চট্টগ্রাম বৃহষ্পতিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২০

৩০ অক্টোবর, ২০২০ | ৯:৫৯ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

হালদায় মা মাছ রক্ষায় সর্বাত্মক পদক্ষেপ নেয়া হবে : প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

হালদায় মা মাছ রক্ষায় প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নেয়া হবে। একইসাথে ভবিষ্যতে মৎস খাত আমাদের অর্থনীতির চাকাকে সচল করার সবচেয়ে বড় খাত হবে। তাই মৎস্য উৎপাদনের অগ্রযাত্রাকে ধরে রাখার জন্য সকলে মিলে কাজ করতে হবে। আজ শুক্রবার দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র চট্টগ্রামের হালদা নদী পরিদর্শনে এসে হালদা পাড়ের সাত্তারঘাটে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, মৎস্যজীবী ও এলাকাবাসীর সাথে মতবিনিময়কালে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এসব কথা বলেন ।

এসময় মন্ত্রী বলেন, দেশের মৎস্য উৎপাদনে হালদার ভূমিকা বিশাল। তাই স্মরণাতীতকালের সর্বোচ্চ মাছের পোনা এবছর হালদায় উৎপন্ন হয়েছে। মাছের পোনা উৎপাদনে হালদায় অনেক প্রতিকূলতা আমরা অতিক্রম করেছি। এখানে শিল্প কলকারখানার বর্জ্য যাতে নির্গত না হয়, মৎস্য আহরণ বন্ধকালে অসাধু উপায়ে যাতে কেউ মা মাছ ধরতে না পারে এবং কোনভাবেই হালদায় মাছের প্রজনন ক্ষেত্রে যাতে বিঘ্ন না হয়, নির্বিঘ্নে যাতে মা মাছ ডিম ছাড়তে পারে সে ব্যবস্থা আমরা নিয়েছি। এ কার্যক্রম ঠিকভাবে চলছে কীনা সেটা সরেজমিনে দেখতে আমরা মাঠে নেমেছি। এখানকার জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ আমাদের সংশ্লিষ্ট দপ্তর-সংস্থা সকলে মিলে কাজ করছে। এজন্য হালদার অতীত ঐতিহ্য ইতোমধ্যে ফিরে এসেছে। আরো ভালো অবস্থানে আমরা যাবো।

হালদা নদীর পানি নিয়ে চট্টগ্রাম ওয়াসা দৈনিক মোট ১৮ কোটি লিটার ধারণক্ষমতার দুটি পানি শোধনাগার পরিচালনা করে। মিরসরাইয়ে নির্মিতব্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে পানি সরবরাহে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪ কোটি লিটার ক্ষমতার আরেকটি প্রকল্প করতে চায় চট্টগ্রাম ওয়াসা। যার পরিবেশগত প্রভাব নিয়ে আলোচনা- সমালোচনা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, অতিরিক্ত সচিব মো. তৌফিকুল আরিফ, বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান কাজী হাসান আহমেদ, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস্ আফরোজ, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, মেরিন ফিশারিজ একাডেমির অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন মাসুক হাসান আহমেদ, চট্টগ্রামের জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফারহানা লাভলী, রাউজান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এহেছানুল হায়দর চৌধুরী, রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবীর সোহাগ, হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমীন প্রমুখ।

শেয়ার করুন
  • 232
    Shares
The Post Viewed By: 94 People

সম্পর্কিত পোস্ট