চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

১ মে, ২০১৯ | ২:০০ পূর্বাহ্ণ

সিটি মেয়রের সাথে হকার্স নেতৃবৃন্দের বৈঠকে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত

হকারদের বসার স্থান ও সাইজ মার্কিং করে দেবে চসিক

আসন্ন রমজান মাসে হকারদের মাঝে শৃঙ্খলা আনায়নের লক্ষে অস্থায়ীভাবে নগরীতে ব্যবসারত ৮ হাজার ৪ শত ৯৯ জন হকারের মধ্যে কে কোন স্পটে বসবে তা নির্ধারণ করবেন হকার নেতৃবৃন্দ। এক্ষেত্রে নগরীর বিভিন্ন স্থানে হকাদের বসার স্থান সাইজসহ মার্কিং করে দেবে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। বিকেল ৫টার পর হকাররা নগরীর ফুটপাতে বসবেন এবং ফুটপাতের এক্িট অংশ জনসাধারণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত রাখতে হবে।
সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ আ.জ.ম.নাছির উদ্দীনের সাথে গত সোমবার রাতে সিটি কর্পোরেশন কনফারেন্স হলে নগরীর হকার্স নেতৃবৃন্দের এক বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তে, চসিকের পক্ষ থেকে তালিকাভুক্ত হকারদের আইডি কার্ড এবং প্রতিজন হকারকে ১টি করে ছাতা প্রদান করা হবে । তালিকাভুক্ত হকারদের সাথে যাতে তাদের কোন আত্মীয় স্বজন সংযুক্ত হতে না পারে, সেই লক্ষে আইডি কার্ডে নম্বর থাকবে, নম্বর অনুযায়ী মার্কিং করা স্থানে বসে ব্যবসা করবে । এছাড়া রাত ১১ টার পর তারা ছাতাসহ সকল মালামাল নিজ হেফাজতে নিয়ে নেবে। এই সময়ের পর চসিক’র পরিচ্ছন্ন কর্মীরা ময়লা- আর্বজনা অপসারণে দায়িত্ব পালন করবে ।
বর্তমানে ফুটপাতে যে চৌকি আছে ঐ সময়ে ফুটপাতে কোনো ধরণের চৌকি থাকতে পারবে না। তবে চাকাযুক্ত নিদিষ্ট সাইজের চৌকি থাকবে।
নির্ধারিত সময় অবশ্যই মেনে চলতে হবে। হকারদের কার্যক্রম সিটি মেয়রের প্রতিনিধি হিসেবে দু’জন কাউন্সিলর দেখভাল করবেন। তারা হলেন, কাউন্সিলর তারেক সোলেয়মান সেলিম ও হাসান মুরাদ বিপ্লব। নির্ধারিত সময়ানুযায়ী শুধুমাত্র রমজান মাসে বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা থেকে, শুক্রবার ও শনিবারসহ সরকারি বন্ধের দিনে পূর্ণ দিবস এবং বাকি দিনগুলোতে বিকেল ৫টার পর হকাররা নগরীর ফুটপাতে ব্যবসা করতে পারবে । এছাড়া ভাসমান ভ্যানগাড়িতে করে তরকারি, পোশাক, জুতা, ইলেকট্রিকসহ বিভিন্ন মালামাল বিক্রেতাদের একটি নীতিমালায় আনায়নের পরিকল্পনা রয়েছে। এর অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট বিক্রেতাদের বসার সময় নির্ধারণ করার পাশাপাশি তাদেরকে পরিচয়পত্র ও ট্রেড লাইসেন্স দেয়া হবে । একই সংগে ভ্যানগাড়িতে করে যেসব বিক্রেতা পণ্য বিক্রয় করেন তাদেরকে ভ্যানেপণ্যের তালিকা ও মূল্য টাঙিয়ে রাখতে হবে। এইসব ভ্যান রাস্তায় দাঁড়িয়ে কোনো পণ্য সামগ্রী বেচেিকনা করতে পারবে না। তারা অলি-গলির মধ্যে তাদের পণ্য সামগ্রী বেচাকেনা করতে পারবে।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, কাউন্সিলর তারেক সোলাইমান সেলিম, হাসান মুরাদ বিপ্লব, স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট জাহানারা ফেরদৌস ও চট্টগ্রাম সম্মিলিত হকার্স ফেডারেশনের সভাপতি মো. মিরন হোসেন মিলন, চট্টগ্রাম ফুটপাত হকার্স সমিতির সভাপতি নুরুল আলম লেদু, চট্টগ্রাম ফুটপাত হকার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক- মো. শফিকুর রহমান শফি, চট্টগ্রাম সিটি হকার্স লীগ সমিতির সভাপতি- মো. হারুন, সাধারণ সম্পাদক- মো. আজগর আলী, টেরী বাজার-আন্দরকিল্লা হকার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক- মো. লোকমান হাকীম, চট্টগ্রাম হকার্স লীগ সাধারণ সম্পাদক- মো. হারুন, মেট্রোপলিটন হকার্স সমিতির সভাপতি- মো. নুরুল আমিন মিয়া, হকার্স ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক- মো. আবু বক্কর ছিদ্দিক, কর্নেলহাট ইপিজেড হকার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাসমত আলী প্রমুখ।
সভায় সিটি মেয়র আলহাজ আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন বলেছেন, আসন্ন রমজান মাসে নগরবাসী রাস্তায় ও ফুটপাতে স্বাচ্ছন্দে চলাচলের জন্য হকারদের মধ্যে শৃঙ্খলা আনায়ন অতীব জরুরি। এই বৈঠকের মাধ্যমে চসিক ও হকারদের মধ্যে যে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে তা অবশ্যই প্রতিপালন করতে হবে। এর ব্যত্যয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।-বিজ্ঞপ্তি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 325 People

সম্পর্কিত পোস্ট