চট্টগ্রাম সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

৭ মে, ২০১৯ | ১:৫৭ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা , কক্সবাজার

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

কক্সবাজারে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে জামায়াত নেতার মারধর

কক্সবাজার সদর উপজেলার গোমাতলী মোহাজের উপনিবেশ সমিতির সদস্যদের জিম্মি করে সমিতির সভাপতি সেলিম উদ্দিন ও সম্পাদক মোসলেম উদ্দিনসহ কয়েক সদস্যের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর অভিযোগ দেয়ায় সমিতির সদস্য সাজ্জাদুল করিমকে মারধর করা অভিযোগ উঠেছে। সমিতির সভাপতি ও সম্পাদকের আশ্রয়ে থাকা জামায়াত নেতা আবু শামাসহ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ। হামলায় আহত সাজ্জাদকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানেও আরেক দফা হামলা চালায় আবু শামা বাহিনী। হামলায় সাজ্জাদুল করিমের মা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস শুক্করের স্ত্রী সেতারা বেগমও গুরুতর আহত হয়। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে এবং চোখে মারাত্মক জখম হয়। পরে পুলিশ ডেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাজ্জাদুল করিমকে পুলিশে দিয়েছে জামায়াত নেতা আবু শামা। গতকাল সোমবার বিকেলে শহরের একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেন মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুস শুক্কুরের স্ত্রী সেতারা বেগম।
সংবাদ সম্মেলনে সেতারা বেগম জানান, ২০১৭ সালে সমিতির ৩৪ লক্ষ টাকা সদস্যদের মধ্যে বন্টন না করে আত্মসাৎ করেছিলেন ব্যবস্থাপনা কমিটির ৬ জন সদস্য। এসব কিছুর ইন্ধনদাতা ছিলেন সমিতির সভাপতি সেলিম উদ্দিন ও সম্পাদক মোসলেম উদ্দিন। সম্প্রতি উপজেলা সমবায় অফিসারের তদন্ত প্রতিবেদনে টাকা আত্মসাতের প্রমাণ পাওয়া যায়। তদন্ত প্রতিবেদন সমিতির সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়।
সেতারা বেগম আরও জানান, গেল ২৫ মার্চ কক্সবাজার প্রেসক্লাবে গোমাতলী মোহাজের উপনিবেশ সমিতির সভাপতি সেলিম উদ্দিন ও সম্পাদক মোসলেম উদ্দিনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে এবং আবু শামা কর্তৃক প্রাণনাশের হুমকির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন সমিতির সদস্য সাজ্জাদুল করিম। সংবাদ সম্মেলনের পর থেকে জামায়াত নেতা আবু শামা প্রতিনিয়ত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছিল। সংবাদ সম্মেলন করায় তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে সাজ্জাদুল করিম এবং তার মাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায়। বর্তমানে সাজ্জাদ বিনা অপরাধে কারান্তরীণ আছেন। একমাত্র পুত্র না থাকায় বিধবা সেতারা বেগম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 318 People

সম্পর্কিত পোস্ট