চট্টগ্রাম বুধবার, ২৭ মে, ২০২০

উন্নয়ন-অগ্রগতির ধারক ও বাহক দৈনিক পূর্বকোণ

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ

লায়ন এ. কে. জাহেদ চৌধুরী

উন্নয়ন-অগ্রগতির ধারক ও বাহক দৈনিক পূর্বকোণ

সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ স্বরূপ। একটি জাতি বা রাষ্ট্রের সাঠিক পথনির্দেশক হিসাবে সংবাদপত্র অনন্য ভূমিকা রাখতে পারে। শুদ্ধ, সৃষ্টিশীল ও জাতীয়তাবোধসম্পন্ন প্রজন্ম তৈরিতেও সংবাদপত্রের রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। জাতির ক্রান্তিকালে সংবাদপত্র আলোর দিশারী হয়ে কাজ করে। দীর্ঘ ৩৪ বছর ধরে দৈনিক পূর্বকোণ উপরোল্লিখিত বিষয়গুলোর সবগুলোকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিরামহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছে। একটি স্থানীয় পত্রিকা হিসাবে পূর্বকোণের জন্ম হলেও জাতীয় পত্রিকার মান স্পর্শ করতে পেরেছে বলে সংবাদপত্র বোদ্ধারা মনে করেন।
চট্টলার কৃতিপুরুষ আলহাজ¦ মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী ১৯৮৬ সালে দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকাটি সৃষ্টির মাধ্যমে চট্টগ্রামের পাঠকদের একটি আধুনিক মানের পত্রিকা উপহার দেন। সার্থকভাবে পাঠকসমাজের চাহিদা পূরণ করে পত্রিকাটি ৩৫তমবর্ষে পদার্পণ করেছে, যা সত্যিই একটি উল্লেখযোগ্য বিষয়। কেননা জাতীয় ও আঞ্চলিক ভাবে শতশত পত্রিকার জন্ম হলেও এ কঠিন পথচলায় অনেক পত্রিকা স্মৃতির অতল গহ্বরে হারিয়ে গেছে। কিন্তু দৈনিক পূর্বকোণ শুরু থেকে আজ অবধি সর্বাধিক পাঠকপ্রিয় পত্রিকা হিসাবে পথচলা অটুট রাখতে পেরেছে। এজন্য দৈনিক পূর্বকোণের পরিচালনা পরিষদ, সম্পাদকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানাতেই হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে পত্রিকাটি চট্টগ্রামের উন্নয়নে বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছে এবং আজ অবধি তা অব্যাহত রেখেছে। দৈনিক পূর্বকোণের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান প্রয়াত আলহাজ¦ মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী চট্টগ্রামে ভেটেরেনারি বিশ^বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। তাঁর সুচিন্তিত ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে বাংলাদেশে ভেটেরেনারি শিক্ষা ও গবেষণায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। দৈনিক পূর্বকোণ-এ লেখালেখি ও সংবাদ প্রচারের মাধ্যমে এই প্রতিষ্ঠান সৃষ্টিতে তিনি সরকারী মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পেরেছিলেন। পোল্ট্রি ও ডেইরী শিল্পের উন্নয়নে পত্রিকাটির অবদান স্মরণযোগ্য। চট্টগ্রামে একাধিক পত্রিকার উপস্থিতি থাকলেও চট্টগ্রাম উন্নয়ন আন্দোলনে দৈনিক পূর্বকোণের ভূমিকা সবসময় অগ্রগণ্য। বিশেষ করে বিভিন্ন দিক দিয়ে চট্টগ্রামের পিছিয়ে পড়ার কারণগুলো সবিস্তারে তুলে ধরে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণপূর্বক এগুলো সমাধানে পত্রিকাটি যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করেছে এবং বর্তমানেও তা অব্যাহত রেখেছে। মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত চট্টগ্রাম বিনির্মাণে লক্ষণীয় অবদান দৈনিক পূর্বকোণ রেখে যাচ্ছে। বিশেষ করে বিভিন্ন মাদকের আস্তানা সম্পর্কিত সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করার মাধ্যমে সাহসী পদক্ষেপ গ্রহণ করে মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণে পত্রিকাটির সুদৃঢ় অবস্থান গ্রহণ করেছে। অন্যান্য পত্রিকাগুলোও দৈনিক পূর্বকোণের পথ অনুসরণ করলে অচিরেই সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভবপর হবে। বিভিন্ন ইস্যুতে দৈনিক পূর্বকোণ‘ গোলটেবিল বৈঠক’ আয়োজনের মাধ্যমে ইস্যুভিত্তিক সমস্যা চিহ্নিতকরণপূর্বক সমাধানে ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। সাহিত্য, সংস্কৃতি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক পাতাগুলো এই পত্রিকার অনন্য সংযোজন। সর্বোপরী সময়ের চাহিদা পূরণে দৈনিক পূর্বকোণ শতশত বর্ষ ধরে অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখুক পঁয়ত্রিশতম বর্ষে তাইই কাম্য। দুঃসাহসিক অগ্রযাত্রায় পাঠকসমাজ পূর্বকোণের সাথে আছে ও থাকবে।

লায়ন এ. কে. জাহেদ চৌধুরী কলামিস্ট ও প্রাবন্ধিক।

The Post Viewed By: 57 People

সম্পর্কিত পোস্ট