চট্টগ্রাম শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২০

১ নভেম্বর, ২০২০ | ১২:৫৮ অপরাহ্ণ

আল-আমিন সিকদার 

পিডিবি’র ভূতুড়ে ল্যান্ডফোন!

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) ভূতুড়ে বিলের গল্প আমাদের সবারই জানা। এই যেমন, বন্ধ সংযোগের মালিকের হাতে হাজার টাকার বিলের রশিদ ধরিয়ে দেয়া, করোনার ৩ মাসের বকেয়া বিলে পূর্বের চেয়ে ১০ থেকে ১২ গুণ বাড়িয়ে ঘরে ঘরে বিল পৌঁছে দেয়া। এসব ভৌতিক বিল নিয়ে প্রায়ই সমালোচনায় থাকে পিডিবি। তবে এবার ভিন্ন একটি ভৌতিক ঘটনা ঘটছে পিডিবিতে।

পিডিবির দুটি বিক্রয় ও বিপণনকেন্দ্রে পাওয়া গেছে ভৌতিক ল্যান্ডফোনের সন্ধান। যেখানে তাদের ল্যান্ডফোন সংযোগে গ্রাহকরা কল দিয়ে রিং বাজার শব্দ শুনলেও ওপাশ থেকে তাদের সাড়া দিচ্ছে না কেউ। অবশ্য গ্রাহকদের এ কল পৌঁছাচ্ছেও না পিডিবির দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের কাছে। কারণ, দীর্ঘ ৩ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে বিপণন কেন্দ্র দু’টির ল্যান্ডফোন সংযোগ।  এতে অন্ধকারে রাত পার করতে হচ্ছে সাধারণ গ্রাহকদের। কারণ, বেশিরভাগ গ্রাহকদের কাছেই নেই পিডিবির বিপণন কেন্দ্রগুলোর মোবাইল ফোন নম্বর। আবার অনেকে জানেনও না যে বেশ কয়েক মাস ধরে বন্ধ রয়েছে পিডিবির টিএন্ডটি সংযোগ দুটি।

গত ২৭ অক্টোবর মঙ্গলবার রাত ৯ টা। নগরীর ইপিজেডের বন্দরটিলার আলো ঝলমলে শহীদ নুরুজ্জামান সড়কের ২০টি ভবন নিমজ্জিত ছিল অন্ধকারে। পুরো এলাকাজুড়ে বিদ্যুৎ থাকলেও ওই ভবনগুলোর সময় কাটে ঘুটঘুটে অন্ধকারে। ভবনগুলোর মালিক ও সেখানে বসবাসরত বাসিন্দারা পরে নিশ্চিত হন যে, তাদের বিদ্যুৎ সরবারাহ করা ট্রান্সমিটারে বেশ কয়েকটি সংযোগের একটি নষ্ট হয়ে গেছে। যেই সংযোগটা থেকে বিদ্যুৎ সরবারাহ হত তাদের ভবনগুলোতে। ঘটনাটি বুঝতে পেরে তাৎক্ষণিক তারা কল দেয় পিডিবির নিউমুরিং অফিসের টিএন্ডটি নম্বরে (৭৪০৪২২)। কিন্তু ঘণ্টার পর ঘণ্টা কল দিলেও ওপাশ থেকে কেউ সাড়া দেয়নি তাদের। পরবর্তীতে প্রায় ৩ ঘণ্টা পর রাত ১১টা ৪৯ মিনিটে পিডিবি’র চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলীকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিষয়টি জানানোর পর মিলে সুরাহা। তিনি সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রকৌশলীকে জানানোর পর রাত ১টায় বিদ্যুৎ সংযোগ পায় অন্ধকার ভবনগুলো।

স্থায়ী বাসিন্দা রানা ও তানভীর নামে দুই যুবক পূর্বকোণকে বলেন, ‘রাত ৯টায় হঠাৎ বিদ্যুৎ চলে যায়। বাইরে এসে দেখি আমাদের ভবনসহ যে কয়েকটি ভবন একই লাইনে আছে সেগুলোরই কেবল বিদ্যুৎ নাই। পরে বুঝতে পারলাম ট্রান্সফরমারে সমস্যা। তরিঘরি করে কল দিলাম পিডিবির টিএন্ডটি নম্বরে। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা রিং বাজলেও কেউ ফোন রিসিভ করছে না। সবশেষ পিডিবি’র চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলীকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিষয়টি জানানোর পর রাত ১টায় বিদ্যুৎ সংযোগ পাই। এর আগেও বেশ কয়েকবার নানান সমস্যা নিয়ে এই টিএন্ডটি নম্বরে কল দিয়েছিলাম। তবে তারা বেশিরভাগ সময়ই রিসিভ করে না। এতে করে প্রায়ই অন্ধকারে থাকার সাজা পেতে হয় আমাদের। তাছাড়া কোন বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাদের মোবাইল নম্বরগুলোও আমাদের জানানো হয়নি। এতে করে ভবিষ্যতে আরও বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। কারণ, অনেকের কাছেই তাদের মোবাইল নম্বর নেই। তাই সমস্যায় পড়লে কিংবা বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে কোন দুর্ঘটনা ঘটলেও তাদের কেউ জানাতেও পারবে না।’

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণকাজের জন্য সড়ক বর্ধিত করা হয়। যে সময় টিএন্ডটি সংযোগের লাইনগুলো ছিঁড়ে যাওয়ায় প্রায় ৩ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে নিউমুরিং ও হালিশহর শাখার টিএন্ডটি নম্বর দুটি। তবে কল দিলে এখনো কী কারণে রিং পড়ে সেটা বুঝতে পারছি না বলে পূর্বকোণকে জানান নিউমুরিং শাখার টেলিফোন অপারেটর বাশার।

পাশাপাশি ল্যান্ডফোন সংযোগ বন্ধ থাকায় যেকোন প্রয়োজনে পিডিবি’র নিউমুরিং কেন্দ্রের ০১৯২৬-৪৩৯২৮২ ও হালিশহর কেন্দ্রের ০১৭৮৭-১৭০৪৬০ এই নম্বর দুটিতে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানান হালিশহর শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. গিয়াস।

 

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 116 People

সম্পর্কিত পোস্ট