চট্টগ্রাম শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

১৫ নভেম্বর, ২০২০ | ২:৩০ অপরাহ্ণ

হাটহাজারী সংবাদদাতা

হেফাজতের নতুন আমির জুনায়েদ বাবুনগরী

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটির আমির নির্বাচিত হয়েছেন আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। আজ রবিবার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদরাসায় আয়োজিত সম্মেলেন তিনি আমির নির্বাচিত হন।
একই সম্মেলেন মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন ঢাকার জামিয়া মাদানিয়া বারিধারা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও হেফাজতের ঢাকা মহানগর শাখার আমির নূর হোসাইন কাসেমী।

এছাড়া সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন আজিজুল ইসলাম ইসলামাবাদী এবং যুগ্ম-মহাসচিব পদে জুনায়েদ আল হাবীব, মামুনুল হক, নাসির উদ্দিন মনির ও মীর ইদ্রিস, প্রচার সম্পাদক পদে জাকারিয়া নোমান ফয়জী নির্বাচিত হয়েছেন। সম্মেলনে সংগঠনের মোট ১৫১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

উপদেষ্টা কমিটিতে ঠাঁই পেয়েছেন ২৫ জন, নায়েবে আমির পদে ৩২ জন, যুগ্ম-মহাসচিব পদে সাতজন ও সহকারী মহাসচিব পদে ১৮ জনের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। রবিবার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসায় (হাটহাজারী বড় মাদ্রাসা) সম্মেলেন শেষ নাম ঘোষণা করেন বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক।
এর আগে সকাল ১০টায় হাটহাজারী মাদ্রাসায় সম্মেলন শুরু হয়। প্রতিনিধি সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন হেফাজতের সিনিয়র নায়েবে আমির মহিবুল্লাহ বাবু নগরী। এতে দেশের আটটি বিভাগে চারশ প্রতিনিধি যোগদান করেছে বলে হেফাজতের হাটহাজারী উপজেলা শাখার মহাসচিব জাকারিয়া নোমান ফয়েজি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।এ সকাল থেকে সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধো উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। তালিকাভুক্ত প্রতিনিধি ছাড়া গণমাধ্যম কমীরা সম্মেলনে প্রবেশের সুযোগ পাইনি। এর বাইরে শত শত নেতকর্মী মাদরাসার আশপাশে অবস্থান নিয়েছেন।হেফাজতের প্রতিষ্ঠার দশ বছর পর প্রথম এই কাউন্সিলকে ঘিরে সারা দেশে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা ছিল।
হেফাজতের নেতারা জানান, দিনব্যাপী এই সম্মেলন ও কাউন্সিলে সারা দেশ থেকে আসা চারশ প্রতিনিধি হেফাজতের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করার কথা ছিল।সম্মেলনে প্রথম পর্যায়ে ৪শত প্রতিনিধি ১২ সদস্য কমিটিকে হেফাজতের কমিটি করার জন্য সর্বসম্মতিক্রমে দায়িত্ব দেয়। কমিটির প্রধান সাবেক বিলুপ্ত কমিটির সিনিয়র নায়েবে আমির মহিবুল্লাহ বাবু নগরী সহ ১২ সদস্য বসে হেফাজতের কমিটি ঘোষানা করেন।
সম্মেলনে যোগ দিতে এর আগেই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিনিধিরা চট্টগ্রাম আসেন। হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, সারা দেশ থেকে আগত প্রতিনিধিরা সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন। অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে সম্মেলন শেষ হয়েছে।বিগত ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি হেফাজতে ইসলামের যাত্রা শুরু হয়। দেশে নাস্তিক মুরতাদ ও ইসলাম অবমানকারীদের বিরুদ্ধে ১৩ দফা দাবিতে আন্দোলন করে দেশব্যাপী ব্যাপক পরিচিতি পায় এই সংগঠনটি।শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর নেতৃত্বে ঢাকামুখী লংমার্চ শেষে শাপলা চত্বরের স্মরণকালের সর্ববৃহৎ মহাসমাবেশ দেশব্যাপী অভূতপূর্ব গণজাগরণের সূচনা হয়। এরপর শাপলা ট্র্যাজেডি হিসাবে পরিচিত হেফাজতের সমাবেশে নজিরবিহীন দমন-পীড়ন এবং দেশব্যাপী হেফাজতের নেতাকর্মীদের ব্যাপক ধরপাড়কে কিছুটা কোণঠাসা হয়ে যায় হেফাজত।তবে কওমি মাদরাসা সনদের স্বীকৃতিসহ কয়েকটি কারণে সরকারের সাথে হেফাজতের সম্পর্ক তৈরী হয়।সর্বশেষ ফ্রান্সে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে মাত্র কয়েক দিনের নোটিশে রাজধানীতে ফরাসি দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচিতে মানুষের ঢল নামার ঘটনায় হেফাজতে ইসলাম ফের আলোচনায় আসে।
হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী ইন্তেকাল করেন। সম্মেলনে নতুন আমির নির্বাচিত হওয়ার পর হেফাজতের নতুন পথচলা শুরু হবে বলে জানান নেতারা।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 99 People

সম্পর্কিত পোস্ট