চট্টগ্রাম সোমবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২০

সীতাকুণ্ডে নিখোঁজের ৩ দিন পর মিলল যুবদল নেতার লাশ

১৪ নভেম্বর, ২০২০ | ৬:৪৭ অপরাহ্ণ

সীতাকুণ্ড সংবাদদাতা

সীতাকুণ্ডে নিখোঁজের ৩ দিন পর মিলল যুবদল নেতার লাশ

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে নিখোঁজের ৩ দিন পর এক যুবদল নেতার বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত যুবদল নেতার নাম মো. জামশেদ (৩২)। আজ শনিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের বসরতনগর সাগর পাড়ে ভেসে আসা লাশটি উদ্ধার করা হয়। সীতাকুণ্ড থানার ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়ন যুবদলের সহ-সম্পাদক জামশেদ গত বুধবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে উপজেলার মুরাদপুর দেলীপাড়া এলাকায় অবস্থান করছিলেন। কিন্তু সন্ধ্যা থেকে তার আর কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে তার পরিবার জানতে পারে সেখানে পূর্ব শত্রুতার জেরে কিছু লোক তাকে তুলে নিয়ে যায়। এতে ঘটনার দিন রাতেই এ বিষয়ে জামশেদের স্ত্রী রুবি আক্তার থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। এছাড়া তিনি শনিবার দুপুর ১২টায় সীতাকুণ্ড প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে স্বামীকে উদ্ধার করার জন্য প্রশাসনের প্রতি আবেদন জানান।

এদিকে, সংবাদ সম্মেলনের কিছুক্ষন পরই স্থানীয়রা উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের বসরতনগর সমুদ্র উপকূলে একটি বস্তা ভেসে আসতে দেখেন। সেটি কাছে গেলে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়লে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পরে খবর পেয়ে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। সেখানে উপস্থিত হয়ে জামশেদের শ্যালক জয়নাল আবেদীন লাশটি জামশেদের বলে শনাক্ত করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মুরাদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহেদ হোসেন নিজামী বলেন, যুবদল নেতা এই জামশেদের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ ছিল। এই গ্রুপটি চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতির সাথে জড়িত। তার গ্রুপের এক সদস্য গত মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) জেল থেকে বের হয়ে আসলে পরদিন বুধবার ওই সদস্যসহ জামশেদ ও তার দল এলাকার কিছু যুবকের সাথে দ্বন্দ্বে লিপ্ত হয়। এরপর থেকে সে নিখোঁজ ছিলো। পরে আজ শনিবার দুপুরে লাশ পাওয়া যায়।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বণিক জানান, নিখোঁজ জামশেদের অতীত রেকর্ড ভালো না। ওই এলাকায় ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক ব্যবসাসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত থাকায় তার বিরুদ্ধে থানায় বেশ কয়েকটি মামলা আছে।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, গত বুধবার তাকে প্রতিপক্ষ অপহরণ করেছে দাবি করে জামশেদের স্ত্রী রুবি আক্তার সুনির্দিষ্ট ১৮ ও অজ্ঞাতনামা ১০-১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে আমরা তাকে উদ্ধারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। বিস্তারিত তথ্যের জন্য দু’জনকে আটকও করা হয়েছে। এর মধ্যে শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সৈয়দপুর বসরতনগর থেকে তার বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার হয়। লাশটি পঁচে ফুলে ওঠেছিল।

 

 

 

পূর্বকোণ/সৌমিত্র-আরপি

 

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 84 People

সম্পর্কিত পোস্ট