চট্টগ্রাম সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১

সর্বশেষ:

২৭ নভেম্বর, ২০২০ | ১১:১৬ অপরাহ্ণ

চন্দনাইশ সংবাদদাতা

চন্দনাইশে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

চট্টগ্রামের চন্দনাইশে দোহাজারী পৌরসভার দিয়াকুল আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকায় এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে বলে জানা যায়। তবে তার পরিবারের দাবি গৃহবধূ রুবি আকতার (২২) কে তার শ্বশুর বাড়ির লোকেরা মারধর করে হত্যা করেছে। এ ব্যাপারে রুবি আকতারের পিতা রাজা মিয়া বাদি হয়ে চন্দনাইশ থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন বলে জানিয়েছেন এসআই জাকির।

জানা যায়, দোহাজারী পৌরসভার দিয়াকুল আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা রিকশাচালক মঈন উদ্দীন (৩৫) বাশঁখালীর রাজা মিয়ার মেয়ে রুবি আকতার (২২) কে দু’ বছর পূর্বে বিয়ে করেন। তাদের ঘরে ৮ মাসের ১টি কন্যা সন্তান রয়েছে। গত ২৬ নভেম্বর মঈন উদ্দীন রিকশা চালিয়ে রাত করে বাড়ি ফেরায় তার স্ত্রী রুবির সাথে ঝগড়া হয়। রাতে দু’জনে ভাত না খেয়ে শুইয়ে পড়েন। ভোররাতে বাচ্চা কান্না করলে রুবিকে খুঁজতে গিয়ে না পেয়ে ঘরের বাইরে পাশ্ববর্তী বাথরুমে দরজা বন্ধ পান। পরে দরজা ভেঙ্গে বাথরুমের বিমের সাথে ওড়না দিয়ে গলায় পেঁচিয়ে টাঙানো অবস্থায় রুবিকে উদ্ধার করে দোহাজারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রুবির লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন। রুবির ছুরতহাল রিপোর্টে পুলিশ তার গলায়, গালের দুই পাশে আঘাতের চিহ্ন পেয়েছেন বলে উল্লেখ করেন।

এ ব্যাপারে বাঁশখালী পুঁইছড়ির রাজা মিয়া বাদি হয়ে চন্দনাইশ থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন।

এদিকে রুবির পিতা রাজা মিয়া বলেছেন, তার মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্মহত্যা হিসেবে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে মঈন উদ্দীনের পরিবার। তিনি বলেন, তার মেয়ের মুখের দুইপাশে, বুকে দা দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। গলায় একপাশে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেলেও গলার উপরের অংশে কোন ধরনের দাগ দেখা যায়নি। তাছাড়া বাথরুমের বিমে ওড়না টাঙ্গিয়ে আত্মহত্যা করার মতো উচ্চতা নেই বলেও তিনি দাবি করেছেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জাকির বলেছেন, যদিও অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। লাশের ময়না তদন্ত রিপোর্টে কোন ধরনের হত্যাকা-ের আলামত পাওয়া গেলে তখন আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

 

 

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 117 People

সম্পর্কিত পোস্ট