চট্টগ্রাম বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০

১১ অক্টোবর, ২০২০ | ১২:৫৮ অপরাহ্ণ

ইমরান বিন ছবুর

প্রচণ্ড গরমে চরম অস্বস্তি

নগরীর ডিসি হিল পার্ক। স্বস্তির আশায় পার্কে শুয়ে আছেন কিছু শ্রমজীবী মানুষ। এদের মধ্যে কয়েকজন গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন। দুপুরের তীব্র রোদ ও গরম থেকে বাঁচতে পার্কের বসার স্থানে শুয়ে আছেন এসব শ্রমজীবী মানুষ। যার মধ্যে দিনমজুরের সংখ্যাই বেশি। পার্কের বিশাল বিশাল গাছের ছায়া ও শীতল বাতাসে কাৎ হতেই দু’চোখ বন্ধ হয়ে আসে তাদের। পার্কে ঘুরে দেখা যায়, চার-পাঁচজনের গ্রুপ করে পার্কের চারপাশে শুয়ে আছেন অসংখ্য খেটে খাওয়া মানুষ। এসব মানুষের মাথার নিচে বালিশ কিংবা গায়ে কাঁথা নেই। তবুও চোখে ঘুম তাদের। এছাড়াও, নগরীর বিভিন্ন পার্ক ও ফুটপাতসহ বড় গাছের ছায়ার নিচে শ্রমজীবী মানুষদের বিশ্রাম নিতে দেখা যায়। গত কয়েকদিনের তীব্র রোদ ও গরমে কাহিল হয়ে পড়েছে সব শ্রেণি পেশার মানুষ। এই গরমে নিম্ন আয়ের মানুষদের সবচেয়ে বেশি ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। সামান্য পরিশ্রমেই রিকশা, ভ্যান, ঠেলাগাড়িচালক ও দিনমজুররা ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন। সূর্যের তাপ থেকে রক্ষা পেতে পথচারীদের ছাতা মাথায় পথ চলতে দেখা যায়। গরম থেকে বাঁচতে রাস্তার পাশের খোলা শরবত ও ডাব খেতে দেখা যায় বিভিন্ন শ্রমিক ও পথচারীদের। আজ থেকে এই গরমের তীব্রতা কমতে পারে এবং একই সাথে বৃষ্টির আভাস দিচ্ছেন চট্টগ্রাম আবহাওয়া অফিস।
নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, জীবিকার তাগিদে বিপুল সংখ্যক মানুষ রাস্তায় বের হলেও গরমে সবার অবস্থা কাহিল হয়ে পড়েছে। একটু স্বস্তির আশায় পথচারীদের যাত্রী ছাউনি ও ছায়ায় আশ্রয় নিতে দেখা যায়। ডিউটি করতে করতে ক্লান্ত ট্রাফিক সদস্যকেও দেখা যায় ছাতার নিচে বিশ্রাম নিতে।
গতকাল দুপুরে নগরীর টাইগার পাস মোড় এলাকায় এক ট্রাফিক পুলিশ সদস্যকে দেখা যায় ছাতা মাথায় দায়িত্ব পালন করতে। যান চলাচল সচল রাখতে ব্যস্ত তিনি। একপাশে গাড়ি থামার সংকেত দিয়ে অন্য পাশের যান চলাচল রাখছেন। এরমধ্যে কিছুক্ষণ পর পর পকেট থেকে রুমাল বের করে তিনি মুখের ঘাম মুছছেন।
চট্টগ্রামের আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ ও পূর্বাভাস কর্মকর্তা ড. মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম জানান, গত কয়েকদিন ধরে চট্টগ্রামের তাপমাত্রার পরিমাণ তুলনামূলক বেশি ছিল। গত শুক্রবার চট্টগ্রামের তাপমাত্রা ছিল ৩৫.৪ ও শনিবার ছিল ৩৫.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আজ রবিবার চট্টগ্রামের কিছু কিছু জায়গায় বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। ফলে আস্তে আস্তে তাপমাত্রার পরিমাণ কমতে পারে।
চট্টগ্রামের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজকের আকাশ মেঘলা থেকে অস্থায়ীভাবে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে। সেইসাথে চট্টগ্রামের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া, রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। গতকাল শনিবার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এসব কথা বলা হয়েছে।
আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, পূর্ব/দক্ষিণ-পূর্ব দিক হতে ঘণ্টায় ১০-১৫ কি. মি. বেগে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে। যা অস্থায়ীভাবে ৩০-৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে। পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় আবহাওয়া সামান্য পরিবর্তন হতে পারে বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম আবহাওয়া অফিস।
গতকালের তাপমাত্রা : গতকালের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫.০ ডিগ্রি সে. এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬.০ ডিগ্রি সে.।
আজকের সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত : আজকের সূর্যোদয় ভোর ৫টা ৪৮ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৫টা ৩০ মিনিটে।
জোয়ার-ভাটা : আজ কর্ণফুলী নদীতে প্রথম জোয়ার শুরু হবে রাত ১২টা ৫৭ মিনিটে এবং প্রথম ভাটা শুরু হবে সকাল ৭টা ২৮ মিনিটে। দ্বিতীয় জোয়ার শুরু হবে দুপুর ২টা ২০ মিনিটে এবং দ্বিতীয় ভাটা শুরু হবে রাত ৮টা ৪৩ মিনিটে।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 143 People

সম্পর্কিত পোস্ট