চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০

মেয়েদের অপহরণ করেছিলেন দুবাই শাসক!

৭ মার্চ, ২০২০ | ১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

মেয়েদের অপহরণ করেছিলেন দুবাই শাসক!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুমের বিরুদ্ধে নিজ কন্যাদের অপহরণের অভিযোগ করেছিলেন প্রাক্তন স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া। সেই অভিযোগকে সত্য বলে রায় দিয়েছেন ব্রিটিশ আদালত।
দুবাইয়ের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, নিজের ছোট মেয়েকে ১১ বছর বয়সেই সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। অভিযোগকারী তারই প্রাক্তন স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া বিনতে আল-হুসেইন।

প্রিন্সেস হায়ার অভিযোগের প্রেক্ষিতে, ব্রিটিশ হাইকোর্টে আট মাস আগে এই ‘হাই প্রোফাইল’ মামলার কার্যক্রম শুরু হয়। খবর বিবিসির।
অপহরণ, জোর করে বাড়ি ফেরানো, নির্যাতন ও হুমকি দেওয়া- এ রকম একগুচ্ছ অভিযোগ ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাকতুমের বিরুদ্ধে।

আদালত তথ্য অনুসন্ধানী সিরিজ রায়ে জানিয়েছেন, দুবাই থেকে গত বছর দুই সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে আসা প্রিন্সেস হায়ার অভিযোগগুলোর সত্যতা রয়েছে। ২০০৪ সালে ৭০ বছর বয়সী দুবাই শাসকের ষষ্ঠ স্ত্রী হন হায়া। দুটি সন্তান রয়েছে এ দম্পতির।
আদালত বলেন, দুবাইয়ের শাসক যে আদালতের প্রতি উদার ও সৎ নন, সেটিও প্রমাণিত হয়েছে।

বিশদ সাক্ষ্য প্রমাণ ও শুনানি শেষে রায়ে ব্রিটিশ আদালত জানান, অন্য স্ত্রীর গর্ভে জন্ম নেওয়া দুই কন্যাকে অপহরণ ও জোর করে দুবাইয়ে ফিরিয়ে নেওয়ার যে অভিযোগ শেখ মোহাম্মদের বিরুদ্ধে করা হয়েছিল, সেটির সত্যতা পাওয়া গেছে।
ওই দুই কন্যার মধ্যে ২০০০ সালে যুক্তরাজ্যের সারি কাউন্টির পারিবারিক বাসা থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন শেখ শামসা। কিন্তু তাকে পরে ক্যামব্রিজশায়ার থেকে অপহরণ করে দুবাইয়ে নিয়ে যায় শাসকের লোকেরা। অভিযোগ ওঠে, তাকে সেখানে বন্দি রাখা হয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারে দুবাই গিয়ে তদন্ত করতে চাইলেও ব্রিটিশ পুলিশকে সেই অনুমতি দেয়নি সংযুক্ত আরব আমিরাত।

The Post Viewed By: 37 People

সম্পর্কিত পোস্ট