চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

৮ নভেম্বর, ২০২০ | ৯:১২ অপরাহ্ণ

ফটিকছড়ি সংবাদদাতা

প্রেমিককে গাছে বেঁধে প্রেমিকাকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৫

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার নারায়নহাটে প্রেমিককে গাছের সাথে বেঁধে প্রেমিকাকে পালাক্রমে গণধর্ষন ঘটনায় পাঁচ ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার (৭ নভেম্বর) দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়েছে বলে আজ রবিবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন ভুজপুর থানার ওসি শেখ আব্দুল্লাহ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে-নারায়নহাট ইউপির চাঁনপুর গ্রামের মৃত ইদ্রিচ মিয়ার ছেলে মো.পারভেজ(২৫), একই গ্রামের নুরুল হুদার ছেলে মো.ইয়াছিন(২৩), নুরুল ইসলামের ছেলে মো.ফরিদ(৩১), হাবিবুর রহমানের ছেলে সালাহউদ্দিন(৩৮), বজলআহমদের ছেলে আবুল মনসুর(৪০)।

এর আগে গত ৬ নভেম্বর নগরীর বায়োজিদ থানা এলাকা থেকে ফটিকছড়িতে প্রেমিকের বাড়ি দেখতে গিয়ে নারায়নহাট ইউপির চানপুর গ্রামে ৮/৯জন দুর্বৃত্তের হাতে গণধর্ষণের শিকার হয় এই তরুণী। এব্যাপারে ধর্ষিতা রানু (১৯) (ছদ্মনাম) বাদি হয়ে ৫জনের নাম উল্লেখ কওে এখং আরো ৪/৫জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে ভুজপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ রাতের মধ্যেই এজাহারভুক্ত সকল আসামি গ্রেপ্তার করে। সেই সাথে ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

ভুজপুর থানার ওসি শেখ আব্দুল্লাহ বলেন, খাগড়াছড়ির দিঘীনালা থানা এলাকার রশিদ নগর গ্রামের জনৈক দুলাল আলীর মেয়ে ধর্ষিতা রানু(১৯) চট্টগ্রাম নগরীর ফ্রি পোর্ট এলাকায় একটি কারখানায় কাজ করার সুবাদে বায়েজিদ বোস্থামি থানাধীন রৌফাবাদ এলাকায় থাকতো। কাজের সুবাদে তার সাথে ফটিকছড়ির দাঁতমারা ইউপির তারাখো গ্রামের মাহাবুবুল আলমের ছেলে মো.নাজিম উদ্দিনের(২২) সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে উভয়ে বিয়ে করার জন্য সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সূত্র ধরে নাজিম রানুকে গত ৬নভেম্বর তার বাড়ি-ঘর দেখানোর উদ্দেশ্যে ফটিকছড়ির নারায়নহাট নিয়ে আসে। সে রানুকে তার নিজ বাড়িতে না নিয়ে রাতের বেলা নারায়নহাট ইউপির চানপুর গ্রামে তার খালার বাড়ির উদ্দেশ্যে একটা ব্যাটার চালিত রিকসায় করে নারায়নহাট বাজার থেকে রওনা হয়। কিন্তু রাত সাড়ে ৮টা নাগাদ ৮/৯জন দুর্বৃত্ত চানপুর গ্রামের একটি বাগানের কাছে তাদের আটক করে বাগানের ভিতর নিয়ে যায়। দুর্বৃত্তরা প্রেমিক নাজিমকে একটি গাছের সাথে বেঁধে রেখে প্রেমিকাকে রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টা থেকে আড়াইটা পর্যন্ত পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরদিন সকালে (৭ নভেম্বর) এ ঘটনা উক্ত গ্রামে জানাজানি হলে স্থানীয় বিচারকরা ধর্ষকদের অপরাধ থাকে বাঁচিয়ে দয়ে এবং র্ধষিতা রানুকে বিয়ে করতে প্রেমিককে প্রস্থাব দিয়ে শালিশ করে দেয় কিন্তু বিষয়টি আমরা খবর পেয়ে সাথে সাথেই অভিযান শুরু করি।

পূর্বকোণ / আরআর

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 84 People

সম্পর্কিত পোস্ট