চট্টগ্রাম বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

২ নভেম্বর, ২০২০ | ১:৫৬ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক

গায়ক পারভেজের বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ

দেশের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী পারভেজ সাজ্জাদের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে গান ইউটিউবে আপলোডের অভিযোগে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন সিজি ওয়ার্ল্ড ফিল্মস নামে একটি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী মঈনুল ইসলাম।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে, সিজি ওয়ার্ল্ড প্রযোজিত পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘সাত রঙের ভালোবাসা’-তে পারিশ্রমিকের বিনিময়ে কয়েকটি গান গাওয়ার সুযোগ দেন প্রযোজক মঈনুল ইসলাম। যার মধ্যে একটি গানের শিরোনাম ‘নেশা নেশা’। এটি লিখেছেন প্রদীস সাহা এবং সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন আব্দুল করিম সিরাজী (ডিজে আকস)।

এ গানটিতে পারভেজের সঙ্গে কণ্ঠ দেন ভারতের সংগীতশিল্পী নেহা কাক্কার। এ গানের সম্পূর্ণ খরচ বহন করে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। কিন্তু এই দুজন প্রযোজকের বিনা অনুমতিতে গানটি ইউটিউবে আপলোড করা হয়।। ফলে ছবির প্রযোজক আর্থিকভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন এবং এর পরিমাণ আনুমানিক দেড় কোটি টাকা।

১৯ সেপ্টেম্বর প্রেরণ করা নোটিশে আরও বলা হয়েছে,  নোটিশ প্রদানের পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে পারভেজ ও ডিজে আকসের প্রতি আর্থিক ক্ষতিপূরণ প্রদান ও ইউটিউব থেকে গানটি অপসারণ করার জন্য বলা হয়েছে। এর ব্যত্যয় ঘটলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথাও নোটিশে উল্লেখ রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে প্রযোজক মঈনুল ইসলাম জানান, ‘বেশ কিছুদিন আগে পত্রিকার মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন পারভেজ গানটি ইউটিউবে আপলোডের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। জেনে কিছুটা অবাক হোন তিনি। এরপর প্রযোজক তাকে কাজটি না করার জন্য মৌখিকভাবে নিষেধ করার পরেও তিনি কাজটি করেছেন। এটি পুরোপুরি অন্যায়। একজনের সম্পদ এভাবে অন্যজন অবৈধভাবে দখল করতে পারেন না। অন্তত শিল্প-সংস্কৃতির মানুষের কাছে এটা আশা করা যায় না। তিনি অন্যায় করেছেন, তাই আইনি নোটিশ দেয়া হয়েছে। নোটিশ অনুযায়ী কাজ না করলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেও হুশিয়ারি করেন তিনি।

এদিকে নোটিশের ব্যাপারে গায়ক পারভেজ জানান, নোটিশটি পেয়েছেন তিনি। যেহেতু এটা আইনি বিষয়, আইনি ভাষায়ই তিনি এর জবাব দেব। যে অভিযোগ তার নামে আনা হয়েছে এটা পুরোটাই ভিত্তিহীন।তিনি এ নামের কোনো গান কোথাও আপলোড করেন নি বলে জানান। তাছাড়া যে সিনেমার কথা বলে হচ্ছে তিনি এ নামের কোনো সিনেমায় কাজ করেন নি বলে অস্বীকার করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সিজি ওয়ার্ল্ডের স্বত্বাধিকারী মঈনুল ইসলামের কাছে গানটির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপত্র রয়েছে। স্ট্যাম্পে লিখিত অঙ্গীকারনামার মাধ্যমে গীতিকার এবং সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক এ গানের শতভাগ মালিকানা ছবির প্রযোজককে হস্তান্তর করেছেন, যেখানে সাক্ষী হিসেবে কণ্ঠশিল্পী পারভেজ সাজ্জাদও স্বাক্ষর করেছেন।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 104 People

সম্পর্কিত পোস্ট