চট্টগ্রাম শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কুতুপালংয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিলার মিয়ানমানকে রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে হবে

১ জুলাই, ২০১৯ | ২:০২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা হ উখিয়া

কুতুপালংয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিলার মিয়ানমানকে রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে হবে

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী-কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেছেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার। ৬ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত। গতকাল রবিবার সকালে উখিয়ার বালুখালী ১৮ নম্বর ক্যাম্পে সেইভ দ্যা চিলড্রেনের লার্নিং সেন্টার পরিদর্শন করেন। বিকেলে কুতুপালং ডি- ৫ ব্লকে ইউএনএইচসিআরের কার্যালয়ে ২ ঘণ্টাব্যাপী রোহিঙ্গা নেতাদের সাথে কথা বলেন। মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে আসা ৮ জন পুরুষ ও ৪ জন মহিলার সাথে মিয়ানমারের

নির্যাতন নিপীড়ন, হত্যা, ধর্ষণের কথা শুনেন। মিয়ানমারের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে রোহিঙ্গা নেতা সিরাজুল মোস্তফা বলেন, এখন যে সকল রোহিঙ্গা মিয়ানমারে অবস্থান করছেন তারা কোন ক্রমেই বাহিরে অবাধ চলাফেরা করতে পারছে না এমনকি অসুস্থ নারী পুরুষ কোথাও চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে পারছে না। পরবর্তীতে প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গাদের কাছে জানতে চান কিভাবে মিয়ানমার সরকারের উপর চাপ প্রয়োগ করতে হবে ? প্রতি উত্তরে রোহিঙ্গারা বলে আমরা মিয়ানমারে অনেক বছর যাবৎ বসবাস করে আসছি, তাহলে আমাদের উপর এত অত্যাচার, নির্যাতন কেন? মিয়ানমারে ১৩৫ জনগোষ্ঠী বসবাস করে সবাই মিয়ানমারের নাগরিক, আমাদের রোহিঙ্গাদের কেন নাগরিকত্ব স্বীকৃত দিবে না। উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে ২ শতাধিক রোহিঙ্গা মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সামনে নানা রকম ব্যানার, ফেস্টুন প্রদর্শন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রোহিঙ্গা নেতা রশিদ উল্লাহ, মোহাম্মদ নুর, আবু তাহের, হামিদা বেগম প্রমুখ। মার্কিন রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গাদের বলেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপদে প্রত্যাবাসন করা হবে। মিয়ানমারে কখনো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় ঠেলে দেয়া হবে না। মার্কিন রাষ্ট্রদূত উখিয়ার মধুর ছড়া ক্যাম্পের ইউএনএইচসিআরের বায়োমেট্টিক কার্যক্রম, কাস্টি ইয়ার্ডের কার্যক্রমসহ একাধিক এনজিও সংস্থার প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেন। প্রতিনিধি দলটি বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে কুতুপালং ক্যাম্প ত্যাগ করে কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে গমন করেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 250 People

সম্পর্কিত পোস্ট