চট্টগ্রাম বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

৭ মে, ২০১৯ | ১:১২ পূর্বাহ্ণ

জীবন কথা শহীদ সাবের

(১৯৩০-১৯৭১) : জন্ম ঈদগাঁও গ্রাম, কক্সবাজার ১৮ ডিসেম্বর ১৯৩০। সাহিত্যিক ও সাংবাদিক। ১৯৪৯-এ চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে মেট্রিক পাস। সেই সময় থেকেই বামপন্থি রাজনীতিতে অংশগ্রহণ এবং ছাত্র ফেডারেশনের সক্রিয় কর্মী। তখন মুসলিম লীগ সরকারের দোর্দ- প্রতাপ। ব্যাপক নির্যাতন এবং দমন নীতির মাধ্যমে শুরু হয় গণতান্ত্রিক আন্দোলনের কণ্ঠরোধের প্রচেষ্টা। ১৯৫০-এর ফেব্রুয়ারি মাসে প্রগতিশীল রাজনীতির একনিষ্ঠ কর্মী শহীদ সাবের গ্রেফতার হন। বছর কয়েক বিনাবিচারে আটক থাকার পর ১৯৫৪-তে মুক্তিলাভ। ১৯৫৫-তে জগন্নাথ কলেজ থেকে বি এ পাস। ফেডারেল ইনফরমেশন সার্ভিস পরীক্ষা দিয়ে প্রথম হয়েছিলেন। কিন্তু রাজনৈতিক বন্দী থাকার অপরাধে চাকরিতে নিয়োগপত্র পাননি।
কিছুদিন ওয়েস্ট অ্যান্ড হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষক হিসেবে চাকরি করার পর দৈনিক সংবাদ এর সহকারী সম্পাদক হিসেবে যোগদান। তাঁর কর্মজীবন মাত্র ১৯৫৫ থেকে ১৯৫৮ পর্যন্ত। ১৯৫৮-এর শেষের দিকে শুরু হয় মানসিক বৈকল্য। ১৯৫৮ থেকে ১৯৭১ পর্যন্ত বছরগুলো মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন, কিন্তু বদ্ধ পাগলের পাগলামি ছিল না। এ অবস্থাতেও কবিতার অনেক উজ্জ্বল পঙ্ক্তি রচনা করেছিলেন।
‘সংবাদ’ অফিস ছিল তার প্রিয় জায়গা। চট্টগ্রাম জেলে বসে লেখেন তাঁর বিখ্যাত রচনা ‘আরেক দুনিয়া থেকে’। এটি কলকাতার ‘নতুন সাহিত্য’ পত্রিকায় প্রকাশিত। মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় এ লেখা পড়ে মুগ্ধ হয়ে এক দীর্ঘ চিঠি লিখেছিলেন ‘নতুন সাহিত্য’ পত্রিকার সম্পাদককে এবং সঙ্গে সঙ্গে এ প্রতিভাবান তরুণ সাহিত্যিকের সাহিত্যজগতে শুভ আগমনকে স্বাগত জানিয়েছিলেন। এরপর থেকেই কবি এবং গাল্পিক শহীদ সাবেরের যাত্রা শুরু। প্রকাশিত গ্রন্থ : ‘এক টুকরা মেঘ (১৯৫৫)। শিশু সাহিত্য : ক্ষুদে গোয়েন্দার অভিযান (১৯৫৮)। অসংখ্য কবিতা লিখেছেন কিন্তু বই হয়নি। দু’টি অনুবাদ গ্রন্থ আছে। ছোটগল্পের জন্য ১৯৭২-এ বাংলা একাডেমী সাহিত্য পুরস্কার (মরণোত্তর) লাভ। মৃত্যু ১৯৭১-এর ৩১ মার্চ ‘সংবাদ’ অফিসে ঘুমিয়ে থাকার সময়ে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ‘সংবাদ’ অফিস পুড়িয়ে দিলে সেই আগুনে পুড়ে মৃত্যুবরণ।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 430 People

সম্পর্কিত পোস্ট