চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

৮ মে, ২০১৯ | ২:৩৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চকবাজার গুলজার টাওয়ার

রকমারি বাহারি পোশাক নজর কাড়ছে ক্রেতাদের

নেট, টিস্যু, ভ্যালভেট, মকমল, তসর কাতান, গুজরাটি, কটন, অরগেঞ্জা, জামদানি ও সুতার বিভিন্ন কাপড়ের উপর কারচুপি, জারদৌসি, জরি চুমকি, গুজরাটি কাজ ও এমব্রয়ডারিসহ বিভিন ডিজাইনের নকশায় সেজেছে এবারে ঈদের পোশাক। বাহারি এসব পোশাক একটু দেখায় নজর কাড়ছে ক্রেতাদের। গতকাল নগরীর চকবাজার গুলজার টাওয়ারে ঈদ উপলক্ষে দেখা যায় এমন দৃশ্য। নান্দনিক ডিজাইনেবল পোশাক নিয়ে সেজেছে এ শপিংমলটি। রমজানের প্রথম দিন হলেও মলে ভিড় ছিল না এটা বলা যাবে না। প্রথম দিনেই এখানে মোটামুটি নারী ক্রেতাদের ভিড় ছিল লক্ষণীয়। এখানে নারীদের আধুনিক ও রুচিশীল পোশাকের পাশাপাশি আছে শিশু ও ছেলেদের আধুনিক রুচিসম্মত পোশাক। শপিংমলটি ঘুরে দেখা যায়, মেয়েদের পছন্দের তালিকায় বেশি স্থান পাচ্ছে রেডিমেড গ্রাউন ও থান কাপড়। নিজেদের পছন্দমত ডিজাইন করে থ্রি-পিস ও গ্রাউন সেলাই করতে ভিড় লক্ষ্যণীয় থান কাপড় ও লেইসের দোকানগুলোতে। মেয়েদের আধুনিক রেডিমেড পোশাক, থান কাপড়ের দোকান ও বুটিক হাউসগুলোর মধ্যে ভিড় ছিল নন্দিনী ফ্যাশন মেকার, রাণী কুঠির, রূপমা ফ্যাশন কালেকশন, তমা শাড়ি ঘর, চন্দ্রছায়া বুটিক হাউস ও অঙ্গবরণে। নন্দিনী ফ্যাশন মেকারে ঈদের পোশাক কিনতে

আসেন আফরিন তাবাসুম ও তার মা। তারা জানান, এখনি যদি কাপড় না কেনা হয় আর সেলাই করা যাবে না। আমরা প্রতিবছর এখান থেকেই ঈদের শপিং করি। এখানে নানা রকম দেশি-বিদেশি কালেকশন পাওয়া যায়। তাই এবারও ইন্ডিয়ান গ্রাউন কিনেছি। পাশাপাশি থ্রি-পিস দিয়েছি।
দোকানগুলোতে মেয়েদের রেডিমেড পোশাকগুলোর মধ্যে ৮০০ থেকে ১২০০০ টাকা দামের পর্যন্ত রয়েছে। নন্দিনী ফ্যাশন মেকারের স্বত্বাধিকারী এম বখতিয়ার উদ্দীন বলেন, ঈদ উপলক্ষে আমরা রেডিমেড কাপড়ের মধ্যে দেশি কাপড়ের পাশাপাশি বিদেশি (ভারত ও পাকিস্তান) আধুনিক পোশাকগুলো এনেছি। যা ক্রেতাদের সাধ্যের মধ্যে আছে। ছেলেদের পোশাকের দোকানগুলেতে এখন তেমন ভিড় নেই। তবে তাদের পোশাকের বিপুল সমাহার আছে এখানে। তম্মধ্যে উল্লেখ যোগ্য ফাইটার জেমস, অরকোট ফ্যাশন, ফ্যাশন জোন, এইস টি সি ফ্যাশন, এক্সপ্যাট গ্যালারি, ব্লাক এন্ড হোয়াইট, হোয়াইট ট্যাগ, টপ মেকার। ছেলেদের প্যান্ট ও শুটিং আইটেমে যোগ হয়েছে সিয়ারাম, ডবিউএসি, জেমস্ট্রিট এবং ওসিএম ব্র্যান্ডের কাপড়গুলো। এসব পোশাকের দাম ৯০০ থেকে ৪৫০০ টাকা পর্যন্ত আছে। শিশুদের পোশকের মধ্যে আছে বেবী আইটেম, বেবী কিডস, কিডস জোন, হোয়াইট জোন ও শৈশব। নগরীর এ শপিংমলটি শিশুদের পোশাকের জন্য প্রায় সবার কাছেই বিখ্যাত। তাই ঈদ উপলক্ষে আছে শিশুদের পোশাকের বিপুল সমাহার। যদিও কাল শিশুদের দোকানগুলোতে সেভাবে ভিড় ছিল না। তবে এখানে শিশুদের পোশাকে এসেছে নানা বৈচিত্র্যতা। হোয়াইট ট্যাগ দোকানের স্বত্বাধিকারী মো. হুমায়ন রশিদ বলেন, এবারে ঈদ উপলক্ষে শিশুদের আধুনিক পোশাকের অনেক কালেকশন আছে আমাদের কাছে। শিশুদের দেশি-বিদেশি পোশাকগুলোর মধ্যে কুটি শার্ট, টি-শার্ট, কুটি পাঞ্জাবি, শেরোয়ানি ও বিভিন্ন ডিজাইনের জিন্স প্যান্ট ও শার্ট আছে। শিশুদের কাপড়ের মধ্যে ৪৫০ টাকা থেকে প্রায় ৪০০০ টাকা পর্যন্ত মূল্যের আছে। গুলজার টাওয়ার দোকান মালিক বণিক কল্যাণ সমিতির সভাপতি আলী রেজা চৌধুরীর সাথে আলাপকালে তিনি জানান, গুলজার টাওয়ার শপিংমলে ছোট-বড় মিলে প্রায় ২৭৩ টি দোকান আছে। বর্তমানে এসব দোকানগুলো নিজস্ব সি সি ক্যামেরার আওতাধিন্ এছাড়া মলের বাইরের অংশও সি সি ক্যামেরার আওয়ায় আছে। ঈদ উপলক্ষে চকবাজার থানা প্রশাসনও সর্বাত্বক সহযোগিতা দেয়ার পাশাপাশি আমাদের নিজস্ব নিরাপত্তার ব্যবস্থা আছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 531 People

সম্পর্কিত পোস্ট