চট্টগ্রাম বুধবার, ২৭ মে, ২০২০

গণমানুষের প্রিয় পত্রিকা দৈনিক পূর্বকোণ

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ

কাজী আবু মোহাম্মদ খালেদ নিজাম

গণমানুষের প্রিয় পত্রিকা দৈনিক পূর্বকোণ

বাংলাদেশে প্রকাশিত আঞ্চলিক দৈনিকগুলোর মধ্যে সেরা, বহুল প্রচারিত ও ঐতিহ্যবাহি একটি পত্রিকা দৈনিক পূর্বকোণ। ১৯৮৬ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি এই পত্রিকাটির যাত্রা শুরু হয়। সমৃদ্ধ চট্টগ্রাম গড়ার অংগীকার নিয়ে পত্রিকাটি প্রতিষ্ঠা করেন জনাব মরহুম মোহাম্মদ ইউসুফ চৌধুরী। শুরু থেকে প্রতিনিয়ত ‘ছাপা সংষ্করণ’ প্রকাশিত হয়ে আসলেও বিগত কয়েক বছর ধরে এর অনলাইন/ইন্টারনেট সংষ্করণও প্রকাশিত হচ্ছে নিয়মিত।
আমি নিজেও এই পত্রিকার একজন পাঠক। আমি দেশের বিভিন্ন জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকায় লেখালেখি করার চেষ্টা করি এবং বর্তমানেও তা অব্যাহত আছে।

আমার প্রথম লেখা প্রকাশিত হয় প্রিয় পূর্বকোণে। যেদিন লেখা ছাপা হয়েছিল সেদিন কী যে আনন্দ পেয়েছিলাম তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবোনা। একে ওকে দেখাচ্ছি। সকলে নানা প্রশংসায় ভাসাচ্ছেন। এজন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ পূর্বকোণ পরিবারের প্রতি। বর্তমানেও প্রিয় পত্রিকা ‘দৈনিক পূর্বকোণ’ এ আমার লেখালেখি অব্যাহত রয়েছে। বিগত দিনগুলোর জরীপে ঢাকার বাইরে প্রচার সংখ্যায় আঞ্চলিক পত্রিকাগুলোর মধ্যে শীর্ষে ‘দৈনিক পূর্বকোণ’। এখন অন্য আরো দৈনিক প্রকাশিত হলেও ‘পূর্বকোণ’ তার নিজস্ব মান ধরে রাখতে পারছে। পাঠকের কাছে সমান জনপ্রিয়। পত্রিকার ফিচার বিভাগ, সম্পাদকীয় নানা কলাম, শিক্ষাপাতা, রমণীয়, কলরোল, টুকিটাকি, বিশেষ সংখ্যাসহ সময়ে সময়ে প্রকাশিত বিভিন্ন সংখ্যা পাঠকের মন জয় করেছে। বিশেষ করে সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে ‘পূর্বকোণ’ তার দক্ষতা ও নিরপেক্ষতা বজায় রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে থাকে। সুদীর্ঘ সময় ধরে চট্টগ্রাম বিভাগে ‘দৈনিক পূর্বকোণ’ এক বিশেষ স্থান দখল করে আছে। মানুষের কাছে পত্রিকাটি সম্পর্কে ইতিবাচক ও ভালো ধারণা রয়েছে। বলা চলে চট্টগ্রামের গণমানুষের প্রিয় পত্রিকা ‘দৈনিক পূর্বকোণ’।

গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের খবরাখবর গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশের কারণে সাধারণ মানুষ পত্রিকাটির ভক্ত। ছাপার মান ও নির্ভুল বানানক্রম প্রশংসার দাবী রাখে। পত্রিকায় চোখ বুলালে তা অনায়াসেই ধরা পড়ে। ঝকঝকে ছবি ও তথ্যনির্ভর সংবাদ প্রকাশের জন্য দৈনিক পূর্বকোণকে ধন্যবাদ দিতেই হয়। ‘দৈনিক পূর্বকোণ’ ইতিমধ্যে দক্ষতা ও সক্ষমতার প্রমাণ দিয়েছে। বিশাল কর্মীবাহিনী সুনিপুণ ও দক্ষ কাজের মাধ্যমে পত্রিকাটিকে পাঠকের কাছে গ্রহণযোগ্য করে তুলেছে। যে কারণে অগণিত পাঠকের হাতে প্রতিদিন ভোর হতেই পৌঁেেছ যাচ্ছে দৈনিকটি। গণমানুষের কাছে আরো নিবিড়ভাবে সম্পর্ক তৈরিতে পত্রিকাটির প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা জরুরী।

নিরপেক্ষ ও তথ্যবহুল সংবাদ পরিবেশন পত্রিকাটির অন্য আরেকটি বৈশিষ্ট্য। গ্রাম ও শহরের সংবাদকে সমান গুরুত্ব দিয়ে ছাপানো হয়। আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সংবাদ প্রকাশিত হয় নিয়মিত। দেশবিদেশের খেলাধুলার সংবাদও নিয়মিত প্রকাশিত হয়ে থাকে। এসব কারণে পাঠকের কাছে দৈনিক পূর্বকোণ প্রিয়। সব খবর একই মলাটে থাকায় তা বহুগুণে আস্থা অর্জনে সক্ষম হচ্ছে।

পাঠকের কাছে পত্রিকাকে আরো গ্রহণযোগ্য করতে নিত্যনতুন কৌশল এবং বিদ্যমান নিরপেক্ষতাকে আরো শক্তিশালী করে তুলতে হবে। নানা চাপ ও ভয়ভীতিকে জয় করে এগিয়ে যেতে হবে। আর এটি করতে পারলে সর্বসাধারণের কাছে পত্রিকার গ্রহণযোগ্যতা দিন দিন বাড়তে থাকবে। সফলতার ধারাবাহিকতা রক্ষায় বিদ্যমান প্রকাশনাকে এগিয়ে নিতে হবে। ‘নির্ভুল তথ্য ও স্বাধীন মতামত প্রকাশের ক্ষেত্র হিসেবে দৈনিক পূর্বকোণ’ বেঁচে থাকুক হাজার বছর – জন্মদিনে এমন প্রত্যাশা করি। পাঠকের চাহিদাকে গুরুত্ব দিয়ে পথ চললে পূর্বকোণ অনেক দূর এগিয়ে যাবে। পরিশেষে, পাঠকের হৃদয় জয় করে এগিয়ে চলা দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকার প্রকাশনা অব্যাহত থাকুক-এই কামনা করছি।
শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন পূর্বকোণ পরিবারকে। বেঁচে থাকুক বহুদিন প্রিয় পত্রিকা পূর্বকোণ।

কাজী আবু মোহাম্মদ খালেদ নিজাম
শিক্ষক ও প্রাবন্ধিক

The Post Viewed By: 89 People

সম্পর্কিত পোস্ট