চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট, ২০২০

সর্বশেষ:

যুগে যুগে মহাপুরুষদের আবির্ভাব মানবজাতির জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ | ৩:২২ পূর্বাহ্ণ

সৎসঙ্গের ৩১ বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে চবি উপাচার্য

যুগে যুগে মহাপুরুষদের আবির্ভাব মানবজাতির জন্য আশীর্বাদ স্বরূপ

শ্রী শ্রী ঠাকুর অনুকূল চন্দ্রের ১৩২তম আবির্ভাব বর্ষ-স্মরণ সম্মেলন এবং সৎসঙ্গ চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় শাখার ৩১ বছর পূর্তি উৎসব গত ১২ ডিসেম্বর বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে উদযাপিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল গুণীজন সংবর্ধনা, সমবেত প্রার্থনা, স্মৃতিচারণ, মঙ্গল শোভাযাত্রা, বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয়, দীক্ষাদান, ঠাকুর পূজা, আলোচনা সভা, শিক্ষাবৃত্তি প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। চবি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি মিলনায়তনে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেন বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকের বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মো. আবদুল হাই। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন সৎসঙ্গ ফাউন্ডেশনের সহ-প্রতিঋত্বিক সুনীল বিকাশ দাশ। সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্য রাখেন সনাতন ধর্ম পরিষদ চবির সভাপতি ও রসায়ন বিভাগের প্রফেসর ড. তাপসী ঘোষ রায়।

উপাচার্য তাঁর ভাষণে বলেন, যুগে যুগে মহাপুরুষদের আবির্ভাব মানবজাতির জন্য আশীর্বাদস্বরূপ। মহাপুরুষদের চিন্তা-চেতনা, ধ্যান-ধারণা সবকিছুতে ছিল মানুষের কল্যাণ কামনা।

সৎসঙ্গ চবি শাখার সভাপতি সজীব দাশের সভাপতিত্বে এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক সুকান্ত দত্তের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ভাস্কর ডি কে দাশ মামুন ও প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য দেবাশীষ পাল দেবু ও পটিয়া মুজাফ্ফরাবাদ যশোদা নগেন্দ্র নন্দী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সুভাষ চন্দ্র ধর ও সৎসঙ্গ-ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হিরা কুমার কুন্ডু। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক দিলীপ কান্তি দাশ, বিপুল চন্দ্র মিত্র ও মাদল দেব বর্মণ।-বিজ্ঞপ্তি

The Post Viewed By: 114 People

সম্পর্কিত পোস্ট