চট্টগ্রাম রবিবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২০

১০ অক্টোবর, ২০২০ | ৩:১২ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ডায়রিয়া সারায় কাঁচা চালতার রস

কাঁচা অবস্থায় বটিতে কুচি কুচি করে কেটে লবণ-মরিচ মেখে ভর্তা বানিয়ে খেতে কম বেশি সবারই পছন্দ। আবার আগুনে পুড়ে শুকনো মরিচ দিয়ে ভর্তার স্বাদ বলার অপেক্ষা রাখে না। টক ফল চালতার শুধু ভর্তাই নয়, আচার, চাটনি, টক ডাল অনেকেরই প্রিয় খাবার। তবে চালতা ফল হিসেবে অন্যান্য ফলের চেয়ে অবহেলিত। এ ফলটি গ্রামে-গঞ্জে খুব বেশি দেখা যায়। যেখানে সেখানে দেখা যাওয়ার কারণে এর তেমন একটা কদর নেই। গাছের নিচেই পড়ে পচে থাকতে দেখা যায়। কিন্তু এমন অবহেলিত ফলে মানব শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় অনেক পুষ্টিগুণ রয়েছে। যা মানব শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। চালতা পেটের নানা অসুখ প্রতিরোধে সহায়তা করে। ডায়রিয়া সারাতে কাঁচা চালতার রসের তুলনা নেই। রক্তের খারাপ কোলেস্টেরল ও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে। ঠাণ্ডা ও কাশির জন্য পাকা চালতার রসের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে খেলে সাথে সাথেই উপকার পাওয়া যায়। কিডনির নানা রোগ প্রতিরোধেও সহায়তা করে। প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-সি থাকায় এই ফল স্কার্ভি ও লিভারের রোগ প্রতিরোধ করে। নিয়মিত এই ফলটি খেলে হার্টের বিভিন্ন অসুখের ঝুঁকি কমে। এই ফলে রয়েছে এন্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান যা মুখের ভেতরে বাস করা ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে। ফলে মুখের বাজে গন্ধ দূর হয়। এই ফলটি খেলে নারীর তলপেটের ব্যথা মুহূর্তেই কমে যায়। চালতার প্রকৃত ফল বৃতির আড়ালে লুকিয়ে থাকে। এ ফলে রয়েছে ক্যালসিয়াম, শর্করা, বিটা ক্যারোটিন, ভিটামিন-বি, ভিটামিন-সি, থায়ামিন, রিবোফ্লোবিন ও আমিষের মতো নানা ধরনের স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
  • 133
    Shares
The Post Viewed By: 162 People