চট্টগ্রাম শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০

সর্বশেষ:

ফ্রান্সে মহানবীকে ব্যঙ্গ করার প্রতিবাদে শুক্রবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ করবে হেফাজত

৭ অক্টোবর, ২০২০ | ৩:৪৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব সংবাদদাতা, হাটহাজারী

কে হচ্ছেন হেফাজত আমির ?

হেফাজতের আমির কে হচ্ছেন এটা নিয়ে সারাদেশের আলেম সমাজে চলছে জল্পনা কল্পনা। হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক ও হেফাজতের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুর পর অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির পদটি শূন্য হয়ে যায়। কিছু দিনের মধ্যে কাউন্সিল হওয়ার কথা রয়েছে। কেন্দ্রীয় কার্যালয় চট্টগ্রামের হাটহাজারী নাকি রাজধানী ঢাকা থেকেই নির্বাচিত হবেন হেফাজতের আমির এ নিয়ে আলেম সমাজে চলছে আলোচনা।
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, শীঘ্রই হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশের কাউন্সিল অধিবেশনে মজলিশে শূরা আমির ও মহাসচিব নির্বাচিত করবেন। আল্লামা আহমদ শফী গত ১৮ সেপ্টেম্বর মৃত্যুবরণ করার পর হেফাজতের আমির পদটি এখনো শূন্য রয়েছে। তাঁর মৃত্যুর আগে হাটহাজারী মাদ্রাসার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে প্রকাশ্যে কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশ। এসব গ্রুপগুলো হেফাজতের ভারপ্রাপ্ত নেতৃত্বের আশা করছে। এদের মধ্যে এক গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন হেফাজতের বর্তমান মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদ্রাসার শিক্ষা সচিব মাওলানা জুনাইদ বাবুনগরী অন্য গ্রুপে রয়েছেন হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মাঈনুদ্দীন রুহি ও আল্লামা শফীর ছেলে হেফজতের প্রচার সম্পাদক আনাস মাদানি। ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি গঠিত হয়েছিল চট্টগ্রাম কেন্দ্রীক কওমি আক্বীদাপন্থি অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম। হাটহাজারী দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার প্রধান পরিচালক শাহ আহমদ শফীকে আমির ও মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস জুনায়েদ বাবুনগরীকে মহাসচিব করে হেফাজতের ২২৯ সদস্যের মজলিশে শূরা কমিটি গঠন করা হয়েছিল।
সংগঠনের বিভিন্ন নেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, হেফাজতের আমির আল্লামা আহম্মদ শফীর মৃত্যুর পর সংগঠনের এক নম্বর সহ-সভাপতি মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ভারপ্রাপ্ত আমির হওয়ার কথা থাকলেও তিনি অসুস্থতার জন্য দায়িত্ব নিতে অপারগ হন।
এ ব্যাপারে হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুর পর হেফাজতে ইসলামের পরবর্তী আমির কে হবেন তা কাউন্সিলের মাধ্যমে নির্ধারণ করা হবে। তবে হুজুরের মৃত্যুতে কোনো ধরনের প্রভাব পড়বে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রভাব তো পড়বেই। হুজুরের মতো তো আর মানুষ পাওয়া যাবে না। আমার দায়িত্ব হলো এখন কাউন্সিল ডাকা। কাউন্সিল যে সিদ্ধান্ত নেবে ওটাই হবে।
নায়েবে আমীর মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, আমি নিজে পদ-পদবির চাহিদা পোষণ করি না। হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী সংগঠনের সাধারণ নিয়ম অনুযায়ী নতুন নেতা নির্বাচনের জন্য মহাসচিব কাউন্সিল সভার আহ্বান করবেন। কাউন্সিলরদের প্রকাশ্যে মতামতের ভিত্তিতেই নতুন নেতা নির্বাচিত হবেন।
এ ব্যাপারে যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মাঈনুদ্দীন রুহি বলেন, হেফাজত কোন রাজনৈতিক সংগঠন নয়। এটি একটি সার্বজনিন সংগঠন। যে কোন ইসলাম বিরোধী কার্যকলাপ ও নাস্তিকদের বিরুদ্ধে হেফাজত যে নেতৃত্ব দিয়ে গেছে, বর্তমানেও ইসলাম বিরোধী কার্যকলাপে আগের মত নেতৃত্ব দিয়ে যাবে। হেফাজত আগের থেকে সাংগঠনিকভাবে আরো মজবুত হোক এটা কামনা করি, হেফাজত আবার আগের মত ঘুরে দাঁড়াবে এটা আমার প্রত্যাশা।

পূর্বকোণ/এএ

শেয়ার করুন
The Post Viewed By: 119 People

সম্পর্কিত পোস্ট