চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

চাবুক মেরে শাস্তির পদ্ধতি বাতিল করছে সৌদি আরব

২৫ এপ্রিল, ২০২০ | ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চাবুক মেরে শাস্তির পদ্ধতি বাতিল করছে সৌদি আরব

চাবুক মেরে শাস্তি দেওয়ার পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার। বিবিসি, রয়টার্স ও আল-আরাবিয়াহর খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

দেশটির সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, চাবুক মারার বদলে কারাদণ্ড কিংবা জরিমানার বিধান করা হবে প্রতিবেদনে জানা যায়।

সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও তার ছেলে মোহাম্মদ বিন সালমানের মানবাধিকার সংস্কারের অংশ হিসেবে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত বলছে, ভিন্নমত দমনে দেশটি মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে অভিযুক্ত। রাজপরিবারের সমালোচনা করলেই সৌদিতে নাগরিকদের জোরপূর্বক গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়া হয়।

ভিন্নমতাবলম্বীদের দমনসহ প্রখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে রয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

মানবাধিকারের সবচেয়ে বাজে রেকর্ড সৌদির বলে দাবি করেছেন সমালোচকেরা।

দেশটিতে সর্বশেষ চাবুক মারার ঘটনা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার করা হয় ২০১৫ সালে। তখন ব্লগার রাফি বাদাওয়িকে প্রকাশ্যে চাবুক মারার ঘটনা ঘটেছিল।

ইসলাম অবমাননা ও সাইবার অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছিল তার বিরুদ্ধে। অপরাধ প্রমাণিত হওয়ার পর তাকে এক হাজার বার চাবুক মারার সাজা ঘোষণা হয়েছিল।

কিন্তু বিশ্বব্যাপী ক্ষোভ ও তার মৃতপ্রায় অবস্থা নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হওয়ার পর সেই সাজার আংশিক মওকুফ করা হয়েছিল।

এসব ঘটনা সৌদি আরবের ভাবমর্যাদার জন্য ক্ষতিকর বলে জানিয়েছেন বিবিসির আরব বিষয়ক সম্পাদক সেবাস্তিয়ান উসার।

তবে বেত্রাঘাত বতিলের সিদ্ধান্ত হলেও সৌদির সাধারণ মানুষের অধিকার খুব শিগগির প্রতিষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করেন বিশ্লেষকরা।

পূর্বকোণ/পিআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 600 People

সম্পর্কিত পোস্ট