চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০

১০ জুলাই, ২০২০ | ১২:৫৩ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের সব নিউজ চ্যানেল সম্প্রচার বন্ধ করলে নেপালে

হিমালয়ের দেশ নেপালের ক্যাবল টিভি অপারেটররা ভারতের সব নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে।

এ দিন সকালে শাসক দলের মুখপাত্র নারায়ণ কাজি শ্রেষ্ঠা অভিযোগ করেন, ভারতীয় সংবাদ চ্যানেলগুলিতে নেপাল-বিরোধী অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর সম্পর্কে অবমাননামূলক মন্তব্য করা হচ্ছে। তার পরই কেবলে সব ভারতীয় সংবাদ চ্যানেল বন্ধ হয়ে যায়। কবে আবার তা দেখা যাবে, কেবল অপারেটররা কিছু বলতে পারেননি।

দেশটির ক্যাবল অপারেটর সংগঠন বলেছে, ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো নেপালবিরোধী ভুয়া খবর সম্প্রচার করে, নেপালের কুৎসা রটায়। তাই তারা এই পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে। অলি সরকার ক্যাবল অপারেটরদের ওপর কোনও চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে কি না এ নিয়ে অবশ্য পরিষ্কার করে কিছু বলা হয়নি। তাদের পদক্ষেপে নেপাল সরকারের সায় রয়েছে বলেও জানা গেছে। সরকার এই মর্মে নির্দেশিকা জারি করতে যাচ্ছে। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়া, এনডিটিভির।

সম্প্রতি মানচিত্র সংশোধন করার প্রস্তাব নেপালের সংসদে পাস হয়। নতুন মানচিত্রে ভারতের তিনটি অংশ– কালাপানি, লিপুলেখ এবং লিম্পিয়াধাউরা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। দুই তৃতীয়াংশ সদস্য বিশিষ্ট নেপালি সংসদ এই বিতর্কিত বিলের পক্ষে ২৭৫ আসনের মধ্যে ২৫৮ ভোট দিয়েছে।

ভারত এবং নেপালে সীমান্ত বিরোধের কারণে সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করেছে। ৮ মে লিপুলেখ থেকে ধরচুলা পর্যন্ত নির্মিত রাস্তাটির উদ্বোধন করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এর পরেই নেপাল প্রতিবাদ জানিয়ে লিপুলেখকে তার অংশ হিসাবে উল্লেখ করে। ১৮ মে নেপাল একটি নতুন মানচিত্র প্রকাশ করে। এতে ভারতের তিনটি অঞ্চল লিপুলেখ, লিম্পিয়াধাউরা এবং কালাপানিকে নেপালের মানচিত্রের অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

নেপালের এই সংশোধিত মানচিত্রটি নেপাল মন্ত্রিসভার বৈঠকে ভূমি সম্পদ মন্ত্রণালয় প্রকাশ করেছে। সভায় উপস্থিত মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা এটি সমর্থন করেন।

অলি সরকারের এই পদক্ষেপের ফলে স্বভাবতই ভারত ও নেপালের বন্ধুত্বে ফাটল ধরতে শুরু করেছে। নেপাল এখনও এই মানচিত্রে অনড়। নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি ভারতের বিরুদ্ধে অবৈধ দখলের অভিযোগ এনে জমি ফিরিয়ে নেওয়ার দাবিও জানান।

পূর্বকোণি/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 203 People

সম্পর্কিত পোস্ট