চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

ভারত বনধে মিশ্র প্রভাব বাংলায় ভাঙচুর, অগ্নি সংযোগ, পুলিশের লাঠিচার্জ

৯ জানুয়ারি, ২০২০ | ৪:১১ পূর্বাহ্ণ

ভারত বনধে মিশ্র প্রভাব বাংলায় ভাঙচুর, অগ্নি সংযোগ, পুলিশের লাঠিচার্জ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভারতে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ‘সিএএ’, জাতীয় নাগরিকপঞ্জি ‘এনআরসি’ ও জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন বা ‘এনপিআর’-সহ বিভিন্ন ইস্যুতে বিভিন্ন বামপন্থি সংগঠনের ডাকা এক দিনের ভারত বনধ বা ধর্মঘটে মিশ্র প্রভাব পড়েছে। কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের রুজি-রোজগার সংক্রান্ত ১২ দফা দাবির সমর্থনে বেশ কয়েকমাস আগেই দেশব্যাপী এই ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছিল। পরে এর সঙ্গে ‘সিএএ’, ‘এনআরসি’ ও ‘এনপিআর’ বিরোধিতার ইস্যু যুক্ত হয়।

বুধবার বনধকে কেন্দ্র করে পশ্চিমবঙ্গের মালদহের কালিয়াচকে বনধ সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে এসময় লাঠিচার্জ করার পাশাপাশি কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করতে হয়। আজ বেলা ১২ টা নাগাদ কালিয়াচকের সুজাপুরের ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে বনধ সমর্থকরা।

পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশ বাহিনী গেলে ধর্মঘট সমর্থকদের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়ে পুলিশ। এসময় বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়। পাল্টা জবাবে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট নিক্ষেপ করে জনতা। মারমুখী জনতাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। এরপরেই বিক্ষোভকারীরা বেশ কয়েকটি পুলিশের গাড়িতে ভাঙচুর করাসহ আগুন ধরিয়ে দেয়। পশ্চিমবঙ্গে গতকাল বনধ সত্ত্বেও সরকারি দফতরে ৯০ শতাংশের বেশি কর্মী উপস্থিত ছিলেন। যদিও বনধজনিত কারণে হাওড়া থেকে ৪২ টি ট্রেন বাতিল করতে হয়। এদিন বাংলা ছাড়াও দিল্লি, পাঞ্জাব প্রভৃতি রাজ্যে বনধের প্রভাব পড়েছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 89 People

সম্পর্কিত পোস্ট