চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

হ্যাঁ আমি বিবাহিত, আমার সন্তান রয়েছে : সাইমন

২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৫:১৩ পূর্বাহ্ণ

পূর্বকোণ ডেস্ক

হ্যাঁ আমি বিবাহিত, আমার সন্তান রয়েছে : সাইমন

বিবাহিত পোড়ামন খ্যাত চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক! এবং তার রয়েছে দুটি পুত্র সন্তানও। যার মধ্যে বড় ছেলের বয়স আবার ৪ বছর ৪ মাস। যারা জানতেন সাইমন অবিবাহিত তারা এ খবরে ‘আক্কেল গুড়–ম’ বনে গেলেও ঘটনা কিন্তু সত্য। তবে এতদিন হয়তো অজ্ঞাত কোনো কারণে বিষয়টি তিনি সামনে আনেননি। কিন্তু সন্তানের সাফল্যের কথা কি আর লুকানো যায়? যখন তিনি এটা সামনে আনতে গেলেন তখন চলে আসলো বিয়ের বিষয়টিও। আর এভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজেই নিজের বিয়ে ও সন্তানের খবর

ভক্তদের জানিয়ে দিলেন চিত্রনায়ক সাইমন। ফেসবুকে সাইমন সাদিক লিখেছেন, বাবা-মা পৃথিবীর সবচেয়ে অমূল্য রতন। যা কিনা অনেকের মতো আমিও ভাষায় প্রকাশ করতে পারি না! আমার আব্বুকে কখনো বলিনি তুমি আমাদের কতো বড় শক্তি, ছায়া, ভালোবাসা, আরো কতো কি যে আমরা উপলব্ধি করি, তুমি আছো বলে। কোনো দিন আপনাদেরও বলিনি আমিও বাবা হয়েছি। আমার বড় ধন, আমার জীবন, আমার সন্তান, সাদিক মো. সাইয়্যান (৪ বছর ৪ মাস) আমার বড় ছেলে। ও তার বিদ্যালয় জীবনের প্রথম পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে। একজন বাবা হিসেবে এটাই আমার সেরা মুহূর্ত। আমার টুকটুকের জন্য দোয়া করবেন যেন মানুষের মতো মানুষ হয়। বাংলাদেশকে যেন অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যায়।

এতোদিন সন্তানকে প্রকাশ্যকে না আনার জন্যও ফেসবুক স্ট্যাটাসে ভক্তদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন পোড়ামন খ্যাত এই চিত্রনায়ক। তিনি বলেন, আমাকে ক্ষমা করবেন ওকে এতো দিন পর আপনাদের সামনে আনার জন্য।
এ বিষয়ে জানতে সাইমন সাদিকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফেসবুক স্ট্যাটাসের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হ্যাঁ, আমি বিয়ে করেছি। আমার দুই পুত্র সন্তানও আছে।

দীর্ঘ ৯ বছর প্রেম করার পর দুই পরিবারের সম্মতিতে ২০১৪ সালে ঢাকার মেয়ে দীপাকে বিয়ে করেন সাইমন। সাইমন-দীপা দম্পতির রয়েছে দুই ছেলে সন্তান। বড় ছেলের নাম সাদিক মো. সাইয়্যান। তার বয়স চার বছর চার মাস। সে এখন প্রথম শ্রেণিতে পড়াশোনা করেছেন। আর ছোট ছেলের নাম সাদিক মো. সাইয়্যার। তার বয়স পাঁচ মাস।

সাইমন সাদিক বলেন, আমার বিয়ের বিষয়টা অনেকেই জানতো না, শুধু কাছের কয়েকজন ছাড়া। ভালোবেসে বিয়ে করেছি। দীপার সঙ্গে আমার প্রেম ছিল নয় বছরের। দুজন দুজনকে খুব ভালবাসি আর সেই ভালবাসাকে পূর্ণতা দিতেই আমরা বিয়ে করি। কিন্তু এই বিষয়টা এতদিন প্রকাশ্যে আনিনি। আজ ছেলের আনন্দে বিষয়টি সবার সামনে নিয়ে এসেছি।
ছেলেকে নিয়ে তিনি বলেন, বাবা হওয়ার অনুভূতি আসলে ভাষায় প্রকাশ করার মত না। আমার কাছে আমার ছেলেই সবকিছু। আমি ওর জন্য সবার কাছে দোয়া চাই। আজকে আমার বড় ছেলে তার জীবনের প্রথম পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে। এটা আমার জন্য অতি আনন্দের। আর তাই আজকে এই খুশিতে আত্মহারা হয়ে ছেলের ছবি প্রকাশ করি।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 306 People

সম্পর্কিত পোস্ট