চট্টগ্রাম শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২০

সর্বশেষ:

এক হাজার মুক্তিযোদ্ধা সন্তানকে বিদেশে পাঠাচ্ছে সরকার

১৯ অক্টোবর, ২০২০ | ৫:২১ অপরাহ্ণ

মোহাম্মদ আলী 

আবেদনের শেষ সময় ৩১ অক্টোবর

এক হাজার মুক্তিযোদ্ধা সন্তানকে বিদেশে পাঠাচ্ছে সরকার

বিমান ভাড়া, ভিসাসহ যাবতীয় খরচ বহন করবে বোয়েসেল

কর্মসংস্থানের জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের এক হাজার সন্তানকে বিদেশে প্রেরণ করছে সরকার। মুজিববর্ষ উপলক্ষে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য কোন ধরনের সার্ভিস চার্জ নেওয়া হবে না। ভিসা, বিমান ভাড়াসহ যাবতীয় খরচ বহন করবে বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট এন্ড সার্ভিসেস লিমিটেডের (বোয়েসেল)। এজন্য অনলাইনে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহ্বান করা হচ্ছে। আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত গ্রহণ করা হবে আবেদন।

জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস সূত্র জানায়, মুজিববর্ষ উপলক্ষে সরকার এবারই প্রথম এ উদ্যোগ নিয়েছে। এজন্য মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের কাছ থেকে অনলাইনে আবেদন নেওয়া হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে আলাদাভাবে নির্দিষ্ট শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্ধারণ করা হয়নি। আগ্রহী প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধা সন্তান আবেদন করতে পারবেন। আবেদনকারীর শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং কাজের পারদর্শীর ভিত্তিতে তাদের সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর চাহিদা ভিত্তিতে প্রেরণ করা হবে।

সূত্র জানায়, বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট এন্ড সার্ভিসেস লিমিটেডের (বোয়েসেল) সাধারণত দক্ষিণ কোরিয়াসহ কয়েকটি দেশে কর্মী প্রেরণ করে। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের প্রেরণের ক্ষেত্রে বোয়েসেল আরো কয়েকটি দেশে কর্মী প্রেরণ করবে। প্রাথমিক পর্যায়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আবেদন গ্রহণ করা হবে। এরপর আবেদনগুলো বাছাই করে যোগ্যতার ভিত্তিতে এবং চাহিদা অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে সম্পূর্ণ বিনা খরচে প্রেরণ করা হবে।

সূত্র আরো জানায়, স্বাধীনতার পর মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের চাকরি নিয়ে বিদেশে প্রেরণের উদ্যোগ এবারই প্রথম গ্রহণ করে সরকার। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এটির সার্বিক তদারকি করছে।

এ প্রসঙ্গে জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস, চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার দৈনিক পূর্বকোণকে বলেন, ‘এটি সরকারের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। শুধু মুক্তিযোদ্ধারা নয়, তাদের সন্তানদের মূল্যায়ন করতে সরকার এ উদ্যোগ নিয়েছে। এতে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানরা যাতে যথাসময়ে আবেদন করতে পারে সে ব্যাপারে আমরা ব্যাপক প্রচার কার্যক্রম চালিয়েছি। আশা করি এতে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানরা যথেষ্ট সাড়া দিবেন। এজন্য আবেদনকারীরা অনলাইনে ([email protected]) নম্বরে আবেদন করতে হবে।’

মোহাম্মদ জহিরুল আলম মজুমদার বলেন, ‘আমি আশা করবো, মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের পাশাপাশি সরকার প্রবাসী সন্তানদের পুনর্বাসনেও পদক্ষেপ নেবে। এতে উপকৃত হবে রেমিট্যান্স যোদ্ধারা।’

 

 

 

 

 

 

পূর্বকোণ/পি-আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 165 People

সম্পর্কিত পোস্ট