চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

৪ মে, ২০১৯ | ১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, আনোয়ারা

বঞ্চিত ক্যাজুয়েল শ্রমিকদের মাঝে ক্ষোভ উত্তেজনা

ডিএপি সার কারখানায় শিক্ষানবীশ শ্রমিক নিয়োগের পাঁয়তারা

ডিএপি সার কারখানায় শিক্ষানবীশদের নিয়োগে কর্মরত ক্যাজুয়েল শ্রমিকরা স্থায়ী চাকরি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ম্যানেজমেন্ট ও সিবিএ’র যোগসাজশে শিক্ষানবীশরা নিয়োগ বাণিজ্যের মাধ্যমে নিয়োগ পাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়রা কোটাবঞ্চিত হওয়ায় শ্রমিকদের মধ্যে বিরাজ করছে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা। গত বুধবার কারখানা পরিদর্শনে আসেন বিসিআইসির পরিচালক (পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন) মো. লুৎফুর রহমান। স্থানীয় কর্মরত শ্রমিকরা বিষয়টি পরিচালককে অবগত করার চেষ্টা চালাচ্ছে।
জানা যায়, আনোয়ারা উপজেলার রাঙ্গাদিয়া এলাকায় ডিএপি ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিঃ অবস্থিত। এখানে কর্মরত ক্যাজুয়েল শ্রমিকরা চাকুরি স্থায়ীকরণ ও স্থায়ী কোটা নির্ধারণসহ অন্যান্য দাবিতে গত জানুয়ারি মাসে টানা ৩দিন আন্দোলন করে। এতে কারখানা অচল হয়ে পড়ে। অবশেষে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির হস্তক্ষেপে কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ শীর্ষ কর্মকর্তাবৃন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক এম.এ মান্নান চৌধুরী ও উপজেলা শ্রমিকলীগের নেতৃবৃন্দ এক যৌথ বৈঠকে বসেন। ত্রি-পক্ষীয় বৈঠকে শ্রমিক নেতারা আন্দোলন স্থগিত করেন। পরে ১৫ দিনের মধ্যে ক্যাজুয়েল শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছিলো কর্তৃপক্ষ। আন্দোলনের ফলে শিক্ষানবীশ নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ রাখে কর্তৃপক্ষ। এদিকে কয়েক মাস অতিবাহিত হওয়ার পর শিক্ষানবীশ হিসেবে কারখানায় ২৯জনকে বিভিন্ন পদে নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। অভিযোগ উঠেছে ম্যানেজমেন্ট ও সিবিএ নেতাদের যোগসাজশে নিয়োগ বাণিজ্যের মাধ্যমে স্থানীয়দেরকে বঞ্চিত করে কারখানায় বহিরাগতদেরকে নিয়োগ দেয়ার পাঁয়তারা চলছে। এ নিয়ে স্থানীয় ক্যাজুয়েল শ্রমিকদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।
কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিসিআইসি থেকে নিয়োগ প্রাপ্ত ট্রেনিং দেয়া লোকদেরকে শিক্ষানবীশ হিসেবে নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে স্থানীয়দের নিয়োগ দেওয়ার কোন বিধান নেই।
বর্তমানে কারখানার সিবিএ’র সভাপতি মো. ইসমাইল খান জানান, কারখানায় নিয়ম মোতাবেক শিক্ষানবীশরা নিয়োগ পাচ্ছে। নিয়োগে অর্থ বাণিজ্যের প্রশ্নই উঠে না।
ক্যাজুয়েলের সভাপতি নাছির উদ্দিন জানান, আন্দোলনের মুখে বহিরাগতদের নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া বন্ধ করা হয়েছিলো। ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি’র সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আমরা। স্থানীয়রা কোটাবঞ্চিত হলে আবারো আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।
এ নিয়ে যেকোন সময় শ্রমিক ও ম্যানেজমেন্টের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকা রয়েছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 295 People

সম্পর্কিত পোস্ট