চট্টগ্রাম বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

আবার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধের হুমকি ট্রাম্পের
আবার ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধের হুমকি ট্রাম্পের

১৬ এপ্রিল, ২০২০ | ৪:৩৬ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় অর্থায়ন বন্ধে ট্রাম্পের নির্দেশ

এ সিদ্ধান্ত বিপজ্জনক : বিল গেটস

মার্কিন প্রশাসনকে বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থায় (ডব্লিউএইচও) অর্থায়ন বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলার প্রাথমিক দায়িত্ব পালনে সংস্থাটি ব্যর্থ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। গতকাল বুধবার আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ তথ্য জানায়। তিনি জাতিসংঘের এ সংস্থাটির বিরুদ্ধে অব্যবস্থাপনা এবং চীনে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর পর ডব্লিউএইচও তা গোপন করেছিল বলে অভিযোগ করেন। সংস্থাটিকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, পরিপূর্ণভাবে জীবন রক্ষা ও মহামারী করোনা ঠেকানোর ওপরই ডব্লিউএইচও জোর দিয়েছে। গতকাল বুধবার সংস্থাটির প্রধান টেডরস এডহানম গেব্রিয়াসিস এ কথা বলেন। টুইটারে তিনি বলেন, নষ্ট করার মতো সময় নেই।
এর আগে ডব্লিউএইচওর বিরুদ্ধে চীনকেন্দ্রিক হওয়ার অভিযোগ তুলেছিলেন তিনি। এদিকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় তার কার্যক্রম নিয়ে সমালোচিত হচ্ছেন। হোয়াইট হাউসে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, করোনা ভাইরাস ছড়ানোর বিষয়টি গোপন করা এবং এটি মোকাবিলায় গুরুতর অব্যবস্থাপনার পেছনে বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থার ভূমিকা মূল্যায়ন করা হচ্ছে এবং এ সময় আমি আমার প্রশাসনকে সংস্থাটির অর্থায়ন বন্ধ করার নির্দেশ দিচ্ছি। তিনি বলেন, মৌলিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে ডব্লিউএইচও এবং তাকে অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে যুক্তরাষ্ট্রের তহবিল বন্ধের সিদ্ধান্তে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে চীন। গতকাল বুধবার চীন এ উদ্বেগ প্রকাশ করে করোনা সংকট কালে দায়িত্ব পরিপূর্ণভাবে পালনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। এ প্রেক্ষাপটে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় তহবিল বন্ধে মার্কিন ঘোষণায় চীন গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। তিনি বলেন, বৈশ্বিক মহামারি পরিস্থিতি খুবই মারাত্মক। এটি খুবই সংকটকালীন সময়। যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সক্ষমতাকে দুর্বল এবং মহামারির বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সহযোগিতাকে খাটো করবে।
ট্রাম্পের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, এখন ডব্লিউএইচওর বরাদ্দ বাতিলের সময় নয়। সংস্থাটির সর্বাধিক বরাদ্দ আসে যুক্তরাষ্ট্র থেকে। গত বছর এর পরিমাণ ছিল চারশ’ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা সংস্থাটির সম্পূর্ণ বাজেটের প্রায় ১৫ শতাংশ। ডব্লিউএইচওর ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ সালে সংস্থাটিতে চীনের অবদান ছিল প্রায় ৭৬ মিলিয়ন ডলার এবং স্বেচ্ছাধীন বরাদ্দ ছিল প্রায় ১০ মিলিয়ন ডলার। ‘দোষারোপ কোনো ফল দেবে না’ বলে সতর্ক করে জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস বলেছেন, ভাইরাসের বিস্তার রোধে কাজ করার সর্বোত্তম উপায় হচ্ছে, টিকা আবিষ্কার ও পরীক্ষার কিট তৈরি করে তা বিতরণে জাতিসংঘ ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে শক্তিশালী করা। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান জোসেপ বোরেল প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তে গভীর হতাশা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, “এমন একটি সময় যখন করোনাভাইরাস মহামারী কমিয়ে আনা ও নিয়ন্ত্রণে তাদের প্রচেষ্টায় সহায়তা করা অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি প্রয়োজন, তখন কোনো যুক্তিই এই সিদ্ধান্তকে ন্যায্যতা দেয় না।”
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই ঘোষণাকে ‘বিপজ্জনক’ আখ্যায়িত করে বিল গেটস বলেছেন, “অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে এখনই বিশ্বের ডব্লিউএইচওকে বেশি দরকার।” টুইটে বিল গেটস বলেন, বিশ্বস্বাস্থ্যের এমন সংকটময় মুহূর্তে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় তহবিল স্থগিতের সিদ্ধান্ত বিপজ্জনক। তাদের কাজে করোনাভাইরাস বিস্তারের গতিকে ধীর করে দিচ্ছে। এই মুহূর্তে যদি কোনও সংস্থা এ ভাইরাসের বিপক্ষে লড়াই করতে পারে তবে সেটি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। অন্য কেউ তাদের স্থান নিতে পারবে না।
করোনা ভাইরাস মহামারিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র, যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লাখ ৮ হাজার ৩৭৭ এবং মারা গেছেন ২৫ হাজার ৯৮১ জন। ট্রাম্প বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থা চীনে চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ পাঠিয়ে পরিস্থিতি নিরপেক্ষভাবে বিশ্লেষণের কাজটি করতে পারলে এবং চীনের স্বচ্ছতার অভাব নিয়ে অভিযোগ তুললে, প্রাদুর্ভাবটি খুব অল্প মৃত্যুতে উৎসেই দমন করা যেতো। এতে হাজার হাজার মানুষের প্রাণ বাঁচতো এবং বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক ক্ষতি এড়ানো যেতো। কিন্তু তার পরিবর্তে ডব্লিউএইচও স্বেচ্ছায় চীনের আশ্বাসে আস্থা রেখেছে এবং চীনা সরকারের কর্মকা-ের পক্ষ নিয়েছে।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
The Post Viewed By: 256 People

সম্পর্কিত পোস্ট