চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০

সর্বশেষ:

সিআরবির সাত রাস্তা মোড়েই বসবে বঙ্গবন্ধুর সর্ববৃহৎ ম্যুরাল

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ | ৩:১৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফজলে করিমের নানা প্রশ্নে নিরুত্তর কর্মকর্তারা

সিআরবির সাত রাস্তা মোড়েই বসবে বঙ্গবন্ধুর সর্ববৃহৎ ম্যুরাল

নগরীর সিআরবির সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে বসানো হবে বঙ্গবন্ধুর সর্ববৃহৎ ম্যুরাল। সিআরবির সাত রাস্তার মোড়েই বাংলাদেশ রেলওয়ের নিজস্ব অর্থায়নেই এ মুর‌্যালটি স্থাপন হবে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এ ম্যুরালটি স্থাপন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ম্যুরালের ডিজাইনও নির্ধারণ করা হয়েছে। শীঘ্রই মুর‌্যাল স্থাপনের কাজ শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি।

গতকাল সোমবার দুপুরে ম্যুরালটি স্থাপনের জায়গা পরিদর্শনে এসে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি বলেন, ‘আগেই রেলওয়ের অর্থায়নে বঙ্গবন্ধুর সর্ববৃহৎ ম্যুরাল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিআরবির সাত রাস্তা মোড়েই ম্যুরালটি স্থাপন করা হবে। জায়গাটি পরিদর্শন করা হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব এর কাজ শেষ করা হবে। সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্যই এখানে বসানো হচ্ছে’।

ইতোমধ্যে আমরা বেশ কয়েকটি ডিজাইন দেখেছি উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ভাষণ দেয়ার একটি ম্যুরাল পছন্দ করা হয়েছে। সিআরবি এলাকাটি মানুষের সৌন্দর্য উপভোগের স্থান হিসেবে রূপ নিয়েছে। সেটি ধরে রাখতেই এবং এখানকার সৌন্দর্য আরও বৃদ্ধি করতেই এ ম্যুরালটি স্থাপন করা হচ্ছে। এখানে অনেক বিদেশিরাও ঘুরতে আসে। এ স্থানটি এমনভাবে তৈরি করতে চাই, যা মিনি সিঙ্গাপুরের মতো হবে। মানুষ আসবে, দেখবে তা উপভোগ করবে’।
এর আগে গত রবিবার রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির অষ্টম বৈঠকে সিআরবিতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনের সিন্ধান্ত নেয়া হয়। একই সাথে ট্রেন দুর্ঘটনা রোধে লোকোমোটিভ সিসি ক্যামেরা স্থাপন করার সিদ্ধান্তও নেয় কমিটি। বৈঠকের একদিনের মাথায় ম্যুারালটি স্থাপনের জায়গা চিহ্নিত করতেই কমিটির সভাপতি ফজলে করিম চৌধুরী এমপি গতকাল সোমবার চট্টগ্রামে আসেন।
পরিদর্শনের সময় রেলওয়ের (পূর্ব) মহাব্যবস্থাপক (জিএম) নাসির উদ্দিন আহমেদ, প্রধান প্রকৌশলী সবুক্তগীন, প্রধান ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা ইশরাত রেজা, আরএনবির চীফ কমান্ডেট মো. ইকবাল হোসেনসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

ফজলে করিমের নানা প্রশ্নে নিরুত্তর কর্মকর্তাগণ :

সিআরবি এলাকায় এবং রেলওয়ের নানা অব্যবস্থাপনা দেখে ক্ষোভ ঝাড়েন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। এসময় রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপকসহ (জিএম) বিভিন্ন বিভাগের উধ্বর্তন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকলেও নিরুত্তরই ছিলেন তারা। সিআরবি এলাকায় ময়লার স্তুপ, যত্রতত্র ময়লা ফেলা, অপরিষ্কার ও দখলসহ বিভিন্ন বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।
রেলওয়ের জিএমকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, পাহাড়ের ওপর কর্মকর্তারা বসবাস করেন। কিন্তু ময়লা ফেলেন পাহাড়ের মধ্যে। যারা এখানে ময়লা ফেলছে, তাদের নাম দেন। প্রয়োজনে ব্যবস্থা নেব। সৌন্দর্য নষ্ট করে তাদের এখানে থাকার অধিকার নেই।

তিনি বলেন, পাশেই একটি আন্তর্জাতিকমানের হোটেল রেডিসন ব্লু। এখানে দেশি বিদেশি অনেকেই আসেন। সকাল-বিকাল হলে তারা এখানে হাঁটতে হাঁটতে চলে আসেন। এসব ময়লা দেখলে তারা কি মনে করবে। আমরা দিনদিন সিআরবিকে সিঙ্গাপুরের আদলতে তৈরি করতে চাই। যত টাকাই লাগুক, এটি মিনি সিঙ্গাপুরের আদৌলে তৈরি করা হবে। আর আপনারা না পালে আমাকে বলুন, আমি স্পন্সর নিয়ে কাজ করবো’।

সিআরবির এলাকার গাছে গাছে বিভিন্ন দিবস ও অনুষ্ঠানকেন্দ্রিক রাজনৈতিক ব্যক্তিদের ব্যানার দেখে, এত ব্যানার গাছে কেন জানতে চান ফজলে করিম চৌধুরী। একই সাথে সব ব্যানার সরিয়ে নেয়ার কথা বলেন। তিনি বলেন, এসব ব্যানার যার হোক, তা অনুষ্ঠান শেষে তা সঙ্গে সঙ্গে সরিয়ে নিতে হবে। এখানে মাস্তানি চলবে না। যতবড় মাস্তানই হোক, এটি মাস্তানি করার জায়গা নয় বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি’।

The Post Viewed By: 138 People

সম্পর্কিত পোস্ট