চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

১ জুলাই, ২০২০ | ২:২৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাড়ে ২৫ হাজার কোটি টাকার অর্ডার বাতিল

মহামারী করোনার কারণে সাড়ে ২৫ হাজার কোটি টাকার সমমূল্যের (তিন বিলিয়ন ডলারের বেশি)  তৈরি পোশাক রপ্তানির অর্ডার বাতিল হয়েছে। এ অবস্থায় কর্মীদের তিন মাসের বেতন-ভাতা দেয়ার জন্য সহজ শর্তে আরও ঋণ সহায়তা চেয়েছে তৈরি পোশাক রপ্তানিকারকদের দুই সংগঠন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের কাছে পাঠানো সাম্প্রতিক চিঠিতে ক্ষতির এই তথ্য জানিয়ে ঋণের অনুরোধ জানায় দুই সংগঠনের প্রেসিডেন্ট।

চিঠিতে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ সভাপতি বলেছেন, গার্মেন্টস মালিকরা শিল্পের ভবিষ্যৎ নিয়ে গভীর উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেন। অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে জুলাই, আগস্ট, সেপ্টেম্বরের বেতন পরিশোধ করা সম্ভব হবে না। এমন পরিস্থিতিতে পোশাকশিল্পকে সহায়তার জন্য তিন মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধে আগের মতো সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করা প্রয়োজন। মালিকরা বলছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে অধিকাংশ কারখানার মজুরি দেওয়ার সক্ষমতা নেই।

প্রসঙ্গতঃ করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২৫ মার্চ  জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে রপ্তানিমুখী শিল্প-প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের মজুরি দেওয়ার জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন। এর প্রেক্ষিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বাংলাদেশ ব্যাংক একটি নীতিমালা জারি করে। সেখানে বলা হয়, সচল কারখানা শ্রমিকের তিন মাসের (এপ্রিল, মে ও জুন) মজুরি দিতে তহবিল থেকে ঋণ পাবে। ঋণের জন্য কোনো সুদ নেই, তবে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো ২ শতাংশ পর্যন্ত মাসুল নিতে পারবে। ব্যাংকগুলো ঋণের টাকা বাংলাদেশ ব্যাংককে দুই বছরের মধ্যে শোধ করবে।

আবারও তিন মাসের মজুরি দেওয়ার জন্য অর্থ বরাদ্দ চাওয়ার পেছনে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ সভাপতি যুক্তি দিয়ে বলেছেন, প্রতিনিয়ত বিদেশি ক্রেতা প্রতিষ্ঠান অর্ডার স্থগিত বা বাতিল করছে। এখন পর্যন্ত ৩০০ কোটি ডলারের রপ্তানি অর্ডার বাতিল বা স্থগিত হয়েছে, যা প্রতিদিনই বাড়ছে।চলমান অর্ডারের টাকা পেতেও ছয় থেকে আট মাস সময় লেগে যেতে পারে। তাছাড়া বর্তমানে যে ক্রয়াদেশ পাওয়া যাচ্ছে, তা সম্পন্ন করতে কারখানাগুলো চালু রাখতে হবে। এ জন্য শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা সময়মতো পরিশোধ করে কাজে নিয়োজিত রাখা প্রয়োজন; কিন্তু ক্রেতাদের ক্রয়াদেশ বাতিল বা স্থগিত ও নির্দিষ্ট সময়ে পাওনা না পাওয়ার কারণে পোশাক খাত নিদারুণ আর্থিক সংকটের মধ্যে রয়েছে।

পূর্বকোণ/ এস

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 285 People

সম্পর্কিত পোস্ট