চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

লেখকের দৃষ্টিতে বইমেলা

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৬:০৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

লেখকের দৃষ্টিতে বইমেলা

গল্পকার বিচিত্রা সেন। পেশাজীবনে শিক্ষতার পাশাপাশি লেখালেখিতে কাটে সময়। অমর একুশে বইমেলা উপলক্ষে গ্রন্থকুটির প্রকাশনা থেকে প্রকাশিত হয়েছে লেখকের তৃতীয় গল্পগ্রন্থÑ ‘চোখের আলো’। লেখকের কাছে দৈনিক পূর্বকোণের পক্ষ থেকে কিছু প্রশ্ন রাখা হয়েছিল, তিনি উত্তর দিয়েছেন এভাবেÑ
প্রশ্নÑ বইতো অনেকে প্রকাশ করে এবং দেশে বইও অনেক আছে, আপনার বইয়ের বিশেষত্ব কি?
লেখকÑ আসলে আমি বই প্রকাশের অনুপ্রেরণাটা পেয়েছি স্বয়ং প্রকাশকের কাছ

থেকে। আমার কিছু গল্প দৈনিক আজাদীতে ছাপানোর পর শৈলী প্রকাশনার কর্ণধার রাশেদ রউফ ভাই আমাকে বই প্রকাশ করার অনুপ্রেরণা দেন। শুধু তাই নয়, ২০১৮ সালে তিনি আমার প্রথম বইটি প্রকাশও করে দেন। শুনে আশ্চর্য হবেন আমার প্রথম বই প্রকাশে আমার একটি টাকাও খরচ করতে হয়নি।
প্রশ্ন- প্রথম বই প্রকাশ আর এখন বই প্রকাশের অনুভূতি কেমন?
লেখকÑ প্রথম বই প্রকাশের সময় খুব টেনশনে ছিলাম এই ভেবে যে, পাঠক আমায় গ্রহণ করবে তো! কিন্তু আমার প্রথম বই ২০১৮ সালের একুশের বইমেলায় শৈলী প্রকাশনার বেস্ট সেলার ছিল। এখনো বই প্রকাশের সময় টেনশন কাজ করে, তবে প্রথমবারের মতো নয়।
প্রশ্ন- বই প্রকাশে কী কোন সমস্যা হয়েছে?
লেখকÑ না, মোটেও কোনো অসুবিধা হয়নি। পরপর তিনবছর প্রকাশকরাই আগ্রহ করে আমার বই ছাপিয়েছেন। প্রথম দুই বছর শৈলী প্রকাশনা এবং এ বছর গ্রন্থকুটির আগ্রহ করেই আমার বই ছাপিয়েছে।
প্রশ্নÑ বই বিক্রি না হলে অনেক লেখক হতাশ হন, সে বিষয়কে আপনি কীভাবে দেখছেন?
লেখকÑ বই বিক্রি না হলে তো হতাশ হবারই কথা। কারণ পাঠক তাকে গ্রহণ করেনি বলে লেখকের মনে হয়। তবে এতে হতাশ না হয়ে আরও বেশি লিখে যাওয়া উচিত এবং দুতিন বছর বই প্রকাশ না করে আরও বেশি প্রস্তুতি নিয়ে তারপর বই প্রকাশ করা উচিত।
প্রশ্নÑ বই করার ক্ষেত্রে কোন বিষয়কে খুব বেশি গুরুত্ব দেন?
লেখকÑ বই করার ক্ষেত্রে আমি সামাজিক দায়বদ্ধতাকে গুরুত্ব দিই। আমার চারপাশের সামাজিক অসঙ্গতিগুলো নিয়েই আমি বেশি লিখি। এছাড়া আমার প্রিয় আরেকটি বিষয় মানুষের মনস্তত্ত্ব।
প্রশ্নÑ তরুণ লেখকদের উদ্দেশ্যে কিছু বলার আছে কী?
লেখকÑ তরুণ লেখকদের উদ্দেশ্যে একটি কথাই বলবো, ভালো লিখতে গেলে প্রচুর পড়তে হবে। নিজের পড়াশোনা না থাকলে কখনো ভালো লেখা যায় না।
প্রশ্নÑ এবারের প্রকাশিত বই সম্পর্কে কিছু বলুন, মানে কী কী ধরনের লেখা এতে আছে?
লেখকÑ আমার এবারের গল্পগ্রন্থে আঠারোটি গল্প আছে। আঠারোটি গল্পের বিষয়বস্তু আঠারো রকম। এতে যেমন আছে প্রেম-বিরহ, তেমনি আছে সন্তানের অসুস্থতা নিয়ে মা বাবার সংগ্রাম। আছে মুক্তিযুদ্ধের কথা, আছে রাজাকারদের কথা, আছে পাড়ার মাস্তানদের কথা। সবমিলিয়ে আমাদের চারপাশের সমাজই উঠে এসেছে গল্পগুলোতে। আশা করি বিষয়বৈচিত্র্য পাঠকদের ভালো লাগবে।
প্রশ্নÑ গতবারের চেয়ে এবারের বইমেলা অনেক বড় পরিসরে হচ্ছে সে বিষয়টাকে কীভাবে দেখছেন?
লেখকÑ মেলার পরিসর বড় হওয়াতে একদিকে ভালো, অনেকে ব্যবসা করার সুযোগ পাচ্ছে, তবে আরেকদিকে মেলার প্রথমদিকে কিছুটা অগোছালো ভাব দেখা গেছে। আশা করি সামনে বড় পরিসরের মেলা আরও পরিকল্পিত হবে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 58 People

সম্পর্কিত পোস্ট