চট্টগ্রাম বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

করোনা ভাইরাস নতুন ১৪২ জনসহ চীনে এ পর্যন্ত মৃত ১,৬৬৫

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৬:১১ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

করোনা ভাইরাস নতুন ১৪২ জনসহ চীনে এ পর্যন্ত মৃত ১,৬৬৫

চীনে করোনা ভাইরাস মহামারীতে নতুন করে ১৪২ জন নিহত হওয়ার পরে রোববার পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১,৬৬৫ জন। তবে পরপর তিন দিন মৃতের সংখ্যা কমেছে। জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন বলেছে, দেশব্যাপী নতুন করে ২০০৯ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে ১,৮৪৩ জন হুবেই প্রদেশের, এখান থেকেই এই মহামারী ছড়িয়ে পড়ে। এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা

দাঁড়িয়েছে ৬৮,৫০০ জন। নিহতদের বেশীরভাগই হুবেই প্রদেশের। দেশের অন্যান্য অংশে আক্রান্তদের সংখ্যা কমছে।
এদিকে ঢাকার আশকোনা হজ ক্যাম্প থেকে ঘরে ফিরেছেন চীনের উহান শহর থেকে ফিরে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ৩১২ বাংলাদেশি।
সংশ্লিষ্টরা জানান, গতকাল রবিবার সকাল ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে পৃথকভাবে ভাগ হয়ে হজ ক্যাম্প ছাড়েন ১১২ বাংলাদেশি। এর আগে শনিবার ঘরে ফেরেন ২০০ বাংলাদেশি।
সূত্র জানায়, উহান থেকে ফেরা বাংলাদেশিদের ১৫ দিনেরও বেশি সময় ধরে রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে নিবিড় তত্ত্বাবধানে রাখা হয়। তাদেরকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পরীক্ষা- নিরীক্ষা করা হয়। সেখানে করোনা ভাইরাসের কোনো লক্ষণ না পাওয়ায় সবাইকে শনি ও রোববার ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর সব বাংলাদেশি নিজ দায়িত্বে ঘরে ফিরে গেছেন। সকালে রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে গিয়ে দেখা যায়, যে স্থানে উহান শহর থেকে ফেরা বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা থাকতেন, সেই কক্ষগুলো ধোঁয়ামোছার কাজ চলছে। সেখানে এখনো একাধিক সংস্থার প্রতিনিধিরা রয়েছেন। তবে হজ ক্যাম্পে প্রবেশে আগের মতো বিধিনিষেধ নেই।
গত ১ ফেব্রুয়ারি চীনের উহান থেকে দেশে আসেন ৩১২ জন বাংলাদেশি। এরপর তাদের আশকোনা হজ ক্যাম্প ও সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।
শনিবার বিকেলে রাজধানীর মহাখালীতে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, চীন থেকে ফেরা ৩১২ জনই সুস্থ রয়েছেন। তাদের কারোর মধ্যে কভিড-১৯ এর কোনো লক্ষণ-উপসর্গ নেই।
অন্যদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে চীনফেরত এক নারীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁকে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। গতকাল দুপুর দুইটার দিকে ওই নারীকে ভর্তি করা হয় বলে হাসপাতালের পরিচালক ফরিদুল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন। হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, চীনের এই নাগরিক জ্বর, সর্দি ও ব্যথায় অসুস্থ হয়ে পড়লে আজ দুপুরে তাঁকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জানা গেছে, ৪ ফেব্রুয়ারি চীনা নারী চীন থেকে বাংলাদেশে আসেন। তিনি নীলফামারীর উত্তরা ইপিজেডে একটি কোম্পানিতে কর্মরত। তার রক্ত, লালা ও ঘাম ঢাকায় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে বলে হাসপাতালের পরিচালক জানিয়েছেন।
হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, এ নিয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চারজন করোনাভাইরাস সন্দেহে ভর্তি হন। এর আগের তিনজন ছিলেন চীনফেরত বাংলাদেশের শিক্ষার্থী। এই তিনজনের মধ্যে একজন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের লক্ষণ না থাকায় তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আর দুজন শিক্ষার্থীকে ঢাকায় পাঠানো হয়।
করোনা ভাইরাস শনাক্তে চীন সরকারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে পাঁচশ কিট উপহার দেওয়া হয়েছে। আর চীন সরকারকে মাস্ক, গ্লাভস উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ। গতকাল রবিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ও ঢাকায় নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।
সংবাদ সম্মেলনে রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেন, করোনা ভাইরাস শনাক্তে চীন সরকারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে পাঁচশ কিট উপহার দেওয়া হয়েছে। এসব কিট দিয়ে ভাইরাস শনাক্ত করা সম্ভব হবে। আগামী দুই দিনের মধ্যে কিটগুলো বাংলাদেশে পৌঁছাবে। এ সময় রাষ্ট্রদূত চীন সরকারের দেওয়া এই উপহারের কপি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।
সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে সমবেদনা প্রকাশ করে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে চিঠি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি জানান, চীন সরকারকে মাস্ক, গ্লাভস উপহার দিয়েছে বাংলাদেশ। পররাষ্ট্রমন্ত্রী চীনা রাষ্ট্রদূতকে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া চিঠি হস্তান্তর করেন।
ড. মোমেন বলেন, একমাত্র সিঙ্গাপুর ছাড়া কোথাও কোনো বাংলাদেশি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি। এছাড়া এই ভাইরাসের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের চীনা প্রজেক্ট ও ব্যবসা-বাণিজ্যে প্রভাব পড়বে না।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 162 People

সম্পর্কিত পোস্ট