চট্টগ্রাম শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০

হাসপাতাল নির্মাণ: চসিক প্রশাসককে ৬ ভূমির প্রস্তাব

১২ অক্টোবর, ২০২০ | ৮:২৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

হাসপাতাল নির্মাণ: চসিক প্রশাসককে ৬ ভূমির প্রস্তাব

চসিক প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন বলেছেন, চট্টগ্রাম বন্দর দেশের অর্থনীতির চালিকা শক্তি। স্থানীয়দের মূল্যবান বাড়ি-ভিটা অধিগ্রহণ করে সম্প্রসারিত হয়েছে আজকের কর্মমুখর বন্দর। বন্দর এলাকায় অবস্থিত দুই দুইটি ইপিজেড শিল্পাঞ্চলে কর্মরত লাখ লাখ নারী শ্রমিকের জন্য কোন মাতৃসদন হাসপাতাল নেই। যা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। বছরের পর বছর ধরে আমি নিজেও বন্দর এলাকায় একটি মাতৃসদন কাম জেনারেল হাসপাতাল করার জন্য সোচ্চার ছিলাম। অবশেষে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছায় আমার এই প্রস্তাবকে গুরুত্ব দিয়ে গত ৩০ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রস্তাবিত হাসপাতালের বাস্তবায়ন ও প্রয়োজনীয় ভূমি চিহ্নিত করতে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করে দেন।

টাইগারপাসের চসিক প্রশাসক দপ্তরে নাগরিক উদ্যোগ নেতৃবৃন্দ এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে প্রস্তাবিত হাসপাতালের জন্য ৬টি ভূমির প্রস্তাবনা হস্তান্তর অনুষ্ঠানে গতকাল রবিবার (১১ অক্টোবর) তিনি এসব কথা বলেন। ছয়টি ভূমি হলো যথাক্রমে-১. বন্দরটিলার টিসিবি ভবনের পিছনের মাঠ, ভূমির মালিক বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, ২. পুরাতন পোর্ট মার্কেট সংলগ্ন রেল লাইনের উত্তর পার্শ্বে, রেলওয়ের ভূমি, ৩. সল্টগোলা রেল ক্রসিং আজাদ কলোনী মাঠ, ভূমির মালিক সিডিএ, ৪. নিমতলা ট্রাক টার্মিনালের অপর পাশে, ভূমির মালিক চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ, ৫. আউটার রিং রোডের পূর্ব পার্শ্বে বা কান্ট্রি সাইটে আনন্দ বাজার থেকে ধুমপাড়া পর্যন্ত ব্যক্তিমালিকানাধীন এবং বড় বড় সরকারি খালি ভূমি ও ৬. র‌্যাব-৭ সংলগ্ন এলাকায় ‘নারী প্রজেক্ট’ ভূমির মালিক বেপজা।

সিটি প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজনের হাতে এসব লিখিত প্রস্তাব তুলে দেন নাগরিক উদ্যোগের নেতৃবৃন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, প্রশাসকের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, নাগরিক উদ্যোগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাজী মো. ইলিয়াছ, সদস্য সচিব হাজী মো. হোসেন, সমন্বয়কারী মোরশেদ আলম, আবদুর রহমান মিয়া প্রমুখ।

 

 

 

 

পূর্বকোণ/আরপি

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 86 People

সম্পর্কিত পোস্ট