চট্টগ্রাম রবিবার, ০৭ জুন, ২০২০

বাবার দল ক্ষমতাসীন- চ্যালেঞ্জ তরুণীর!

১১ মার্চ, ২০২০ | ২:৪৬ পূর্বাহ্ণ

বাবার দল ক্ষমতাসীন- চ্যালেঞ্জ তরুণীর!

প্রিয়া প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন- মুখ্যমন্ত্রী হলে ২০২৫ সালের মধ্যে বিহারকে দেশের অন্যতম উন্নত রাজ্যে পরিণত করবেন। ২০৩০ সালের মধ্যে ইউরোপীয় কোনো দেশের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারবেন বিহার।

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : সামনেই ভারতের বিহারে বিধানসভার নির্বাচন। তার আগে লন্ডনে বসে দল গঠন করে শাসক দল জেডিইউ-কে চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন পুষ্পম প্রিয়া চৌধুরী নামের এক তরুণী। শুধু তাই নয়, নিজেকে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ঘোষণা করেছেন ওই তরুণী। ঘটনাচক্রে প্রিয়ার বাবা বিনোদ চৌধুরী জেডিইউ-এরই একজন শীর্ষ স্তরের নেতা এবং মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের ঘনিষ্ঠ। আনন্দবাজার ও জিনিউজ জানিয়েছে, বিহারে বিধানসভা ভোটের আগে চমক দিলেন নীতিশ কুমার ঘনিষ্ঠ জেডিইউ নেতা বিনোদ চৌধুরীর মেয়ে প্রিয়া। লন্ডনে বসে তিনি দলও গঠন করেছেন। দলের নাম ‘প্লুরালস’ (চষঁৎধষং)। নিজেকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ঘোষণা করে প্রিয়া ঘোষণা করেছেন, বিহারে বদল দরকার। বিহার শান্তি চায়। বিহার উড়তে চায়।
লন্ডন নিবাসী প্রিয়া দলের বিজ্ঞাপনে লিখেছেন– ‘বিহারকে ভালোবাসেন, রাজনীতিকে ঘৃণা করেন? চলে এসেছে প্লুরালস। বিহার ভালো কিছু প্রত্যাশা করে। ভালোটা সম্ভবও।’
প্রিয়া চৌধুরী টুইট করেছেন– ‘বিহার শান্তি চায়। বিহার উড়তে চায়। বিহার পরিবর্তন চায়। বিহার উন্নতি আশা করে। উন্নতি সম্ভব। নোংরা রাজনীতিকে প্রত্যাখ্যান করুন।
২০২০ সালে বিহারকে দৌড় করাতে ও ওড়াতে যোগ দিন প্লুরালসে।’ খোলা চিঠিতে প্রিয়া প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন- মুখ্যমন্ত্রী হলে ২০২৫ সালের মধ্যে বিহারকে দেশের অন্যতম উন্নত রাজ্যে পরিণত করবেন। ২০৩০ সালের মধ্যে ইউরোপীয় কোনো দেশের সঙ্গে পাল্লা দিতে পারবেন বিহার।
তবে প্রিয়ার বাবা বিনোদ চৌধুরী বলেছেন, মেয়ের রাজনৈতিক দলের সঙ্গে তার কোনো যোগ নেই। তার কথায়, প্রিয়া সাবালিকা। নিজেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শীর্ষ নেতৃত্বকে চ্যালেঞ্জ করলে তাকে সমর্থন করবে না জেডিইউ।’
লন্ডনে পড়াশোনা করেন পুষ্পম প্রিয়া। পুনেতে এমবিএ করে ব্রিটেনে একাধিক বিষয় নিয়ে তার পড়াশোনা। ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্সে পড়েছেন ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ, লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স এবং পলিটিক্যাল সায়েন্সে পড়েছেন পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন।

The Post Viewed By: 65 People

সম্পর্কিত পোস্ট