চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০

১০ নভেম্বর, ২০২০ | ৫:২১ অপরাহ্ণ

ইমরান বিন ছবুর 

সরকারি স্কুলে ভর্তির অনিশ্চয়তায় অর্ধলক্ষ শিক্ষার্থী

প্রতি বছর ডিসেম্বরের মাঝামাঝি কিংবা শেষ সপ্তাহে শুরু হয় নগরীর সরকারি বিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা। নগরীর ৯টি সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে প্রায় অর্ধলক্ষ শিক্ষার্থী। হাতে মাত্র এক মাসের মতো সময় থাকলেও ভর্তি সংক্রান্তে এখনো কোন নির্দেশনা আসেনি চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে। ভর্তি নিয়ে এমন অনিশ্চয়তায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা।

জেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নির্দেশনা পেলেই সে অনুযায়ী সরকারি বিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হবে। এতে কালবিলম্ব করা হবে না।

সংশ্লিষ্টরা জানান, অন্যান্য বছর এই সময়ে সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীরা প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। প্রায় চার হাজার আসনের জন্য নগরীর ৯টি সরকারি বিদ্যালয়ে প্রায় ৫০ হাজার শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। তবে এ বছর ভর্তির সময় ঘনিয়ে এলেও পরীক্ষা হবে কিনা সেটাই এখনো অনিশ্চিত। গত বছর ২০১৯ সালে চার হাজার ২৪০টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ৫৩ হাজার ১৫ শিক্ষার্থী। ২০১৮ সালে তিন হাজার ৯০৮টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেছে ৪৮ হাজার ৩৩৯ জন শিক্ষার্থী।

করোনা ভাইরাসের কারণে ২০২০ শিক্ষাবর্ষের এইচএসসি, জেএসসি ও পিইসি পরীক্ষা বাতিল করেছে সরকার। সে হিসেবে এ বছর সরকারি বিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হবে কিনা তা বলা যাচ্ছে না। শিক্ষার্থী-অভিভাবকসহ সবার মনে প্রশ্ন, পরীক্ষা হলেও তা কিভাবে নেয়া হবে! এছাড়া, জেএসসি ও জেডিসির ফলাফলের ভিত্তিতে নবম শ্রেণিতে ভর্তি করা হতো। এবছর করোনার কারণে জেএসসি পরীক্ষা হয়নি। তাহলে নবম শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম কিভাবে হবে, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মনে এ নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন।

নগরীর দু’টি সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা হলে তারা জানান, অন্যান্য বছর নভেম্বরের মাঝামাঝি কিংবা শেষ সপ্তাহ নাগাদ চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন আমাদের কাছে বিদ্যালয়ের শূন্য আসন সংখ্যা জানতে চেয়ে চিঠি দেয়। আমরাও বিদ্যালয়ের শূন্য আসন গণনা করে জেলা প্রশাসনকে জানিয়ে দিই। নগরীর সবগুলো সরকারি বিদ্যালয়ের শূন্য আসনের সংখ্যা জানার পর জেলা প্রশাসন ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা পেলে আমরা তাদের শূন্য আসনের তালিকা পাঠিয়ে দেব।

নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন কোরবাণীগঞ্জ এলাকার লামাবাজার সিটি কর্পোরেশন বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. সাকিব রহমানের পিতার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, অষ্টম শ্রেণিতে ভালো রেজাল্টের আশায় ছেলে প্রথম থেকেই ভালো করে পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছিলো। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে সরকার জেএসসি পরীক্ষা বাতিল করেছে। অন্যান্য বছর জেএসসির ফলাফলের উপর ভিত্তি করে মেধা তালিকা অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা সরকারি বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণিতে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পায়। তবে এবছর যেহেতু জেএসসি পরীক্ষা হচ্ছে না, তাহলে তাদের ভর্তি প্রক্রিয়া কিভাবে হবে সে বিষয়ে আমরা সবাই উদ্বিগ্ন। আমরা আশা করি এ ব্যাপারে সরকার শীঘ্রই নির্দেশনা দিবে।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (শিক্ষা ও আইসিটি) গালিব চৌধুরী বলেন, এবছর করোনা ভাইরাসের কারণে এইচএসসি, জেএসসি ও পিইসি বা সমমানের পরীক্ষা হয়নি। তবে সরকারি বিদ্যালয়ের ভর্তি প্রক্রিয়া হবে কিনা বা হলে কিভাবে হবে সে ব্যাপারে আমাদের কাছে এখনো কোন নির্দেশনা আসেনি। আমরা নির্দেশনার জন্য অপেক্ষা করছি। আশা করছি শিগগিরই বিদ্যালয়ের ভর্তি ব্যাপারে নির্দেশনা আসবে। নির্দেশনা পাওয়া মাত্রই আমরা সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নিব।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 104 People

সম্পর্কিত পোস্ট