চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০

মি. বিন ছোটদের মজার মানুষ

২১ জানুয়ারি, ২০২০ | ৫:৪১ পূর্বাহ্ণ

আশিক সালেহীন

মি. বিন ছোটদের মজার মানুষ

রোয়ানের আরেক সত্তা মি. বিন। নব্বই দশকের শুরুতে মি. বিন সিরিজ টিভিতে শুরু হয়। এরপর থেকে টানা বিশ বছর রোয়ান এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রথমে শুধু টিভি সিরিয়াল থাকলেও মি. বিন নিয়ে সিনেমা, এমনকি কার্টুনও নির্মিত হয়েছে এবং মি. বিন প্রতিটি ক্ষেত্রেই অসম্ভব জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।
অভিনেতা মিস্টার বিনের নাম শোনেনি এমন মানুষ খুব কমই আছে। শুধু ছোটরা নয়, বড়রাও মিস্টার বিনের অভিনয় দেখে মজা পান। একবার দেখলে বারবার দেখতে ইচ্ছে করে। তবে এই কমেডি অভিনেতাও একদিন তোমাদের মতোই ছোট ছিলেন।

মিস্টার বিনের আসল নাম রোয়ান সেবাস্টিয়ান অ্যাটকিনসন। ১৯৫৫ সালের ৬ জানুয়ারি ইংল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। চার ভাইয়ের মধ্যে বিন সবচেয়ে ছোট।
ছোটবেলা থেকেই রোয়ান ছিলেন খুব হাসিখুশি। কথাও বলতেন কম। কিন্তু পড়াশোনায় ছিলেন খুবই ভালো। ডারহামের ক্যাথেড্রাল স্কুলে রোয়ানের সঙ্গী ছিলেন যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী টনি ব্লেয়ার। টনি গম্ভীর কিন্তু রোয়ান আমুদে আর রসিক হলেও দু’জনের মধ্যে ছিল খুব ভালো বন্ধুত্ব ছিল। পড়াশোনায় ভালো হলেও শুধু পড়াশোনা নিয়েই ব্যস্ত থাকতেন না রোয়ান। স্কুলের একটি ফিল্ম সোসাইটিতেও কাজ করতেন। ওই ফিল্ম সোসাইটির প্রধান বিষয় ছিল শিক্ষার্থীদের হাসির ও শিশুতোষ বিষয়ক বিভিন্ন সিনেমা দেখানো।

রোয়ান নিজে ১২ বছর বয়সের আগে কখনও টেলিভিশনই দেখেননি। কিন্তু ফিল্ম সোসাইটিতে চার্লি চ্যাপালিন, লরেল অ্যান্ড হার্ডির সিনেমা দেখে নিজের অজান্তেই এদের নকল করা শুরু করেন। স্কুলে প্রথম দিকে মঞ্চনাটকে ব্যাকস্টেজে কাজ করতেন। কিন্তু যখন মঞ্চে অভিনয় করা শুরু করেন তখন তা হতো আরও ভালো। স্কুলের প্রধান শিক্ষক রোয়ানের অভিনয় দেখে বলেন, ‘তুমি অভিনয়কে সিরিয়াসলি নিও। তুমি খুব ভালো করবে।’ রোয়ান অভিনয়কে সিরিয়াসলি নিলেও পড়াশোনায় সব সময় প্রথম সারির ছাত্র ছিলেন। এ জন্যই স্কুল-কলেজের পাঠ চুকিয়ে নিউ ক্যাসেল ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পান। এভাবেই একদিন তড়িৎ প্রকৌশলী হয়ে যান। কিন্তু অভিনয়ের প্রতি আগ্রহটা থেকেই যায়।

আবার মঞ্চাভিনয় শুরু করেন। রোয়ানের অভিনয় দেখে ভালো লাগে এক সুপ্রতিষ্ঠিত ফিল্ম এজেন্টের। এই ফিল্ম এজেন্ট রোয়ানকে ‘বিয়ন্ড দ্য জোক’-এ অভিনয়ে সুযোগ পেতে সাহায্য করেন। এরপর বিবিসিতে ‘নট দ্য নাইন ও’ক্লক নিউজ’ অনুষ্ঠানটি করে খ্যাতি অর্জন করেন। ‘দ্য বস্ন্যাক এডর সিরিজ’ রোয়ানকে আরও বেশি পরিচিতি এনে দেয়। অনুষ্ঠানটি এত জনপ্রিয়তা পায় যে এর পাঁচটি সিরিজ তৈরি করে নির্মাতারা।

রোয়ানের আরেক সত্তা মি. বিন। নব্বই দশকের শুরুতে মি. বিন সিরিজ টিভিতে শুরু হয়। এরপর থেকে টানা বিশ বছর রোয়ান এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রথমে শুধু টিভি সিরিয়াল থাকলেও মি. বিন নিয়ে সিনেমা, এমনকি কার্টুনও নির্মিত হয়েছে এবং মি. বিন প্রতিটি ক্ষেত্রেই অসম্ভব জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।
রূপালি পর্দার মতো বাস্তবেও রোয়ানকে সবাই ভাবে হাসিখুশি একজন মানুষ। আসলে ব্যক্তিগত জীবনে রোয়ান খুবই চুপচাপ স্বভাবের। প্রয়োজনের অতিরিক্ত কথা বলতে ওর মোটেও ভালো লাগে না। আর কথা কম বলতে পছন্দ করেন বলেই হয়তো মি. বিন চরিত্রেও এর প্রতিফলন দেখা যায়।

গাড়ি রোয়ানের খুবই পছন্দ। সেটা যদি হয় দ্রুত গতির তাহলে তো কথাই নেই। ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য ফর্মূলা ওয়ান স্পোর্টস কার বেছে নিয়েছেন তিনি। এ ধরনের স্পোর্টস কার পৃথিবীতে রয়েছে মাত্র ১০০টি।

২০১১ সালের ৫ আগস্ট তিনি ওই গাড়িতেই অ্যাক্সিডেন্ট করেন এবং তার কাঁধে অপারেশন করতে হয়। এর কিছুদিন পরই তিনি জানান, মি. বিন চরিত্রের জন্য নিজেকে আর উপযোগী মনে করছেন না। কারণ মি. বিন চরিত্রের জন্য আরও তরুণ কাউকে প্রয়োজন। এছাড়া তিনি মি. বিন’স হলিডে করার পরও বলেছিলেন যে, তিনি আর নতুন কোনো ছবিতে অভিনয় করবেন না। তবে দর্শকদের অনুরোধে তিনি সেই বছরই জনি ইংলিশ-এর সিকুয়্যাল জনি ইংলিশ রি-বর্ন এ মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

The Post Viewed By: 142 People

সম্পর্কিত পোস্ট