আয়োজন আর পরিকল্পনা ঘুরপাক খাচ্ছে বহু বছর ধরে। এ নিয়ে দেশপ্রেমীদের মনে জমেছে হতাশাও। ফলে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়েও যে এক বা একাধিক বায়োপিক, ডকুফিল্ম নির্মাণ করা যায়, সেই বিষয়টা নিয়ে বুঝি ভাবার অবকাশই পাননি কেউ!
অথচ সবাইকে চমকে দিয়ে ভাবনার বাইরের সেই বিষয়টি ধরা দিলো অন্তর্জাল দুনিয়ায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২তম জন্মদিন (২৮ সেপ্টেম্বর) উপলক্ষে প্রকাশ পেল ‘হাসিনা, অ্যা ডটারস টেল’ শিরোনামের একটি সিনেমার ট্রেলার। যেটি দেখলে মুগ্ধতা খেলে যাবে যে কারও মনে, ঘুচে যাবে বঙ্গবন্ধু আর শেখ হাসিনার মতো দেশনেতাদের নিয়ে রূপালি পর্দার দীর্ঘ নীরবতার গ্লানি।
জানা গেছে, অনেকটা নীরবেই বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আত্মজীবনী নিয়ে নির্মিত হলো এই ডকুফিল্ম। আওয়ামী লীগের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) ও অ্যাপেলবক্স ফিল্মস-এর যৌথ প্রযোজনায় এটি নির্মাণ করেছেন রেজাউর রহমান খান পিপলু। ছবিটির চিত্রগ্রহণে ছিলেন সাদিক আহমেদ।
ছবিটি নির্মাণ ভাবনা প্রসঙ্গে নির্মাতা রেজাউর রহমান খান পিপলু বাংলা ট্রিবিউনকে বললেন, ‘শুটিং শেষ। চলছে সম্পাদনার কাজ। এটা অলমোস্ট আমাদের পাঁচ বছরের পরিশ্রমের ফসল। যদিও শুরুতে এমন কিছু করবো ভাবিইনি। শুরুতে আমরা চেয়েছি প্রধানমন্ত্রীর পারসোনাল অ্যাকটিভিটিগুলো রেকর্ড করে রাখতে। যার তেমন কোনও উদ্দেশ্য ছিল না। বছর দুই পরে এসে মনে হলো এটা নিয়ে অসাধারণ কিছু করা যায়। কারণ, উনার পুরো লাইফটা এত বেশি ড্রামাটিক, সেটা সবাই জানেন। এখানে আমি তাঁর সেই ছোট ছোট জীবনের গল্পগুলোকে এক সুতোয় বাঁধার চেষ্টা করেছি।’
সিনেমাটিতে কী কী থাকছে? মানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আর কোন মানুষগুলো বা কোন বিষয়গুলো উঠে আসছে। ট্রেলারটা অসাধারণ, আন্তর্জাতিক মানের। তবে সেখানে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিও বেশ অস্পষ্ট। এমন কৌতূহলের বিপরীতে নির্মাতা জবাব দিলেন এক কথায়, যা ছিল সত্যিই অসাধারণ। সদ্য প্রকাশিত ‘হাসিনা, অ্যা ডটারস টেল’ ছবির ট্রেলারটির মতোই।
পিপলু বললেন, ‘এই ডকুফিল্মে যদি প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে চান, তবে নিশ্চিত করে বলতে পারি, দর্শক হিসেবে আপনি হতাশ হবেন। পরিচালক হিসেবে ব্যর্থ হবো আমি। কারণ, এখানে বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। বাবা-মেয়ের গল্পও বলতে পারেন। যে গল্প আমাদের ভাবাবে, কাঁদাবে, খুশি করবে, গর্বিত হওয়ার কারণ হবে। জাতি হিসেবে আমাদের এই আড়ালে থাকা অসাধারণ গল্পগুলো জানা দরকার। এবং আমি মনে করি এই কাজটি করার মাধ্যমে নির্মাতা হিসেবে জীবনের বড় সুযোগটি পেয়েছি।’
নির্মাতা জানান, ‘হাসিনা, অ্যা ডটারস টেল’ ডকুফিল্মটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৭০ মিনিট। যেখানে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও তার পরিবারের সদস্যদের দেখা যাবে। উঠে আসবে শেখ হাসিনার সাধারণ জীবনের অসাধারণ কিছু মুহূর্ত। যেখানে তিনি কখনও মেয়ে, কখনও মা, কখনও বোন আর কখনও আমজনতার নেত্রী হিসেবে দেখা দেবেন।
এদিকে সিনেমার ট্রেলারটি প্রকাশের পর থেকে ভাইরাল হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে। নির্মাতা পিপলুর কাছে কৌতূহলী প্রশ্ন ছিল, ট্রেলারটি প্রকাশের পর প্রধানমন্ত্রী দেখেছেন কি? তাঁর প্রতিক্রিয়া পেয়েছেন? জবাবে জানালেন, ‘সত্যি বলতে আমিও তাঁর প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষায় আছি। এটাই তো স্বাভাবিক। ভেতরে ভেতরে একটু টেনশনও কাজ করছে, যদি পছন্দ না করেন! তবে তিনি দেশে থাকলে নিশ্চয়ই এতক্ষণে একটা প্রতিক্রিয়া পেতাম। এখন অপেক্ষা ছাড়া উপায় কী। তিনি তো দেশের বাইরে, ব্যস্ত।’
প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার ৭২তম জন্মদিন ছিলো ২৮ সেপ্টেম্বর। ১৯৪৭ সালের এই দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় তাঁর জন্ম।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছার জ্যেষ্ঠ সন্তান শেখ হাসিনা। ভাই-বোনদের মধ্যে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা ছাড়া কেউই জীবিত নেই। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট রাতে বঙ্গবন্ধুসহ তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘাতকদের গুলিতে নিহত হন।
১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আসেন শেখ হাসিনা। ১৯৯৬ সালে তাঁর নেতৃত্বে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন শেখ হাসিনা। এরপর ২০০৮ সালে দ্বিতীয় এবং ২০১৪ সালে তৃতীয়বারের মতো নির্বাচনে জয়ী হয়ে প্রধানমন্ত্রী হন তিনি।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 362 People

সম্পর্কিত পোস্ট