চট্টগ্রাম রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

দুরন্ত শৈশব মন-মাতানো ডাংগুলি

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ | ৫:২২ পূর্বাহ্ণ

ইয়াসমিন আকতার

দুরন্ত শৈশব মন-মাতানো ডাংগুলি

শৈশবে ডাংগুলি খেলেননি এমন মানুষ নেহায়েতই কম। এখনকার শহুরে শৈশব জীবনের সঙ্গে একেবারেই অপরিচিত গ্রাম বাংলার জনপ্রিয় এ খেলা। গ্রামীণ ঐতিহ্যের এ খেলা এখন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে।

শৈশবে ডাংগুলি খেলেননি এমন মানুষ নেহায়েতই কম। এখনকার শহুরে শৈশব জীবনের সঙ্গে একেবারেই অপরিচিত গ্রাম বাংলার জনপ্রিয় এ খেলা। গ্রামীণ ঐতিহ্যের এ খেলা এখন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। আধুনিকতার দাপটে এ খেলার অস্তিত্বও খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন।

তবে গ্রাম-গঞ্জের কোথাও না কোথাও এখনো চোখে পড়ে গ্রামীণ জীবনে শৈশব মাতানো এ লোকজ খেলা। ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার জোরবাড়িয়া উত্তর মধ্যপাড়া গ্রামে এক বাড়ির আঙিনায় এক চিলতে জায়গায় প্রায় হারিয়ে যাওয়া ডাংগুটি খেলায় মেতে উঠতে দেখা গেলো একদল শিশুকে।

মন-প্রাণ মাতানো এ খেলার মধ্য দিয়ে দুরন্ত শৈশবে নিজেদের শেকড়ের প্রতীকও যেন হয়ে উঠেছে এসব শিশু। বাঙালির স্বকীয়তা ও ঐতিহ্য ধরে রাখতেই সরকারিভাবেই ডাংগুলির মতো হারিয়ে যাওয়া গ্রামীণ খেলাগুলো টিকিয়ে রাখা প্রয়োজন বলে মনে করেন অনেকেই।
গ্রামীণ ক্রীড়া সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য ডাংগুলি খেলা একদা গ্রামবাংলার ডানপিঠে, দুরন্ত শিশু-কিশোরদের মধ্যে ছিল জনপ্রিয়। বয়স্ক লোকদের কাছে ডাংগুলি এখনো শৈশব স্মৃতি। গ্রাম-গ্রামান্তরে ক্রিকেট পৌছে যাওয়ায় ডাংগুলি, কানামাছি, দাঁড়িয়াবান্ধা, বৌচি, এক্কাদোক্কা, গোল্লাছুটসহ হরেক রকমের খেলার প্রচলন হ্রাস পাচ্ছে।
গ্রামে এবড়ো-থেবড়ো মাটির সড়কের পাশে বাড়ির আঙিনায় উচ্ছল মনে একঝাঁক শিশুকে মেতে উঠতে দেখা গেলো ডাংগুলি খেলায়।
দু’দলে ভাগ হয়ে মাটিতে ছোট গর্ত করে গুটি হিসেবে বসানো হয়েছে কলম। তার উপর দিয়ে চালানো হচ্ছে ডাং’র আদলে কঞ্চি। গর্তে রাখা কলমের নিচে ডাং রেখে সজোরে হাঁকানো হয় গুটি। এ সময় কেউ গুটি ক্যাচ ধরে ফেললেই আউট।

আবার যদি প্রতিপক্ষ গুটি ধরতে না পারে তবে সেখান থেকে নিক্ষেপ করে ডাং টুকতে পারলে মারার সুযোগ পায়। ডাং দিয়ে গুটিকে তিন বার বাড়ি দিয়ে দূরে পাঠানো হয়।
এমন সময় গুটিকে শূন্যের মধ্যেই ডাং দিয়ে আঘাত করতে পারলে অতিরিক্ত পয়েন্ট পাওয়া যায়। গুটি যেখানে গিয়ে পড়বে সেখান থেকেই ডাং দিয়ে গুণে গুণে গর্ত পর্যন্ত আনা হয়।

এভাবে পয়েন্ট বেশি যার, সেই এ খেলায় ফার্স্ট’।
অনেকটাই হারাতে বসা গ্রামীণ ঐতিহ্যের জনপ্রিয় ডাংগুলি খেলা।
বেশিরভাগ শিশু-কিশোর এখন আর এ খেলার বিষয়ে মোটেও আগ্রহী না।
এসব খেলার জায়গা দখল করে নিচ্ছে ক্রিকেট কিংবা ফুটবল। শিশু-কিশোরদের পরিপূর্ণ মানসিক বিকাশের জন্যই এ খেলাগুলো টিকিয়ে রাখা প্রয়োজন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 536 People

সম্পর্কিত পোস্ট