চট্টগ্রাম সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

১ মে, ২০১৯ | ২:১৯ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা

আনোয়ারায় বাড়ি ভিটা ফেরত পেলেন প-িত নিরঞ্জন চক্রবর্তী

ভূমিমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ

অবশেষে বাড়ি ভিটা ফেরত পেলেন প-িত নিরঞ্জন চক্রবর্তী। ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি’র হস্তক্ষেপে তিনি নিজ বাড়িতে ফিরলেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান কার্যালয়ে প্রশাসন এর উপস্থিতে সংগঠিত ঘটনার দুইপক্ষের মধ্যে সমঝোতার স্বাক্ষর হয়। পরে সাব-রেজিস্টার অফিসে নিয়ম মোতাবেক অভিযুক্ত মুহাম্মদ কামরুল ইসলাম হেলাল প্রবীণ শিক্ষক নিরঞ্জন চক্রবর্তীকে পুনঃ রেজিষ্ট্রি দিয়ে বাড়ি ভিটা ফেরত দিয়েছে। সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বহুল আলোচিত ও চাঞ্চল্যকর ঘটনার শান্তিপূর্ণ পরিসমাপ্তি হয়েছে। সর্বস্তরের লোকের মাঝে স্বস্তি ফিরেছে। এ ঘটনায় ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপিকে বিভিন্ন মহল থেকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছে। জানা যায়, গত ১০ এপ্রিল আনোয়ারা উপজেলার জয়কালী হাট

এলাকায় কামরুল ইসলাম হেলালের নেতৃত্বে জোর পূর্বক প-িত নিরঞ্জন চক্রবর্তী থেকে বসত ভিটা রেজিস্ট্রি ও দখল নেয়ার অভিযোগ উঠে। ১৮ এপ্রিল থানায় মামলা হয়। ঘটনাটি নিয়ে সর্ব মহলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। তাৎক্ষনিক ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির পক্ষ থেকে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। নিরঞ্জন চক্রবর্তী পুনরায় বাড়িতে ফিরে যাবার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ভূমিমন্ত্রী নির্দেশ দেন। তারই আলোকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের উপস্থিতিতে সমঝোতার স্বাক্ষর ও সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে শান্তিপূর্ণ বসবাসের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ জোবায়ের আহমদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইদুজ্জামান চৌধুরী, সাব রেজিস্ট্রার সালাউদ্দিন, আনোয়ারা থানার ওসি (তদন্ত) মাহাবুব মিল্কী, আ.লীগ নেতা বিশ্বসর গুপ্ত, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৃণাল কান্তি ধর, ইউপি চেয়ারম্যান অসীম কুমার দেব, ইউপি চেয়ারম্যান এম.এ কাইয়ুম শাহ্, আ.লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী, নিরঞ্জন চক্রবর্তীর পক্ষে পুত্রবধূ সীমা চক্রবর্তী, নাতনী পাপিয়া চক্রবর্তী ও অভিযুক্ত কামরুল ইসলাম হেলালসহ স্থানীয় সাংবাদিক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। তবে নিরঞ্জন চক্রবর্তীর ছেলে প্রণব চক্রবর্তী উপস্থিত ছিলেন না। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী বলেন, পুনঃ রেজিস্ট্রিকৃত দলিল ভূমিমন্ত্রী নিজেই নিরঞ্জন চক্রবর্তীর হাতে তুলে দিবেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ জোবায়ের আহমদ বলেন, দু’পক্ষই শান্তিপূর্ণ ভাবে বসবাস করবে। কোন ধরনের কিছু হলে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। পুত্রবধূ সীমা চক্রবর্তী বলেন, ভূমিমন্ত্রীর সহযোগিতায় আমরা বসত ভিটা ফিরে পেয়েছি। আমরা আনন্দিত ও কৃতজ্ঞ। বৃদ্ধ শ্বশুরকে নিয়ে বাড়ি ফিরবো। সকলের সহযোগিতায় আমরা ন্যায় বিচার পেয়েছি। অভিযুক্ত হেলাল বলেন, বৈধ উপায়ে রেজিস্ট্রি নিয়েছিলাম। ভূমিমন্ত্রীর নির্দেশে নিজ থেকে ৫ লাখ ২০ হাজার টাকা খরচ দিয়ে পুনরায় রেজিষ্ট্রি দিয়ে বসত ভিটা ফেরত দিয়েছি। ওসি (তদন্ত) মাহাবুব মিল্কী জানায়, শান্তিপূর্ণ ভাবে বিষয়টি মিমাংসা হয়েছে। মামলাও প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া চলছে।

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 327 People

সম্পর্কিত পোস্ট