চট্টগ্রাম শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

৭ নভেম্বর, ২০২০ | ২:১৯ অপরাহ্ণ

জাহেদুল আলম, রাউজান

সেবার মাঝেই যতো আনন্দ

কারো বয়স ২৫, কারো ২০, কারো কারো আরো কম বা বেশি। বিভিন্ন বয়সী যুবকদের নিয়ে গড়া রাউজান বাইক রাইডার্স এখন উপজেলার একটি পরিচিত নাম। তাদের নানা সামাজিক কর্মকাণ্ড, চোখ ধাঁধানো বাইকিং, ট্যুর আনন্দের ফুসরত যেমন যোগাচ্ছে, তেমনি সড়কের দুর্ঘটনারোধেও সচেতনতা সৃষ্টি করছে। আবার কেউ দুর্ঘটনায় আহত হলে তার পাশে দাঁড়াচ্ছে বিভিন্ন সহযোগিতা নিয়ে। ২০১৮ সালে গড়ে তোলা এই সংগঠনটি এখন আড়াইশ’র বেশি সদস্য। সংশ্লিষ্টরা জানান, সংগঠনের বর্তমান সভাপতি ও এডমিন নুরুদ্দিন খান মুন্না একান্ত প্রচেষ্টায় সংগঠনটি গড়ে তোলেন সামাজিক কর্মকাণ্ড, দুর্ঘটনারোধে সচেতনতা সৃষ্টি, বাইক নিয়ে বিভিন্ন ট্যুরে অংশগ্রহণসহ বিভিন্ন লক্ষ্য নিয়ে।

সভাপতি ও এডমিন নুরুদ্দিন খান মুন্না বলেন, ‘২৫০’র বেশি সদস্য থাকলেও বাইকারদের সবাই রাউজানের বাসিন্দা। এ সংগঠনের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড পরিচালনারক্ষেত্রে আর্থিক, সার্বিক সহযোগিতা করেন প্রধান উপদেষ্টা জসিম উদ্দিন চৌধুরী। তিনি আরো বলেন, এই সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য হলো সামাজিক কাজ করা। এর অংশ হিসেবে আমরা করোনাকালে ৫ শ পিপি দিয়েছি। দুর্ঘটনায় আহতদের হুইল চেয়ার, রমজানে ইফতার সামগ্রী, দুস্থদের খাবার, করোনার সময় বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার প্রদান, বাইক, ট্রাক দুর্ঘটনায় আহতদের হুইল চেয়ার প্রদান এবং গুণীজন সম্মাননা দিয়েছি।

ইতোমধ্যে এই সংগঠনের সদস্যরা সাজেক, কক্সবাজার, ঢাকা, রাঙ্গামাটি, আনোয়ারা, বোয়ালখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় বেশকিছু বাইক ট্যুর দিয়ে দুর্ঘটনারোধে সচেতনতা সৃষ্টি করেছে। দুর্ঘটনায় আহত বাইকার আশরাফসহ আহত অনেককে আমরা রক্ত দান করেছি’। সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা জসিম উদ্দিন চৌধুরী তারা জানান, ‘বাইকাররা নিজেদের দুর্ঘটনা এড়ানোর সময় হেলমেট, গার্ডসহ বিভিন্ন প্রটোকশন ব্যবহার করেন। তারা ওভারস্পিড করেনা সড়কে। তারা বিভিন্ন ভালো কাজ করেন সমাজে। এজন্য আমি তাদের পাশে আছি’।  গতকাল (শুক্রবার) ছিল এই সংগঠনটির দুইবছর পূর্তি উৎসব।

এ উপলক্ষে রাউজান সরকারি কলেজ মাঠে বর্ণাঢ্য আয়োজন ও নানা কর্মসূচি পালন করে সংগঠনটি। এরমধ্যে ছিল বাইক শো, বাইক স্টান্ট, বিকেলে রাউজান সরকারি কলেজ মাঠে আলোচনা সভা, প্রতিবন্ধীদের হুইল চেয়ার প্রদান, ঢাকার কেন্দ্রীয় বাইক রাইডার্স মো. আলী আকবরসহ বাইক রাইডার্সদের সংবর্ধনা, এছাড়া কেককাটাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি।

এই অনুষ্ঠানে দেশের ৪৭টি বাইকিং কমিউনিটি গ্রুপ যোগ দেয়।  অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম। প্রধান অতিথি ছিলেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ। সংগঠনের এডমিন নুরুদ্দিন খান মুন্নার সভাপতিত্বে ও মনির তালুকদারের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন প্রধান উপদেষ্টা জসিম উদ্দিন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল ইসলাম বাহাদুর, ইরফান আহমেদ চৌধুরী, দিপলু দে দীপু, বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম চৌধুরী, নুরুল ইসলাম চৌধুরী শাহাজান, ইউপি চেয়ারম্যান প্রিয়তোষ চৌধুরী, কাউন্সিলর জানে আলম জনি, এডভোকেট দীলিপ কুমার চৌধুরী, আবদুল লতিফ, সারজু মো. নাছের, জিয়াউল হক রোকন, সাইদুল ইসলাম, উপদেষ্টা সেলিম খান, সিনিয়র বোর্ড মেম্বার রবিউল হোসেন রবি, জাহেদুল ইসলাম, মো. সাকিল, মো. রিমন, মো. শাহীন প্রমুখ।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 73 People

সম্পর্কিত পোস্ট