চট্টগ্রাম মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

৫ মে, ২০১৯ | ২:০৯ পূর্বাহ্ণ

শহীদ জননীর ৯০তম জন্মবার্ষিকীর আলোচনায় এমপি ওয়াসিকা

জাহানারা ইমাম মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকবর্তিকা

জননেতা আতাউর রহমান খান কায়সারের সুযোগ্য কন্যা ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি বলেছেন, ধর্মের নামে হত্যা, সন্ত্রাস ও ধ্বংসযজ্ঞের অবসান ঘটানোর জন্য স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে সাংবিধানিকভাবে ধর্মের নামে রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। বাংলাদেশের মূল সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতাকে রাষ্ট্রের অন্যতম মূলনীতি হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছিল। স্বাধীন বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ধর্মনিরপেক্ষতার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বলেছিলেন, ‘ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়। মুসলামানরা তাদের ধর্ম পালন করবে, কারো বাধা দেয়ার ক্ষমতা নেই। বৌদ্ধরা তাদের ধর্ম পালন করবে, খ্রিস্টানরা তাদের ধর্ম পালন করবে, তাদের কেউ বাধা দিতে পারবে না। আমাদের শুধু আপত্তি হল এই যে, ধর্মকে কেউ রাজনৈতিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করতে পারবে না’। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর এই রাজনৈতিক দর্শনই হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। শহীদ জননী জাহানারা ইমাম সেই চেতনার আলোকবর্তিকা।
শহীদ জননী জাহানারা ইমামের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি চট্টগ্রাম জেলা আয়োজিত ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক দর্শন ও শহীদ জননীর যুদ্ধাপরাধ বিরোধী আন্দোলন’-শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তৃব্যে এসব কথা বলেন।
গতকাল (শনিবার) নগরীর মোমিন রোডস্থ সুপ্রভাত স্টুডিও হলে সংগঠনের জেলা সভাপতি প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা কাজী মুকুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালি, কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ নেতা সুকুমার চৌধুরী। জেলার প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অলিদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন স্বপন সেন, দীপংকর চৌধুরী কাজল, মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, মো. হেলাল উদ্দিন, প্রফেসর রেখা আলম চৌধুরী, হাবিব উল্ল্যা চৌধুরী ভাস্কর, এ.কে.এম জাবেদুল আলম সুমন, আবু সাদাত মো. সায়েম, আবদুল মান্নান শিমুল, নাজমুল আলম খান, ফারুক চৌধুরী, সুমন চৌধুরী, মিথুন মল্লিক, আসাদুজ্জামান জেবিন প্রমুখ।
আলোচনা সভা শেষে একক আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী ডালিয়া বসু সাহা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে বসুন্ধরা শিল্পী গোষ্ঠী।
এদিকে, শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ৯০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত গণজাগরণযাত্রা প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে স্থগতি ঘোষণা করা হয়। আগামী ২৬ জুন শহীদ জননী জাহানারা ইমামের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গণজাগরণযাত্রা এবং ঘোষিত কর্মসূচি পালিত হবে।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 274 People

সম্পর্কিত পোস্ট