চট্টগ্রাম বুধবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

১৭ নভেম্বর, ২০২০ | ৩:৫৭ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

খাবার গ্রহণে মহানবী (সা.)-এর সুন্নত

খাওয়ার শুরুতে ‘বিসমিল্লাহ’ বলা : রাসুল (সা.) খাওয়ার প্রারম্ভে সব সময় ‘বিসমিল্লাহ’ বলে খাওয়া শুরু করতেন। এবং তার সঙ্গীদের ‘বিসমিল্লাহ’ বলতে উৎসাহিত করতেন। রাসুল (সা.) বলেন, ‘আল্লাহর নাম নিয়ে ও ডান হাত দ্বারা খানা খাও। এবং তোমার দিক হতে খাও।’ (বুখারি, হাদিস : ৫১৬৭; তিরমিজি, হাদিস : ১৯১৩)

আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, ‘যখন তোমরা খানা খেতে শুরু করো, তখন আল্লাহর নাম স্মরণ করো। আর যদি আল্লাহর নাম স্মরণ করতে ভুলে যাও, তাহলে বলো, ‘বিসমিল্লাহি আওওয়ালাহু ওয়া আখিরাহ।’ (রিয়াজুস সলেহিন : ৭২৯)

ডান হাত দ্বারা খাবার খাওয়া : রাসুল (সা.) আজীবন ডান হাত দিয়ে খাবার খেয়েছেন এবং বাঁ হাত দিয়ে খাবার খেতে মানুষকে নিষেধ করেছেন। আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বলেন, ‘তোমরা বাঁ হাত দ্বারা খাবার খেয়ো না ও পান কোরো না। কেননা শয়তান বাঁ হাতে খায় ও পান করে।’ (তিরমিজি, হাদিস : ১৯১২)

আঙুল চেটে খাওয়া : আঙুল চেটে খাওয়ার ফলে বরকতলাভের বেশি সম্ভাবনা থাকে। কারণ খাবারের বরকত কোথায় রয়েছে মানুষ তা জানে না। রাসুল (সা.) বলেন, ‘তোমরা যখন খাবার গ্রহণ করো তখন আঙুল চেটে খাও। কেননা বরকত কোথায় রয়েছে তা তোমরা জানো না।’ (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ১৯১৪)

হেলান দিয়ে না খাওয়া : কোনো কিছুর ওপর হেলান দিয়ে খাওয়া নিষিদ্ধ। হেলান দিয়ে খাওয়ার ফলে পেট বড় হয়ে যায়। দ্বিতীয়ত, এটি দাম্ভিকতার আলামত। আবু হুজাইফা (রা.) থেকে বর্ণিত, আমি রাসুল (সা.)-এর দরবারে ছিলাম। তিনি এক ব্যক্তিকে বলেন, আমি হেলান দেওয়া অবস্থায় কোনো কিছু ভক্ষণ করি না।’ (বুখারি, হাদিস : ৫১৯০; তিরমিজি, হাদিস : ১৯৮৬)

খাবারের দোষত্রুটি না ধরা : রাসুল (সা.) কখনো খাবারের দোষ ধরতেন না। আবু হুরায়রা (রা.) বলেন, রাসুল (সা.) কখনো খাবারের দোষত্রুটি ধরতেন না। তার পছন্দ হলে খেতেন আর অপছন্দ হলে পরিত্যাগ করতেন। (বুখারি, হাদিস : ৫১৯৮, ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৩৩৮২)

খাবারে ফুঁ না দেওয়া : খাবারের মধ্যে ফুঁ দেওয়া অনেক রোগ সৃষ্টির কারণ। রাসুল (সা.) খাবারে ফুঁ দিতে নিষেধ করেন। ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) কখনো খাবারে ফুঁ দিতেন না। ফুঁ দিতেন না কোনো কিছু পানকালেও। (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৩৪১৩)

খাবারের শেষে দোয়া পড়া : খাবার খাওয়া শেষ হলে আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করা অপরিহার্য। রাসুল (সা.) খাবার শেষে আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জানাতেন। দোয়া পড়তেন। আবু উমামা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) খাবার শেষ করে বলতেন, ‘আলহামদু লিল্লাহি হামদান কাসিরান ত্বয়্যিবান মুবারাকান গাইরা মাকফিয়্যিন ওয়ালা মুয়াদ্দায়িন ওয়ালা মুসতাগনান আনহু রাব্বানা।’ (ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৩২৮৪) সূত্র: দেশ রূপান্তর

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 95 People

সম্পর্কিত পোস্ট